Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০৪ মাঘ ১৪২৭, ০৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

ডিএসইতে লেনদেন ও সূচক বেড়েছে

| প্রকাশের সময় : ৩ মে, ২০১৭, ১২:০০ এএম

অর্থনৈতিক রিপোর্টার: মঙ্গলবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ২৬ শতাংশ আর্থিক লেনদেন বেড়েছে। এদিন মূল্যসূচকও বেড়েছে। ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৪৬ পয়েন্ট বেড়ে দাড়িয়েছে ৫৫২১ পয়েন্টে। যা আগের দিন কমেছিল ৫৯ পয়েন্ট। মঙ্গলবার ডিএসইতে ৭৭৪ কোটি ২৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যার পরিমাণ আগের দিন ছিল ৬১৪ কোটি ৭৬ লাখ টাকা। এ হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ১৫৯ কোটি ৫২ লাখ টাকার বা ২৬ শতাংশ।
পুঁজিবাজারে মোট লেনদেন হয়েছে ৮২০ কোটি ৪১ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। গত কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৬৪৭ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। ডিএসইতে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৪৫ দশমিক ৮৩ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৫২১ পয়েন্টে, ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ১০ দশমিক ৬৮ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২৭৪ পয়েন্টে এবং ১৬ দশমিক ২৪ পয়েন্ট বেড়ে ডিএসই-৩০ সূচক দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৩২ পয়েন্টে অবস্থান করছে।
ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩২৫টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৪৪টির, কমেছে ১৫৪টির এবং কোনও পরিবর্তন হয়নি ২৭টি কোম্পানির শেয়ার দর। এছাড়া টাকার অঙ্কে ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলো- ইউনাইটেড পাওয়ার, লংকা-বাংলা ফাইন্যান্স, সাইফ পাওয়ার, বিডি ফাইন্যান্স, প্রিমিয়ার ব্যাংক, শাহজিবাজার পাওয়ার, ন্যাশনাল ব্যাংক, আরগন ডেনিমস, মার্কেন্টাইল ব্যাংক এবং ওয়ান ব্যাংক।
দর বৃদ্ধির শীর্ষে প্রধান ১০টি কো¤পানি হলো: বিডি ফাইন্যান্স, ইউনিয়ন ক্যাপিটাল, জিকিউ বল পেন, ওরিয়ন ফার্মা, ন্যাশনাল ব্যাংক লিঃ, ইউনাইটেড পাওয়ার, এমজেএল বিডি, ফার কেমিক্যাল, রিজেন্ট টেক্সটাইল ও প্যারামাউন্ট টেক্স। দাম কমার শীর্ষে প্রধান ১০টি কো¤পানি হলো:- জনতা ইন্সুরেন্স, মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক, লিগেসী ফুটওয়্যার, সাভার রিফ্রেক্টরীজ, ফাইন ফুডস, ঢাকা ইন্সুরেন্স, মাইডাস ফাইন্যান্স, জাহিন টেক্স, গোল্ডেন সন ও অলটেক্স।
অন্যদিকে সিএসইতে মোট শেয়ার লেনদেনের পরিমান ৪৬ কোটি ১৪ লাখ টাকা। গত মঙ্গলবার লেনদেন হয়েছিল ৩৭ কোটি ১১ লাখ টাকার শেয়ার। সুতরাং সিএসইতে গত কার্যদিবসের চেয়ে শেয়ার লেনেদেন বেড়েছে ৬ কোটি ৯৭ লাখ টাকার বেশি।
সিএসইর প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৭০ দশমিক ২৩ পয়েন্ট বেড়ে ১০ হাজার ৩৭৩ পয়েন্টে, সিএএসপিআই সূচক ১১৩ দশমিক ০৪ পয়েন্ট বেড়ে ১৭ হাজার ১০৬ পয়েন্টে, সিএসই-৫০ সূচক ৯ দশমিক ৯৬ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২৬৪ পয়েন্টে এবং সিএসই-৩০ সূচক ৩০ দশমিক ৬২ পয়েন্ট কমে ১৫ হাজার ১০৯ পয়েন্টে অবস্থান করছে।
সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৩৫টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১০৫টির, কমেছে ১০১টির এবং কোনও পরিবর্তন হয়নি ২৯টি কোম্পানির শেয়ার দর। টাকার অঙ্কে সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলো- সাইফ পাওয়ার, ন্যাশনাল ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, আরগন ডেনিমস, বারাকা পাওয়ার, লংকা-বাংলা ফাইন্যান্স, ইউনাইটেড পাওয়ার, বেক্সফার্মা, বেক্সিমকো লিমিটেড এবং বিডি কম।
ইমাম হোসাইন রা. জয়নুল আবেদীন (রহ.) মদিনায় ইসলামের পুনরুজ্জীবন ধানকারী -মাহফিলে বক্তাগণ
স্টাফ রিপোর্টার : গতকাল ছিল সুমহান বরকতময় দিন পবিত্র ৫ শাবান। এ মহান দিনে জন্ম গ্রহণ করে ছিলেন মদীনার ইসলামের পূনঃজীবধানকারী হযরত ইমাম হোসাইন রা. ও হযরত যয়নুল আবেদীন রহ.। হযরত ইমাম হোসাইন রা. মদিনায় জন্ম গ্রহণ করেছিলেন চতুর্থ হিজরীর ৫ শাবান শুক্রবার। জন্মের পর পরই রাসূল সা. তার কানে আযান ও একামাত দিয়ে দুআ করে ছিলেন এবং জন্মের সপ্তম দিনে আকিকা করে নাম রেখে ছিলেন হযরত হোসাইন রা.। আর সাত চল্লিম হিজরীর একই তারিখ বৃহস্পতিবার জন্ম গ্রহণ করে ছিলেন হযরত ইমাম হোসাইন রা. এর আওলাদ হযরত যয়নুল আবেদীন রহ.। কারবালায় ইয়াযিদ বাহিনীর বর্বরতায় হযরত ইমাম হোসাইন রা. শহীদ হওয়ার সময় হযরত যয়নুল আবেদীন রহ. এর বয়স ছিল চৌদ্দ বছর। কারবালার দিনে তিনি অত্যন্ত অসুস্থ থাকায় ইয়াযিদ বাহিনীর বর্বরতা থেকে বেঁচে গিয়েছিলেন। পরবর্তীতে তিনি মদিনায় সহিহ ইসলাম প্রচারের সুযোগ পেয়েছিলেন। এতে মুসলমানরা মদিনার ইসলামে দাখিলের পথ খুজে পেয়েছিলেন। কিতাবে বর্ণিত আছে আওলাদে রাসূল হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে হাসান মুসান্না রা. যুবক বয়সে খলিফা হযরত উমর ইবনে আব্দুল আজিজ রহ. এর নিকট তাশরিফ নিলেন। খলিফা উনার প্রতি সন্মান প্রদর্শণ করে উচ্চ আসনে বসালেন এবং উনার ইচ্ছা পূরণ করলেন। ইবনে হাসান মুসান্না চলে যাওয়ার পর উপস্থিত লোকজন খলিফাকে জিজ্ঞাসা করলেন, এতো অল্প বয়সি একটি বালককে কেন তিনি উচ্চ আসনে বসালেন। উত্তরে খলিফা বললেন আমি নির্ভরযোগ্য হাদিস থেকে জেনেছি যে, ‘হুযুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন হযরত ফাতেমা রা. আমার দেহের অংশ। যে বিষয়ে ফাতেমা রা. সন্তুষ্ট সেবিষয়ে আমিও সন্তুষ্ট।’ কাজেই রাসূল সা. এর বংশধর হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে হাসান মুসান্না রা. কে উচ্চ আসন দেয়ায় রাসূল সা. সন্তুষ্ট হলো। একারণেই উনাকে উচ্চ আসন দিয়েছি। এ আলোচনায় এটা স্পষ্ট হুযুর পাক সা. এর সন্তুষ্টি পেতে হযরত আহলে বায়েতদেরকে মহব্বত করতে হবে। তাই মুসলমানদের উচিৎ আহলে বায়েতের মুহব্বতের হাকিকত সম্পর্কে ইলম অর্জন করা। এবং উনাদের সন্তুষ্টির জন্য আলোচনা দুআ মাহফিলের আয়োজন করা। আর সরকারের উচিৎ উনাদের জীবনীর আলোচনা পাঠ্য পুস্তুকে অর্ন্তভূক্ত করা।
সালেহীন দরবার শরীফ এবং হাক্কানী তরিকত ফেডারেশনের পৃথক পৃথক আলোচনা মিলাদ ও দুআর মাহফিলে বক্তাগণ এসব কথা বলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ