Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৮ মাঘ ১৪২৭, ০৮ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই অব্যাহত থাকবে

জলবায়ু চুক্তি : ট্রাম্প প্রশাসনকে পাশ কাটিয়ে বিকল্প উদ্যোগের পরিকল্পনা

| প্রকাশের সময় : ৪ জুন, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্যারিসের জলবায়ু চুক্তি বর্জনের ঘোষণায় হতাশ ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। তবে বিকল্প উদ্যোগ নিতে মনোযোগী হয়েছে সংস্থাটি। ট্রাম্পের চুক্তি বর্জনের ঘোষণা সত্তে¡ও অঙ্গরাজ্যসহ সে দেশের বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউরোপীয় ওই জোট। চীনা প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াংয়ের সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্ক এসব কথা বলেন। গত বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসের রোজ গার্ডেনে দেওয়া এক ভাষণে প্যারিস চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সরে আসার ঘোষণা দিয়ে ট্রাম্প দাবি করেন, এ চুক্তির ফলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধি বাধাগ্রস্ত হয়েছে, আর্থিক লোকসানের মুখোমুখি হয়ে নিঃস্ব হতে চলেছে দেশটি। প্রতিক্রিয়ায় ব্রাসেলসে ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্ক এবং চীনা প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্র থাকুক, বা না থাকুক জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই অব্যাহত থাকবে। টাস্ক বলেন, আটলান্টিকের দুই পাড়ের অধিবাসীদের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে নতুন মার্কিন প্রশাসনের সিদ্ধান্ত হতাশাজনক। তবে তা সত্তে¡ও আমরা মার্কিন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির সঙ্গে জলবায়ু ইস্যুতে কাজ করে যাব। তিনি আরও বলেন, চীন এবং ইউরোপ ভবিষ্যত প্রজন্ম এবং পুরো বিশ্বের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছে। দরিদ্র দেশগুলোর কার্বন নিঃসরণ কমাতে ২০২০ সালের মধ্যে প্রতিবছর এক লাখ কোটি ডলারের অনুদান সংগ্রহেরও তাগিদ দিয়েছেন কাউন্সিল প্রেসিডেন্ট। আরও দাবি করেন, ওই চুক্তির ফলে যুক্তরাষ্ট্রের জিডিপি প্রতিবছর ৩০ হাজার কোটি ডলার হারাচ্ছে। সেই সঙ্গে প্রায় ৬৫ লাখ মার্কিন জনগণ কর্মসংস্থান হারাচ্ছে। এর জায়গা চীন ও ভারত দখল করে নিচ্ছে বলেও জানান ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নতুন একটি চুক্তি নিয়ে আলোচনার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তবে ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্ত নাকচ করে দিয়েছে ইইউ। বিভিন্ন দেশের নেতারাসহ যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি অঙ্গরাজ্যের গভর্নর এবং ব্যবসায়ী নেতারাও ট্রাম্পের তীব্র সমালোচনা করেছেন। তারা প্যারিস জলবায়ু চুক্তিকেও সমর্থন করার ঘোষণা দিয়েছেন। ঐতিহাসিক প্যারিস চুক্তি অনুযায়ী, দু’বছর আগে বৈশ্বিক গড় তাপমাত্রা বৃদ্ধির পরিমাণ দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস কমিয়ে আনার সিদ্ধান্ত হয়। আর সে মোতাবেক, বিশ্বের ১৯৫টি দেশের বাতাসে কার্বন দূষণের মাত্রা কমাবার বিষয়ে ঐকমত্যে পৌঁছায় শিল্পোন্নত সাত দেশ। প্যারিস চুক্তিতে ১৮৭টি দেশ স্বাক্ষর করেছিল। স্বাক্ষর না করা দুটি দেশ হলো সিরিয়া ও নিকারাগুয়া। তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এতে স্বাক্ষর করেছিলেন। তবে এবার তা থেকে সরে আসার ঘোষণা দিলেন ট্রাম্প। দ্য গার্ডিয়ান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ