Inqilab Logo

রোববার, ২২ মে ২০২২, ০৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আবারো পক্ষপাতিত্বের শিকার ইনকিলাব

| প্রকাশের সময় : ২৮ মে, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস রিপোর্টার : ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) মিডিয়া কাপ হ্যান্ডবল টুর্নামেন্টে দৈনিক ইনকিলাবের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্ব যেন নিয়মে পরিণত হয়েছে। গত বছর এই টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনালে জিটিভির বিপক্ষে অনেকটা জোর করেই হারানো হয়েছিলো ইনকিলাবকে। এবারও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি। ডিআরইউ মিডিয়া হ্যান্ডবলের এবারের আসরে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলো। গতকাল শহীদ (ক্যাপ্টেন) এম মনসুর আলী জাতীয় হ্যান্ডবল স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের প্রথম সেমিফাইনালে আরটিভি’র বিপক্ষে ম্যাচের বেশীর ভাগ সময় ইনকিলাবের বিরুদ্ধেই বাঁশি বাঁজিয়েছেন রেফারি দ্বয়। শুধু তাই নয়, ম্যাচ যখন ২-২ গোলে অমিমাংসিতভাবে শেষ হয় তখন টাইব্রেকারেও রেফারিরা আরটিভি’র পক্ষ নেন। টাইব্রেকারে দু’দল প্রথমে তিনটি করে থ্রো করলেও কেউই গোল পায়নি। পরে আরো দু’টি করে থ্রো করার সুযোগ পায় দু’দল। ইনকিলাব দুই থ্রোতে গোল করতে ব্যর্থ হয়। আরটিভি প্রথম থ্রো’তে ব্যর্থ হলেও দ্বিতীয় থ্রো থেকে জয়সূচক গোলটি আদায় করে নেয়। কিন্তু বিধি সম্মতভাবে থ্রো হয়নি বলে এ গোলটি বাতিল করতে রেফারিকে অনুরোধ জানান ইনকিলাবের খেলোয়াড়রা। নিয়ম অনুযায়ী টাইব্রেকার মারার সময় ওই খেলোয়াড়ের এক’পা মাটিতে থাকার কথা। কিন্তু আরটিভি’র অধিনায়ক রাজিব খান থ্রো করার সময় তার দু’পা মাটি থেকে কিছুটা উপরে উঠে যায়। যা লক্ষ্য করে রেফারির দৃষ্টি আকর্ষণ করেন ইনকিলাবের খেলোয়াড়রা। কিন্তু রেফারি তাদের কথায় কর্ণপাত না করে আরটিভি’র পক্ষেই বাঁশি বাঁজান। ফলে মাঠে কিছুটা বিশৃ্খংলার সৃষ্টি হয়। ইনকিলাবের খেলোয়াড়রা ম্যাচ শেষে রেফারিদের সঙ্গে তর্ক-বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন।
টাইব্রেকারে করা আরটিভির গোলটি নিয়ে সংশয় থাকায় রেফারিদের কাছে ভিডিও ফুটেজ দেখে সিদ্ধান্ত দেয়ার অনুরোধ জানানো হয়। এ সময় একজন রেফারি সাংবাদিকদের নিয়ে অশালীন মন্তব্য করেন। তারপরও ইনকিলাবের খেলোয়াড়রা পুন:রায় ভিডিও ফুটেজ দেখানোর অনুরোধ করতে থাকলে এক পর্যায়ে দু’পক্ষের মধ্যে উচ্চবাক্য বিনিময় হয়। এক পর্যায়ে তারা যখন মাঠ থেকে বের হতে যান তখনই ঘটে অনাকাঙ্খিত ঘটনা। দু’দলের খেলোয়াড়রাই হাতা-হাতিতে লিপ্ত হন। তবে সিনিয়রদের হস্তক্ষেপে কিছু সময়ের মধ্যেই পরিস্থিতি শান্ত হয়ে যায়। ম্যাচের ফলাফল মেনে নিয়ে প্রতিপক্ষকে অভিনন্দন জানিয়ে মাঠ ত্যাগ করে টিম ইনকিলাব। ফলে টাইব্রেকারে ৩-২ গোলে জিতে আরটিভি ফাইনাল নিশ্চিত করে। তবে ম্যাচ শেষে ডিআরইউ’র ক্রীড়া সম্পাদক মজিবুর রহমান এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে টিম ইনকিলাবের বিরুদ্ধে যে মিথ্যাচার করেছেন তা অত্যান্ত দুঃখজনক। তার বিবৃতিতে তিনি এক তরফাভাবে বিশৃঙ্খলার জন্য ইনকিলাবের খেলোয়াড়দেরই দায়ী করেছেন।
একই মাঠে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে এসএটিভি টাইব্রেকারে ৫-৪ গোলে হারায় জাগো নিউজ২৪ডটকমকে। পরে ফাইনালে আরটিভি ৯-৪ গোলে এসএ টিভির বিপক্ষে জয় পেয়ে শিরোপা নিশ্চিত করে। ফাইনাল শেষে প্রধান অতিথি থেকে বিজয়ী ও বিজিত দলের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করেন স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা এমপি। চ্যাম্পিয়ন দল ট্রফি ছাড়াও ৩০ হাজার টাকা প্রাইজমানি পায়। রানার্সআপদের দেয়া হয় ট্রফি ও ২০ হাজার টাকা প্রাইজমানি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আবারো

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন