Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ১৬ জুন ২০১৯, ২ আষাঢ় ১৪২৬, ১২ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

জুলাই থেকে নভেম্বর রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ সিইসি

জাতীয় নির্বাচনের রোডম্যাপ

| প্রকাশের সময় : ২৪ মে, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : আগামী একাদশ জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে দেশের নিবন্ধিত সকল রাজনৈতিক দল, সুশীল সমাজ, গণমাধ্যম,পর্যবেক্ষকসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে চলতি বছরের জুলাই থেকে সংলাপ করবে নির্বাচন কমিশন। এই সংলাপ চলবে চলতি বছরের নভেম্বর পর্যন্ত। এ রকম সাতটি বিষয় সামনে রেখে নির্বাচনের খসড়া রোডম্যাপ ঘোষণা করেছে কমিশন। গতকাল মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশনের বৈঠক শেষে এই খসড়া রোডম্যাপ ঘোষণার কথা জানান প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) মো. নুরুল হুদা।
সিইসি বলেন, খসড়া রোডম্যাপে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএমের বিষয়টি রাখা হয়নি। রাজনৈতিক দলগুলো না চাইলে ইভিএম ব্যবহার করা হবে না। তবে সংলাপে এই ইভিএমের বিষয়টি সামনে আনা হবে। তখন যদি রাজনৈতিক দলগুলো মনে করে, এটা (ইভিএম) দরকার, তাহলে তা ব্যবহার করা হবে নইলে না এটা পরিষ্কার। সংবিধান অনুযায়ী সরকারের মেয়াদ শেষ হওয়ার ৯০ দিনের আগে নির্বাচন হবে ।একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রোডম্যাপ প্রায় এগিয়ে নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। রাজনৈতিক দল, সুশীল সমাজ, গণমাধ্যম, পর্যবেক্ষকসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে চলতি বছরের জুলাই থেকে নভেম্বরের মধ্যে সংলাপ করবে নির্বাচন কমিশন। কে এম নূরুল হুদা বলেন, জাতীয় নির্বাচনের আগে নিবন্ধিত দলগুলোসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে একবাই সংলাপ করব। সীমানা পুন:নিধারণ, আইন সংস্কার, ভোটার তালিকা হালনাগাদ, নতুন নিবন্ধন, ভোটকেন্দ্র ইসির সক্ষমতা বাড়ানো ও সবার জন্যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি-এ সাত বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারির আগের ৯০ দিনের মধ্যে একাদশ সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সিইসি বলেন, যথাসময়ে তফসিল ঘোষণা করা হবে। ডিসেম্বরের শেষার্ধ্ব থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত  ভোটের জন্য উপযুক্ত সময়। আমরা নিজেরা (কমিশন) বসে ভোটের তারিখ দেব। প্রস্তাবিত রোডম্যাপ নিয়ে মঙ্গলবার প্রথমদফা আলোচনা সেরেছেন বলে জানান নূরুল হুদা। আমরা খসড়া নিয়ে বসেছি চূড়ান্ত হতে আরও ১৫-২০ দিন সময় লাগবে। এরপরই আমরা প্রস্তাবগুলো নিয়ে সবার সঙ্গে আলোচনা করব। বিএনপি এরই মধ্যে ইভিএমে আপত্তি জানিয়ে চিঠি দিয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে নূরুল হুদা বলেন, ইভিএমকে আমরা সামনে রাখতে চাই। এর প্রযুক্তিগত বিষয়গুলো সবার কাছে উপস্থাপন করা হবে। প্রযুক্তি নিয়ে সবাই একমত হলে তা ব্যবহারের সম্পূর্ণ প্রস্তুতি থাকবে আমাদের।তবে রাজনৈতিক দলগুলো একমত না হলে জোর করে ইভিএম ব্যবহার করা হবে না। সংবাদ সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম, বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী, ইসির অতিরিক্ত সচিব মোখলেসুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সিইসি


আরও
আরও পড়ুন