Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ০৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

দুই বছরে ১০ বছরের কাজ হয়েছে

দায়িত্ব গ্রহণের দুই বছরপূর্তিতে মেয়র সাঈদ খোকন

| প্রকাশের সময় : ৭ মে, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেছেন, গত দুই বছরে ১০ বছরের সমান উন্নয়ন কাজ হয়েছে। তবে যত কাজ হয়েছে তা একটি শহরকে বদলে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট নয়। উত্তর সিটির চেয়ে দক্ষিণ সিটিতে বেশি উন্নয়ন হয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, উত্তর সিটির মানুষ এখনো অন্ধকারে থাকে। দক্ষিণের নানা এলাকায় এলইডি বাতি লাগানোর কারণে আলোয় আলোকিত হয়ে গেছে, হকারমুক্ত করায় ফুটপাত এখন ফাঁকা, এ কারণে উত্তরের মানুষ এখন দক্ষিণে ঘুরে বেড়াতে আসে। হাওয়া খেতে আসে। শুধু উত্তর সিটিই নয়, দেশের অন্য সিটি থেকেও মানুষ এলইডি বাতির আলো দেখতে ঢাকায় আসছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
গতকাল ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের নগর ভবনে মেয়র পদে নির্বাচিত হওয়ার দুই বছরপূর্তি উপলক্ষে ‘এগিয়ে যাচ্ছে দক্ষিণ ঢাকা’ শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবু আহম্মেদ মান্নাফী, হুমায়ুন কবীর, আয়েশা মোকাররম প্রমুখ।
দুই বছরের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, এই সময় একটি শহরকে বদলে দেওয়ার জন্য কিছুই নয়। তবে এটা একেবারে ছোট সময় নয়, একজন মেয়রের দায়িত্ব পালনের ৪০ ভাগ সময় এটা। তিনি বলেন, দায়িত্বভার নেওয়ার সময় নগরীর রাস্তাঘাট ছিলো ভাঙাচোরা। সড়ক বাতির অবস্থা ছিল অত্যন্ত নাজুক। বাজেট বহির্ভূত ব্যয়ের কারণে ঠিকাদারদের বহু বিল বকেয়া ছিল। এ রকম একটি প্রেক্ষাপটে দায়িত্ব নেওয়ার পর সকলের সহযোগিতায় ঢাকা শহরের পরিবর্তন হয়েছে।
নগর উন্নয়ন করতে গিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে হুমকিধমকির পরও নিজের লক্ষ্য থেকে সরে আসেননি উল্লেখ করেন সাঈদ খোকন বলেন, নাগরিকদের নিরাপদ ও সুষ্ঠুভাবে ফুটপাতে চলাচলের জন্য গুলিস্তান, মতিঝিল, নিউ মার্কেটের ফুটপাত দখলমুক্ত করা হয়েছে। এই কাজ করতে গিয়ে নানাবিধ হুমকিধমকি, প্রতিরোধ এসেছে। কোনো চাপের কাছে নতিস্বীকার করিনি।
মেয়র বলেন, কর্মদিবসে অফিস আওয়ারের পরে হকারদের ফুটপাতে বসার অনুমতিদানের জন্য সপ্তাহের নির্দিষ্ট দিন দিলকুশা, নবাবপুর রোড, মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল সংলগ্ন স্থান, সেগুনবাগিচা ও বায়তুল মোকাররম মসজিদ এলাকায় পাঁচটি হলিডে মার্কেট চালু করা হয়েছে।
ঢাকার দুই সিটির মধ্যে কোন কর্পোরেশন কাজে এগিয়ে-এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মেয়র বলেন, ডকুমেন্ট আপনাদের হাতে দিয়েছি, এই ডকুমেন্টে যদি দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন পিছিয়ে থাকে, জনগণ যেটা বলবে, সেটা আমি মেনে নেব। কোথায় কোন কাজ করেছি, নগরের কোথায় কোন উন্নয়ন হয়েছে টোটাল ডকুমেন্ট আপনাদের হাতে। এগুলো দেখে যদি দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন পিছিয়ে থাকে মনে হয়, তাহলে যা বলবেন মেনে নেব।
শান্তিনগরের পানিবদ্ধতার জন্য ড্রেনেজ সিস্টেমের কাজ ৮০ ভাগ সমাপ্ত হয়েছে জানিয়ে মেয়র বলেন, আগামী জুন-জুলাইয়ের বর্ষায় শান্তিনগরে কোন ধরনের পানিবদ্ধতা হবে না। এখন একটা ভারী বর্ষণ হলেই বিষয়টি দৃশ্যমান হবে।
মৌচাক ফ্লাইওভারের নির্মাণ কাজের কারণে নগরবাসীর ভোগান্তির দায় মেয়র হিসেবে এড়াতে পারেন কি না- জানতে চাইলে সাঈদ খোকন বলেন, এই ফ্লাইওভার নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের একটা দুর্বলতা থাকতে পারে। তবে জুলাই-আগস্ট নাগাদ এই প্রকল্পের কাজ শেষ হয়ে যাবে। প্রকল্পটি এলজিআরডির, এখানে সিটি কর্পোরেশনের তেমন কিছু করার থাকে না।
লাইট এমিটিং ডায়োড (এলইডি) বাতি লাগানোকে তার দুই বছরের প্রধান সাফল্য উল্লেখ করে মেয়র বলেন, দায়িত্ব গ্রহণের সময় নগরীর ১০ ভাগ বিদ্যুৎ বাতিও জ্বলতো না। দায়িত্ব নিয়ে অত্যাধুনিক এলইডি বাতি লাগানোর প্রকল্প গ্রহণ করি। ইতোমধ্যে এ প্রকল্পের প্রায় ৭০ ভাগ অর্থাৎ ২৫ হাজার বাতি লাগানো সম্পন্ন হয়েছে। আগামী জুন-জুলাই মাসের মধ্যে মোট ৩৭ হাজার ২০০ বাতি লাগানোর কাজ শেষ হবে।
সাঈদ খোকন বলেন, এলইডি বাতি লাগানোর ফলে ডিএসসিসি এলাকায় ছিনতাই, রাহাজানি ও সন্ত্রাসী ঘটনা কমে গেছে। পথচারীরা নিরাপদে ও নির্বিঘেœ চলাচল করতে পারছেন। একইসাথে আইনশৃংখলা রক্ষার কাজেও সহায়ক হয়েছে। নগর ভবনে এর কন্ট্রোল রুম করা হচ্ছে। এ কক্ষ থেকেই নগরীর সব বাতি জ্বালানো, নেভানো ও আলোর পরিমান কম-বেশি করা যাবে। কোন বাতি নষ্ট হলে ঘরে বসেই জানা যাবে এবং নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমেও এটি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন।
মেয়র বলেন, দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ দখলে থাকা সায়েদাবাদ এবং ইংলিশ রোডের অবৈধ ট্রাক স্ট্যান্ড উদ্ধার করা হয়েছে। গোলাপবাগ মাঠ, শিশু পার্কের সামনের অবৈধ পার্ক দখলমুক্ত করা হয়েছে। নারিন্দাতে বিশাল জমি উদ্ধার করা হয়েছে।
খোকন বলেন, নগরীতে ৩০০টি সড়ক নির্মাণ, সংস্কার ও উন্নয়ন করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ২১৪ দশমিক ৭২ কিলোমিটার রাস্তা, ৪৭ দশমিক ৩৯ কিলোমিটার ফুটপাত নির্মাণ করা হয়েছে। পানিবদ্ধতা নিরসনে ২৩৯ দশমিক ১৫ কিলোমিটার নর্দমা নির্মাণ, ১৩৫ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণ এবং ১৪০ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে।
সাঈদ খোকন বলেন, মাত্র ৭ ঘণ্টায় এক কিলোমিটার সড়ক নির্মাণে সক্ষম এমন অত্যাধুকি কোল্ড মিলিং মেশিন সংগ্রহ করা হয়েছে। এর ফলে পুরনো সড়কের ম্যাটেরিয়াল ব্যবহার করেই নতুন সড়ক নির্মাণ সম্ভব এতে ব্যয়ও কমবে ৪০ শতাংশ। মেগা প্রকল্পের আওতায় ২টি অত্যাধুনিক পশু জবাইখানা নির্মাণসহ শিশু পার্ক নির্মাণ, যাত্রী ছাউনি, বাস-বে নির্মাণ, স্বচ্ছ পুলিশ বক্স স্থাপন, সড়কে সুপেয় পানি পানের জন্য ওয়াটার ফাউন্টেন নির্মাণ, কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ ও সিসি ক্যামেরা বসানোসহ অনেক কার্যক্রম বাস্তবায়িত হচ্ছে।
মেয়র বলেন, নগরীর সৌন্দর্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে সড়ক থেকে অবৈধ ৩০ হাজার ব্যানার পোস্টার, ফেস্টুন অপসারণ করা হয়েছে। জলসবুজে ঢাকা প্রকল্পের মাধ্যমে ৩১টি খেলার মাঠ ও পার্ক ঢেলে সাজানো হচ্ছে। এ বছরের শেষের দিকে কাজ শেষ হবে। ৪৭টি পাবলিক টয়লেট নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, তার মধ্যে ১১টি টয়লেট নির্মাণ কাজ ইতোমধ্যে শেষ করে জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে। ১৭টি সংস্কার কাজ চলমান। চলতি বছরে ৮টি ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ ও ১৭টি সংস্কারের কাজ চলছে বলেও উলেখ করেন মেয়র।
পুরনো যানবাহনের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে জানিয়ে সাঈদ খোকন বলেন, ৮১ জন চালককে কারাদন্ড ও এক হাজার ২৩০টি মামলা ও ৩০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ৫টি এসটিএস নির্মাণ করা হয়েছে। ২৩টির কাজ চলমান রয়েছে। পাঁচ হাজার ৭০০টি ওয়েস্টবিন নির্মাণ করা হয়েছে। মাতুয়াইলে ৮১ একর জমি অধিগ্রহণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
এক প্রশ্নের জবাবে মেয়র বলেন, গুলিস্তান, নিউ মার্কেট ও তার আশপাশের এলাকার ফুটপাত থেকে লাইনম্যান নামধারী চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। যেসব চাঁদাবাজ বাস, লেগুনা বা অন্য যানবাহনে চাঁদাবাজি শুরু করেছেন তাদের বিরুদ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সামাজিক ও ধর্মীয় কর্মকান্ড তুলে ধরে সাঈদ খোকন বলেন, এ পর্যন্ত ৩টি কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ করা হয়েছে। আজিমপুর কবরস্থানে মসজিদ নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। ঢাকেশ্বরী মন্দির নির্মাণ কাজটি শেষ। পোস্তগোলাতে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের জন্য মহাশশ্মানঘাট নির্মাণ করে উদ্বোধন করা হয়েছে। ২১টি ব্যায়ামাগারের মধ্যে ১৫টি চালু আছে এবং ৬টির সংস্কার কাজ চলছে। নাগরিক সেবা বৃদ্ধির লক্ষ্যে অনলাইনে হোল্ডিং ট্যাক্স আদায় এবং ট্রেড লাইসেন্স প্রদান কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
পথচারী ও যানবাহন চলাচলে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সংযোজন করে ইতোমধ্যে ধানমন্ডি শেখ কামাল সরণি (২৭নং রোড) থেকে নীলক্ষেত পর্যন্ত ইনস্টিটিউট অব আর্কিটেক্টের ডিজাইনে একটি মডেল রোড নির্মাণ কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। তাছাড়া, মহানগরীকে মশকমুক্ত, স্বাস্থ্যসম্মত ও মশকবাহিত রোগ প্রতিরোধে পর্যাপ্ত পরিমাণ মশক নিধন ওষুধ প্রয়োগ করা হয়েছে।
ঢাকা দক্ষিণের মেয়র বলেন, নবযুক্ত ৮টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪টি ইউনিয়ন শ্যামপুর, দনিয়া, মাতুয়াইল ও সারুলিয়া ইউনিয়নে ১৫২ কিলোমিটার সড়ক, ফুটপাত ও নর্দমা নির্মাণের দরপত্র আহŸান করা হয়েছে।
২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল বিভক্ত ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের প্রথম নির্বাচনে উত্তর সিটিতে আনিসুল হক এবং দক্ষিণে সাঈদ খোকন মেয়র নির্বাচিত হন। সাঈদ খোকন দায়িত্ব নেন ৭ মে। আর দায়িত্ব নেওয়ার দ্বিতীয় বর্ষপূর্তির আগের দিন ‘এগিয়ে যাচ্ছে দক্ষিণ ঢাকা’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলন ডাকেন তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ