Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

মাধবপুরে লক্ষাধিক মানুষ চিকিৎসাসেবা বঞ্চিত

| প্রকাশের সময় : ৯ জুন, ২০১৭, ১২:০০ এএম


মাধবপুর (হবিগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা : হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র এখন নানা সমস্যায় জর্জরিত। পুরাতন জরাজীর্ণ ঝুঁকিপূর্ণ ফাটল ভবনে ২ জন পরিদর্শিকা কোনো রকমে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে যাচ্ছে। এমবিবিএস ডাক্তার নিয়োগ থাকলেও তিনি সেখানে যান না। স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ এখানে এমবিবিএস ডাক্তার কাগজে পত্রে রয়েছে কিন্তু ডাক্তার কোনো সময় এ হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে দেখা যায় না। হাসপাতাল ভবনটিতে বিদ্যুৎ ও পানির ব্যবস্থা না থাকায় চিকিৎসা নিতে আসা রোগিদের নানা ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। চৌমুহনী স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রে এমবিবিএস ডাক্তারসহ ৬ টি পদ থাকলেও মেডিকেল অ্যাসিসটেন্টসহ ৪টি পদই খালি রয়েছে। এমবিবিএস ডাক্তার ও মেডিকেল অ্যাসিসটেন্ট না থাকায় এ হাসপাতালে আসা রোগীদের চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ৫২ টি গ্রামের প্রায় লক্ষাধিক মানুষ। সামান্য রোগে আক্রান্ত হলেও এ এলাকার জনগণকে প্রায় ১৫ কিলোমিটার দূরে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে গিয়ে চিকিৎসা নিতে হয়। এছাড়া অযতেœ অবহেলায় পুরাতন জরাজীর্ণ স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি এখন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। এখানে শুধু পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মীরাই কিছু সেবা দিচ্ছেন। দীর্ঘদিন ধরে এলাকাবাসী হাসপাতালটি সংস্কার ও ডাক্তার নিয়মিত করার জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি করলেও কেউ সাড়া দিচ্ছে না। চৌমুহনী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আপন মিয়া বলেন, জরাজীর্ণ হাসপাতাল ভবনটি সংস্কার করে এখানে ডাক্তারদের উপস্থিতি নিয়মিত হলে প্রায় লক্ষাধিক মানুষ চিকিৎসা সুবিধা পেত। এ ব্যাপারে কয়েকবার কর্তৃপক্ষ স্বাস্থ্য বিভাগকে অবহিত করেছে। জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমিও বহু আবেদন নিবেদন করেছি কিন্তু কোনো কাজ হচ্ছে না। উপজেলা পরিবার ও পরিল্পনা কর্মকর্তা আকিব উদ্দিন বলেন, হাসপাতালটি সংস্কাররের জন্যে গত অর্থবছরে এইচ ই ডি নামের একটি দাতা সংস্থার পক্ষ থকে ৩ লক্ষ ৮০ হাজার টাকার বরাদ্দ এসেছিল কিন্তুু প্রশাসনিক জটিলতার কারণে এ টাকা ফেরত গেছে এবং এর পূর্বে দাতা সংস্থা মা মণি প্রকল্প থেকে হাসপাতাল ভবনটি সংস্কার করার উদ্দ্যোগ নিয়েছিল কিন্তুু দাতা সংস্থাটির সীমাবদ্ধতার কারণে সংস্কার কাজটি করা হয়নি। এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ ইনতিয়াজ আল মামুনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, চৌমুহনী স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটি সংস্কার করার জন্য কর্তৃপক্ষের নিকট বরাদ্দ চেয়ে চিঠি দিয়েছি। প্রত্যন্তঅঞ্চলে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগেরও জন্যও কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ