Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬ আশ্বিন ১৪২৭, ০৩ সফর ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

দরিদ্রতার কাছে হার মানতে হচ্ছে গঙ্গাচড়ার জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ফাতেমার

| প্রকাশের সময় : ৮ মে, ২০১৭, ১২:০০ এএম

গঙ্গাচড়া (রংপুর) উপজেলা সংবাদদাতা : দিনমজুর বাবা আব্দুল মালেক। মা আইরিন বেগম। দীর্ঘদিন থেকে বিছানায় রয়েছে একমাত্র ভাই রাকিব আহম্মদ। ছোট বোন মাধুর্য সবে মাত্র বিদ্যালয়ে যায়। খাস জমির উপর ছোট্ট চালা ঘর। বিদ্যুৎ নেই। এমনি এক ঘরে জন্ম ফাতেমা তুজ জোহরার। দারিদ্রতা যার একমাত্র সঙ্গী। আর এ সঙ্গীকে কাঁধে নিয়ে পাড় হচ্ছে সফলতার একেকটি সিঁড়ি। পিএসসি ও জেএসসিতে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত এই অদম্য মেধাবী শিক্ষার্থীর কাছে হার মেনেছে দারিদ্রতা। সকল বাঁধা বিপত্তিকে পেছনে ফেলে গঙ্গাচড়া মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের এই দরিদ্র ছাত্রী এসএসসিতেও এনেছে সাফল্য।
রংপুর জেলার গঙ্গাচড়া উপজেলা মহিলা কলেজ পাড়ার ফাতেমার ফলাফল শুনে আনন্দিত প্রতিবেশি ও আত্বীয় স্বজনরা। তাকে দেখতে অনেকেই আসছে। কিন্তু ফাতেমা ও তার বাবা-মা’র মুখে নেই আনন্দের ছাপ। সারাদিন খেটে পারিশ্রমিক যা পায় তা দিয়ে সংসারের খরচ হয়না। এছারাও ঘরে রয়েছে অসুস্থ ছেলে। মেয়ের স্বপ্ন ও ভবিষ্যৎ কী হবে এ নিয়ে দুচিন্তায় রয়েছেন দিনমজুর বাবা। এখনো অনেকটা পথ পাড়ি দিতে হবে ভেবে সরকার, বিদ্যালয় ও কোচিং সেন্টারের সহযোগিতা উল্লেখ করে আব্দুল মালেক বলেন, মেয়ের এ ধারাবাহিক সাফল্যে আমি গর্বিত। কিন্তু তার ভবিষ্যৎ কোথায় ধমকে দাঁড়াবে আমার জানা নেই। দিনে ৩’শ টাকা কামাই করি। তাই দিয়ে সংসার চালাই।  মেয়ের স্বপ্ন ও ইচ্ছা কী ভাবে পূরণ করবো তা নিয়ে দুঃচিন্তায় আছি। মা আইরিন বেগম বলেন, ফাতেমা অনেক সময় না খেয়ে স্কুলে গিয়েছে। লেখাপড়ার ব্যাপারে তার কোন ক্লান্তি নেই। মেয়ের লেখাপড়ার জন্য অন্যের বাড়িতে কাজ করবেন জানিয়ে তিনি দেশের বিত্তবান ও শিক্ষানুরাগি ব্যাক্তি এবং প্রতিষ্ঠানের কাছে সহযোগিতা কামনা করেন।
ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে বেড়ে উঠা অদম্য মেধাবী ফাতেমা অশ্রæ শিক্ত নয়নে তার সাফল্যের পেছনে দরিদ্র বাবা-মা, শিক্ষক ও প্রতিবেশিদের অবদান স্বীকার করে বলেন, অতি কষ্টে বাবা ও মা লেখাপড়ার খরচ দিচ্ছেন। আমি ভাল কলেজে ভর্তি হতে চাই এবং ডাক্তার হয়ে মানুষের সেবা করতে চাই। তার এই স্বপ্ন পূরণে সকলের কাছে দোয়া ও সহযোগিতার অনুরোধ জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন