Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৯ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

রূপকল্প-২০৩০ ঘোষণার আগে খালেদা জিয়ার দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত ছিল -তোফায়েল আহমেদ

| প্রকাশের সময় : ১৭ মে, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বিএনপি ঘোষিত ভিশন২০৩০ সমালোচনা করে বলেছেন, বিএনপি তো ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০১ সালের নির্বাচনের আগে কোনো ভিশন দেয়নি। এখন কেন দিলো। এই রূপকল্প দেয়ার আগে তার (খালেদা জিয়ার) ২০০১ সালে ক্ষমতায়
থাকাকালীন যে অন্যায় করেছিলেন, সেজন্য দেশবাসির কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত ছিল। তিনি বলেন, ভাল জিনিস কেউ অনুসরণ করলে তাকে ধন্যবাদ দিতে হয়। তবে, হাওয়া ভবন থেকে হুকুম দিয়ে যারা ২১ আগস্টে গ্রেনেড হামালা চালায় তারা কোনো রূপকল্প বাস্তবায়ন করতে পারবে না। খালেদা জিয়া ভিশন-২০৩০ এ প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতার ভারসাম্যের যে প্রতিশ্রæতি দিয়েছেন তার সমালোচনা করে তিনি বলেন, এটা আমরা বিশ্বাস করি না।
গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে যুবলীগের আয়োজনে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবন ভিত্তিক সংবাদচিত্র প্রদর্শনী উদ্বোধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
তোফায়েল আহমেদ ১৯৮১ সালে ১৭ মে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের স্মৃতিচারণ করে বলেন, সেদিন আমরা সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার হাতে আওয়ামী লীগের পতাকা তুলে দিয়েছিলাম। তাই এখন তার দক্ষতা ও যোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে চলছে।
সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের চিত্র তুলে ধরে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আর্ন্তজাতিক বিশ্বে শেখ হাসিনা এখন মর্যাদাশীল নেত্রী। শেখ হাসিনা জাতির জনকের মতো লক্ষ্য নির্ধারণ করে কাজ করেন। তাই ২০০৮ সালে ভিশন ২০২১ ঘোষণা করেছিলেন। তিনি সেখানে বলেছিলেন-দেশকে কোথায় নিয়ে যেতে চান। বঙ্গবন্ধুও বাংলাদেশ স্বাধীন করার লক্ষ্যেই কাজ করেছিলেন।
তিনি বলেন, আমাদের বক্তব্যের মধ্যে তিনটা অংশ থাকা উচিত তা হলো- আমরা কি করেছি, কি করবো এবং বিএনপি জামায়াত ক্ষমতায় থাকতে কি দুনীর্তি, অন্যায় করেছে তা জনগণের সামনে তুলে ধরা। দলের অভ্যন্তরীণ কোনো সমস্যা থাকলে তা ঘরের মধ্যে আলোচনা করে সমাধান করা উচিত। কারণ কর্মীরাই তো আমাদের প্রাণ, সংগঠনের চালিকাশক্তি।
সভাপতির বক্তব্যে যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, যখন বুটের তলায় পিষ্ট হয় মানুষের অধিকার আর সংবাদপত্রের স্বাধীনতা, এরকম এক ঘোর অমানিশায় অধিকার হারা মানুষকে জাগাতে আসেন রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা। স্বৈরাচারী জিয়ার ভ্রæকুটি উপেক্ষা করে, জীবনের মায়া তুচ্ছ করে তিনি আসেন জাগরণের গান নিয়ে, আলোর প্রদীপ নিয়ে। আজ বাংলাদেশ বিশে^র বিস্ময়। বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। এই জাগরণের অবিসংবাদিত নেতা রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা।
যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, বাংলাদেশ ভয়াবহ মৌলবাদী সন্ত্রাসের উত্থান দেখেছে বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে। আবার তার শোচনীয় পরাজয় দেখেছে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। তাই বেগম খালেদা জিয়া রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার চিন্তা-চেতনা অনুসরন করে আজ নির্বাচনী ইশতিহার ঘোষণা করেছেন ভিশন-২০৩০ নামে।
ওমর ফারুক চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও  যুগ্ম-সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম শাহীনের সঞ্চালনায় এতে আরও বক্তব্য রাখেন, যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক মো. হারুনুর রশীদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য শহীদ সেরনিয়াবাত, মজিবুর রহমান চৌধুরী, আব্দুস সাত্তার মাসুদ, জাকির হোসেন খান, আনোয়ারুল ইসলাম, যুগ্ম-সম্পাদক মহিউদ্দিন আহমেদ মহি, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহা. বদিউল আলম, আসাদুল হক আসাদ, মহানগর যুবলীগ উত্তর সভাপতি মাইনুল হোসেন খান নিখিল, মহানগর দক্ষিণ সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট প্রমুখ নেতারা।
পরে বাণিজ্যমন্ত্রী  তোফায়েল আহমেদ যুবগবেষণা কেন্দ্র ও যুবজাগরণের প্রতিষ্ঠাতা যুবলীগ চেয়ারম্যানের সম্পাদনায় রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন আলোর পথযাত্রায় ‘জনগণের ক্ষমতায়ন’ বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন। শিল্পকলা একাডেমীর ৩নং গ্যালারীতে শেখ হাসিনার জীবন ভিত্তিক সংবাদচিত্র প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন। সংবাদচিত্র প্রদর্শনী আজ হতে ১৯ মে পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা হইতে বিকাল ৫টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তোফায়েল আহমেদ


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ