Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ জুলাই ২০১৭, ০৮ শ্রাবণ, ১৪২৪, ২৮ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী

ভিশন ২০৩০ আগামী প্রজন্মের ঐতিহাসিক দলিল : ড.মোশাররফ

| প্রকাশের সময় : ২০ মে, ২০১৭, ১২:০০ এএম

দাউদকান্দি উপজেলা সংবাদদাতা : ‘ভিশন ২০৩০ আগামী প্রজন্মের জন্য জবাবদিহিমূলক, সমৃদ্ধ ও উন্নত বাংলাদেশ গড়ার এক ঐতিহাসিক দলিল’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সিনিয়র সদস্য এবং মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ড.খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, এই ভিশন জনগণের সাথে সম্পাদিত একটি চুক্তি। আমাদের ভিশন বাস্তবায়নের মাধ্যমে মানুষের আশা আকাক্সক্ষার প্রতিফলন ঘটবে এবং দেশে জবাবদিহিতার রাজনীতির সূচনা হবে। ২০১৪ সাল থেকে কোন নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি, তার প্রতিবাদে ভোটাধিকার আদায়ের জন্য নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে শরীক হতে সকলের প্রতি উদাত্ত আহবান জানিয়েছেন বিএনপি’র এই নীতি নির্ধারক নেতা।
ড. মোশাররফ গতকাল কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার কানাচোয়া গ্রামে একটি সামাজিক অনুষ্ঠানে যাবার পথে নৈয়ার বাজারে এক বিশাল কর্মী সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে এই সব কথা বলেন। এছাড়াও তিনি পেন্নাই, গৌরীপুর, বারিকান্দি, নোয়াগাঁও, বিটেশ্বর, ভাংতিরপাড়, কাউয়াদী ও দৌলতপুরে সমবেত স্বত:স্ফূর্ত দলীয় নেতাকর্মী ও জনগণের উদ্দেশে বক্তৃতা করেন। প্রতিটি স্পটে বিএনপি নেতাকর্মী ও সমর্থকরা ঢোলবাদ্য বাঁজিয়ে প্রিয় নেতা মোশাররফকে বিপুলভাবে ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। এসময় বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী ড. খন্দকার মারুফ হোসেনও বক্তৃতা করেন।
ড. মোশাররফ বলেন, ২০১৪ সালের পর থেকে বর্তমান সরকারের অধীনে কোন নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়নি। তারা জনগণের ভোটাধিকার হরণ করেছে। তাই জনগণকে সাথে নিয়ে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার ব্যবস্থা আদায় করবো। সেই সরকারের অধীনে বিএনপি অবশ্যই নির্বাচনে অংশ নেবে। জনগণের ভোটে দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে সরকার গঠন করবো এবং ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়নের মাধ্যমে আগামী প্রজন্মের জন্য সমৃদ্ধ ও উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তুলবো। দেশে জবাবদিহিতার রাজনীতির সূচনা হবে। আর এতে দেশের মানুষের আশা আকাক্সক্ষার প্রতিফলন ঘটবে। মানুষ ভাল থাকবে। সকল ক্ষেত্রে শৃংখলা ফিরে আসবে।
তিনি বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ‘ভিশন ২০৩০’ ঘোষণার পর ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের মধ্যে চরম অস্বস্তি বিরাজ করছে। বিএনপি’র ভিশন নিয়ে আ.লীগের নানা মনগড়া মন্তব্য জনগণ প্রত্যাখান করেছে। দেশের মানুষ এই ভিশনকে সাধুবাদ জানিয়ে গ্রহণ করেছে। এই সময় উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ড.খন্দকার মারুফ হোসেন, বিএনপি নেতা দেলোয়ার হোসেন মিয়াজী, খন্দকার মাহবুব হোসেন, মিঞা মো.শফিকুল ইসলাম, প্রমূখ।
বিকেলে ড.খন্দকার মোশাররফ হোসেন তিতাস উপজেলা সদরে তার নিজ বাসভবনে একটি মিলাদ মাহফিলে যোগ দেন। মিলাদে বিএনপি নেতা ড.খন্দকার মারুফ হোসেন, খন্দকার মাহবুব হোসেন, মো. সাদেক হোসেন, চেয়ারম্যান এমদাদুল হক, আলী হোসেন মোল্লা, ছাদির হোসেন ও আদিলুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।