Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৭, ০৬ কার্তিক ১৪২৪, ৩০ মুহাররম ১৪৩৯ হিজরী

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

| প্রকাশের সময় : ১৬ জুন, ২০১৭, ১২:০০ এএম

প্র:- জামাআত হতে হলে কয়জনের উপস্থিতি দরকার?
উ:- পাঁচ ওয়াক্ত ফরয নামাযে ইমাম ব্যতীত দুইজন এবং জুমআর নামাযে ইমাম ব্যতীত অন্ততঃ তিনজন উপস্থিত হলে প্রকৃত অর্থে জামাআতের হুকুম প্রযোজ্য হবে।
প্র:- জামাআত কি শুধু মসজিদেই কায়েম হবে নাকি বাড়ী-ঘরে করলেও আদায় হবে?
উ:- বাড়ী-ঘরে করলেও আদায় হবে। তবে এক্ষেত্রে মসজিদের অতিরিক্ত সওয়াব মিলবে না।
প্র:- মসজিদে নামায পড়ার অতিরিক্ত সওয়াবের কথা বিস্তারিত জানতে চাই।
উ:- মহল্লার মসজিদে ঘরের নামাযের চেয়ে পঁচিশ গুণ বেশি সওয়াব। আর মহল্লার মসজিদের চেয়ে জামে মসজিদে পাঁচশ গুণ বেশি সওয়াব, এমনিভাবে বায়তুল মোকাদ্দাস মসজিদে পঁচিশ হাজার নামাযের সওয়াব, মসজিদে নববীতে পঞ্চাশ হাজার নামাযের সওয়াব এবং বায়তুল্লাহ শরীফে এক লাখ নামাযের সওয়াব পাওয়া যাবে। (মিশকাত)
প্র:- যদি মহল্লার মসজিদে পাঁচ ওয়াক্ত জামাআত না হয় তবে কি অন্য মসজিদে গিয়ে জামাআতে শামিল হবে, না নিজের মসজিদেই একা পড়ে ফেলবে?
উ:- এমতাবস্থায় মহল্লাবাসীর জন্যে অন্য মসজিদে যাওয়া ঠিক হবে না বরং নিজের মসজিদের হক আদায়ের জন্যে যথাসময় আযান দিয়ে লোকজনের জন্যে অপেক্ষা করতে হবে; এবং কেউ না এলে একা একাই নামায পড়বে। এই একা পড়াটাই অন্য মসজিদে জামাআতে পড়ার সমান মর্যাদা পাবে। (দুররে মুখতার)
-মুফতী ওয়ালীয়ুর রহমান খান

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।