Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ২১ মে ২০১৯, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৫ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

কেন্দ্রীয় সরকারের বিধির জেরে তুমুল বিতর্ক গরু নিয়ে

দোষারোপের ধূম্রজালে ভারতে গরু-রাজনীতি

| প্রকাশের সময় : ২ জুন, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের একটি বিধির জেরে এখন তুমুল বিতর্ক গরু নিয়ে! রাজনীতি থেকে ব্যবসা, আইন-শৃঙ্খলা থেকে কেন্দ্র-রাজ্য সম্পর্ক, সংবিধান থেকে বিচারÑ সব  যেন দোষারোপের ধূম্রজালে জড়িয়ে গেছে গরুকে কেন্দ্র করে। মাদ্রাজ হাইকোর্টে গত বুধবার চার সপ্তাহের স্থগিতাদেশ জারি করে নরেন্দ্র মোদী সরকারের কাছে জানতে চেয়েছে, কেন তাদের জারি করা গো-বিধি বাতিল করা হবে না। আর গত বৃহস্পতিবার কেরালা হাইকোর্ট জানিয়ে দিয়েছে, কেন্দ্রের জারি করা গবাদি পশু সংক্রান্ত বিধিতে কোথাও বলা নেই, গো-হত্যা বা গো গোশত খাওয়া নিষিদ্ধ। মেলা বা হাটে না কাটলেই হল। কাটার জন্য গরু বাড়ি থেকে বিক্রি করা যেতেই পারে। এক এক রাজ্যের হাইকোর্ট এভাবে এক-এক রকম নির্দেশ দেয়ায় মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি বেড়েছে  বৈ কমেনি। কংগ্রেস, বাম, তৃণমূল, ডিএমকে, প্রায় সব বিরোধী দলই কেন্দ্রের ওই বিধির বিরোধিতায় মুখর। কংগ্রেসের মুখপাত্র রাজীব শুক্লার বক্তব্য, বরাবর তারা গো-হত্যার বিরোধিতা করে এসেছে। কিন্তু সব ক্ষেত্রে ব্যর্থ হয়ে বিজেপি এখন গরু ও রাম মন্দির নিয়ে রাজনীতি করছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই জানিয়েছেন, তার সরকার কেন্দ্রের গো-বিধি মানবে না। এক সুরে সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরিও গত বৃহস্পতিবার স্মরণ করিয়ে দেন, গবাদি পশু সংবিধানে রাজ্যের তালিকাভুক্ত। একে ঘিরে বাণিজ্যের বিষয়টিও রয়েছে কেন্দ্র ও রাজ্যের যৌথ তালিকায়। ফলে গবাদি পশু কেনাবেচা নিয়ে কেন্দ্র যে বিধি জারি করেছে, তা ঠিক নয়। সিপিএম নেত্রী বৃন্দা কারাটের সংযোজন, হিমাচল প্রদেশ হাইকোর্ট গো-হত্যা নিষিদ্ধ করে যে রায় দিয়েছিল, তার উপরে স্থগিতাদেশ রয়েছে সুপ্রিম কোর্টের। গরু কেনা-বেচার উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করে মোদী সরকার বাঁকা পথে আইনের অপব্যহার করছে। পশ্চিম বর্ধমানের রানিগঞ্জে গত বুধবার দলের এক কর্মীসভায় বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ পাল্টা বলেন, গরু নিয়ে মমতা রাজনীতি করছেন। গরু-কাহনে নয়া মোড় এনেছেন মেঘালয়ের ভারপ্রাপ্ত বিজেপি নেতা নলীন কোহলি।  এবিপি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন