Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

শেখ হাসিনার মেয়াদেই তিস্তা চুক্তি সম্পন্ন হবে শিল্পমন্ত্রী

| প্রকাশের সময় : ৮ মে, ২০১৭, ১২:০০ এএম


স্টাফ রিপোর্টার : আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, শেখ হাসিনার মেয়াদকালেই ভারতের সঙ্গে বহুল আলোচিত এবং প্রতিক্ষিত তিস্তা নদীর পানিবন্টন চুক্তি সম্পন্ন হবে। আওয়ামী লীগ সরকারই ভারতের কাছ থেকে কিছু আদায় করতে পেরেছে। বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ভারতে গিয়েছিলেন, কিন্তু তিনি ফারাক্কা চুক্তির কথা ভুলেই গিয়েছিলেন। শেখ হাসিনার আমলেই ভারতের কাছ থেকে সমুদ্রসীমা জয় করা গেছে, এমনকি ছিটমহল বিনিময়ও হয়েছে। তিস্তা চুক্তি এখন শুধু সময়ের ব্যাপার মাত্র। শেখ হাসিনা এটা করে দেখাবেন।
গতকাল রোববার আওয়ামী যুবলীগ নরসিংদী জেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। নরসিংদী জেলা স্টেডিয়ামে যুবলীগের এ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। কাউন্সিলের উদ্বোধন করেন যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী।
আমির হোসেন আমু বলেন, বিএনপির পক্ষ থেকে বিশেষ করে দলটির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া তিস্তা চুক্তি নিয়ে যেসব অপপ্রচার চালাচ্ছেন তা জনগণের কাছে হাস্যকর বলে মনে হয়। দলটি ক্ষমতায় গেলেই দেশের বারোটা বাজিয়ে ছেড়েছে। বারবার দেশকে দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ান করেছে। শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড পুরো বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। সাবেক আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা পর্যন্ত বাংলাদেশের প্রযুক্তিখাতে উন্নয়নের বিপ্লবে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। খালেদা জিয়ার আমলে খাদ্য ঘাটতি থাকলেও বর্তমান সরকারের আমলে খাদ্য রপ্তানি হচ্ছে। প্রতিবেশি দেশগুলোই নয়, বাংলাদেশের উন্নয়নের মহাযজ্ঞ দেখে দক্ষিণ এশিয়ার অর্থনীতির নতুন টাইগার হিসাবেও আখ্যায়িত করছে পশ্চিমা বিশ্ব।  
যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, শেখ হাসিনার সরকারের আমলে দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে উঠেছে। এদেশকে আর কোনো শক্তি পিছিয়ে রাখতে পারবে না। শিক্ষা, খাদ্য, কর্মসংস্থান, অবকাঠামো উন্নয়ন মিলিয়ে বর্তমানে বাংলাদেশ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের দেশে পরিণত করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার দূরদর্শী নেতৃতে¦ বাংলাদেশ এখন এশিয়ার বাঘে পরিণত হচ্ছে।  
যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, রাজনীতিতে সমঝোতা একটি শিল্প। আমাদের পরিবারে সদস্য যেমন বাবা, মা, ভাই, বোন সবার সঙ্গে সমঝোতা করে চলতে হয়, ঠিক তেমনি রাজনীতিতে বিভিন্ন দল মতের মানুষদের সঙ্গেও সমঝোতা করতে হয়। এটা এখন শিল্পের পর্যায়ে এসে দাঁড়িয়েছে। তিনি আরো বলেন, যুবলীগের বর্তমান কমিটির মেয়াদে যতগুলো জেলা কমিটির সম্মেলন হয়েছে সবগুলোর মধ্যে নরসিংদীর এই সম্মেলন সর্বশ্রেষ্ঠ।
সম্মেলনে নতুন কমিটির সভাপতি হিসাবে বিজয় কৃষ্ণ গোস্বামী এবং শামীম নেওয়াজকে সাধারণ সম্পাদক হিসাবে ঘোষণা করেন ওমর ফারুক চৌধুরী। নতুন নেতাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আগামী এক মাসের মধ্যে সবার সঙ্গে আলোচনা করে পূর্ণাঙ্গ কমিটি তৈরি করে কেন্দ্রে পাঠাতে হবে।   
সম্মেলনে আরো বক্তব্য রাখেন নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নজরুল ইসলাম হিরু, সংসদ সদস্য নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মো. হারুনুর রশীদ, সংসদ সদস্য জহিরুল ইসলাম মোহন, সিরাজুল ইসলাম মোল্লা, যুবলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য শহীদ সেনিয়াবাত, মোহাম্মদ ফারুক হোসেন, আব্দুস সাত্তার মাসুদ, মো. আতাউর রহমান, এ্যাড. বেলাল হোসেন, অধ্যাপক এবিএম আমজাদ হোসেন, আনোয়ারুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক মঞ্জুর আলম শাহীন, সুব্রত পাল, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. বদিউল আলম, আসাদুল হক আসাদ, ফারুক হাসান তুহিন, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য কাজী আনিসুর রহমান, মিজানুল ইসলাম মিজু, মোহাম্মদ ইসলাম, শ্যামল কুমার রায়, রবিউল আলম, কার্যনির্বাহী সদস্য রওশন জামির রানা প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ