Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২৭ মে ২০১৭, ১৩ জ্যৈষ্ঠ , ১৪২৪, ৩০ শাবান ১৪৩৮ হিজরী

রামগঞ্জে কোটি টাকার টেন্ডার ভাগ-বাটোয়ারা

ভুয়া প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি উদ্যোগে নির্মিত প্রকল্পের নামে বরাদ্দ

| প্রকাশের সময় : ২০ মে, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ল²ীপুর জেলা সংবাদদাতা : ল²ীপুরের রামগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় থেকে চলিত অর্থ বছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীর (এডিবি) আওতায় ভূয়া প্রতিষ্ঠান, ব্যক্তি বা যৌথ উদ্যোগে নির্মিত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং এডিবির পূর্বের অর্থ বছরের সমাপ্ত কাজকে নতুন করে তালিকাভূক্ত করে নামে বেনামে বরাদ্ধ দিয়ে ১কোটি ২০ লাখ টাকার কাজ সিন্ডিগেটের মাধ্যমে ভাগ-বাটোয়ারা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যোগসাজসে রাজনৈতিক ব্যক্তি ও জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে কিছু ভূয়া অস্তিত্বহীন প্রকল্প, পূর্বের অর্থ বছরের সমাপ্ত কাজকে নতুন করে তালিকা ভূক্ত করে প্রকল্প তৈরী করে এমনকি ব্যক্তি বা যৌথ উদ্যোগে নির্মিত ঘাটলা, গভিরনলকুপ, গাইডওয়াল, বাড়ির রাস্তা সলিং, ওয়াশরুমসহ বিভিন্ন প্রকল্প তালিকাভুক্ত করে নামে বেনামে বিভিন্ন প্রকল্প তৈরী করে রামগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী কার্যালয় কর্তৃক চলতি মাসে কয়েকটি পত্রিকায় দেওয়া দরপত্র আহব্বান করা হয়। (দরপত্র নং-০৪/২০১৬-২০১৭ এবং ০২/২০১৬-২০১৭।)
বিজ্ঞপ্তি মোতাবেক উপজেলা নির্বাহী অফিস, জেলা প্রকৌশলী ও উপজেলা প্রকৌশলীর দপ্তরে দরপত্র বিক্রয় করার কথা থাকলেও অনেক ঠিকাদার দরপত্র ক্রয় করতে পারেনি। কয়েকজন ঠিকাদার জানান দরপত্র ক্রয় করতে গেলে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তারা দরপত্র নিতে হলে উপজেলা চেয়ারম্যান আকম রুহুল আমিনের সাথে আলাপ করতে অনুরোধ করেন। আ’লীগের দলীয় কয়েকজন নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, একটি দরপত্রে (নং ০২/২০১৬-২০১৭ইং) ইউএন ও উপজেলা চেয়ারম্যানের বাসভবন ও অফিস সংস্কার নামে ২০ লাখ টাকায় বরাদ্ধ দেওয়া হয়। এডিভির ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরের বরাদ্ধে ও ওই প্রতিষ্ঠান গুলো সংস্কার করা হয়েছে। এছাড়া অন্য দরপত্রে (দরপত্র নং ০৪/২০১৬-২০১৭) বিভিণœ প্যাকেজে স্বজণপ্রীতি,অনিয়ম ও দুনীর্তি মধ্যে দিয়ে ভাগ বাটোয়ারা হয়েছে।
পত্রিকায় দেওয়া দরপত্র ও স্থানীয় সূত্র জানা যায়, ইছাপুর নামে কোন উচ্চ বিদ্যালয় না থাকলেও  ইছাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের কম্পিউটার ল্যাব রুম নির্মাণে  ৬ লাখ ৪৩ হাজার ৮ শত টাকা, শোশালিয়া নামে কোন বাজার না থাকলেও শোশালিয়া বাজারের ওয়াসরুম নির্মাণে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা, ভাটরা ইউনিয়নের  নান্দিয়ারা আবদুর রহিম ব্যাপারী বাড়ির রাস্তার গাইডওয়াল ২০১৫ সালের অর্থ বছরে এডিপি বরাদ্ধ থেকে করা হলে ও চলতি অর্থ বছর উক্ত প্রকলেল্পর জন্য ১ লাখ টাকা,  ভোলাকোট ইউনিয়নে তিন বছর পূর্বে মসজিদ কমিটির উদ্যোগে নির্মিত আথকরা বাজারের মসজিদের ঘাটলার নামে ১ লাখ টাকা, দরবেশপুর ইউনিয়নের আলীপুর আঠিয়া বাড়ির পূর্ব পাশে ৫ বছর পূর্বে নির্মিত কালভার্টের নামে ১ লাখ টাকা, বিগত বছর করা আইয়েনগর পাচ হাজারী বাড়ির ঘাটলা নির্মাণে ১ লাখ টাকা, শাকতলা বিল্লালের বাড়ির পুকুর ঘাটলা নির্মানে ১ লাখ টাকা, দেহলা জাকিরের ভুইয়া বাড়ির নামে কোন বাড়ি না থাকলেও  জাকির ভূইয়া বাড়ির পুকুরের গাইড ওয়াল নির্মানের নামে ১ লাখ টাকা, চন্ডিপুর ইউনিয়নের রফিক মাষ্টারের বাড়ির পুকুরের গাইড ওয়াল নির্মানে ১ লাখ টাকা,  পূর্বে নির্মান করা ১নং কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবদুল করিম মাষ্টারের বাড়ির রাস্তা সলিং করার নামে ১ লাখ টাকা বরাদ্ধ সহ অস্থিত্বহীন, ভূয়া এবং বিগত অর্থ বছরে এলজিএসপি, এডিপিসহ বিভিন্ন কোটায়  সমাপ্ত  কাজকে  চলতি বছর  তালিকা ভূক্ত করে ভাগ-ভটোয়ারা করে আত্বসাৎ করার  লক্ষ্যে  এবং চুক্তি ভিত্তিক  অস্থাভাজন নেতাকর্মী ও ঠিকাদারকে কাজ দেওয়া হয়।
উপজেলা প্রকৌশলীর অনুপকুমার বড়–য়া জানায়, এডিবির আওতায় গত অর্থ বছরে রামগঞ্জে প্রায় দুই কোটি টাকার কাজ হলেও বরাদ্ধ দেওয়া হয়েছিল এক কোটি টাকা, পূর্বের কাজের বরাদ্ধ এ বছর দেওয়া হয়েছে। ইউএন ও উপজেলা চেয়ারম্যানের বাসভবন ও অফিস সংস্কারের জন্য বরাদ্ধ উপর থেকে দেওয়া হয়েছে, বরাদ্ধকৃত টাকা খরচ করতে বাধা নেই। ভূয়া প্রতিষ্ঠান, ব্যাক্তি বা যৌথ উদ্যোগে নির্মিত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নামে এডিবির বরাদ্ধের বিষয়ে তিনি বলেন, এ ধরনের বিষয়ে অভিযোগ আসলে ইভোলেশন কমিটির সদস্যরা ইভোলেশন কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করবেন। তিনি বিষয়গুলি উপজেলা চেয়ারম্যানকে অবহিত করেন। উপজেলা উন্নয়ন কমিটির মিটিংএ বিষয়গুলি নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে। এ বিষয়ে জানতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মোবাইলে ফোন করলে তিনি মোবাইল রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর