Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২৮ জুলাই ২০১৭, ১৩ শ্রাবণ, ১৪২৪, ০৩ যিলকদ ১৪৩৮ হিজরী

রাস্তা থেকে নো পার্কিং বোর্ড না সরালে ব্যবস্থা : আনিসুল হক

| প্রকাশের সময় : ২০ মে, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : আগামী সাত দিনের মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সড়কে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সামনে লাগানো নো পার্কিং বোর্ড সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি মেয়র আনিসুল হক। না হলে ডিএনসিসির পক্ষ থেকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।
গতকাল শুক্রবার বুয়েট কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে ইউআরপি ডে ২০১৭ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বুয়েটের নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের শিক্ষার্থীদের সংগঠন ইউএসএবি দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
ক্ষোভ প্রকাশ করে আনিসুল হক বলেন, সেদিন দেখি জি-৪ নামে একটি সিকিউরিটি প্রতিষ্ঠান নো পার্কিং লিখে রাস্তার ওপর সাইনবোর্ড লাগিয়ে দিয়েছে। এটা কি তার বাবার রাস্তা?
তিনি বলেন, ঢাকা শহরের পাকলিকের রাস্তার ওপরে আপনাদের নো পার্কিং দেখতে চাই না। জাস্ট ওয়ান উইক টার্ন। জি-৪ হোন আর যাই হোন, সাধারণ মানুষের রাস্তা সাধারণেরই থাকবে।
মেয়র বলেন, একটি সুন্দর নগর তৈরি করার স্বপ্ন নিয়ে মেয়র হয়েছি। অনেক বড় বড় চ্যালেঞ্জ নিয়ে মেয়রকে কাজ করতে হচ্ছে। তিন মাস আগেও বিভিন্ন দেশের দূতাবাসের সামনের ফুটপাত দিয়ে কেউ চলতে পারত না। এখন সেসব ফুটপাত দিয়ে সাধারণ মানুষ মাথা উঁচু করে হাঁটতে পারছে। গরিব হকারদের ফুটপাত থেকে সরিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি অনেক ক্ষমতাবান কোটিপতিদের দখল থেকেও ফুটপাত মুক্ত করেছি। এক ইঞ্চি জায়গাও ছাড় দেওয়া হচ্ছে না। আর গুণগত মানের বিষয়ে আমরা জিরো টলারেন্স নিয়ে কাজ করছি। ফলে কদিন পরেই গুলশান এভিনিউ বিশ্বের যে কোনো উন্নত দেশের এভিনিউয়ের সমপর্যায়ে উন্নীত হবে। তিনি বলেন, ২০১৯ সালের জুন মাসের মধ্যে ঢাকা উত্তরের প্রতিটি রাস্তা, ফুটপাত ও নর্দমা নির্মাণ ও সংস্কার, রাস্তার সৌন্দর্যবর্ধন ও সবুজায়ন, এলইডি সড়কবাতি এবং সিসি ক্যামেরা স্থাপনের কাজ শেষ করার লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি।
এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, একটি স্বপ্নের শহর বিনির্মাণের পরিকল্পনা দেওয়ার দায়িত্ব নগর পরিকল্পনাবিদদের। বাংলাদেশকে সুন্দর করতেও তারাই সবচেয়ে বেশি অবদান রাখতে পারেন।
নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের প্রধান ড. আফসানা হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধন পর্বে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ভিসি ড. গোলাম রহমান বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব প্ল্যানার্সের সভাপতি পরিকল্পনাবিদ ড. একেএম আবুল কালাম উপস্থিত ছিলেন। এ সময় নগর শৈলী নামে ইউএসএবির বার্ষিক প্রতিবেদনের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনার শিক্ষার্থীরা এক পোস্টার প্রদর্শনীর আয়োজন করে।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।