Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৭, ০৬ কার্তিক ১৪২৪, ৩০ মুহাররম ১৪৩৯ হিজরী

মির্জা ফখরুলের গাড়িবহরে হামলা, রক্তাক্ত মহাসচিব ও আমীর খসরু

বিশেষ সংবাদদাতা, চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৮ জুন, ২০১৭, ১২:০১ পিএম | আপডেট : ১২:২৬ পিএম, ১৮ জুন, ২০১৭

বিশেষ সংবাদদাতা, চট্টগ্রাম ব্যুরো : বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়িবহরে আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হামলা করা হয়েছে। হামলায় বিএনপি মহাসচিব ফখরুল ভাঙা কাচের আঘাতে আহত হয়েছেন। আর দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী আহত হয়ে রক্তাক্ত হয়েছেন। মহাসচিব ও তার গাড়িও ভাঙচুর করা হয়েছে। পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটিতে পাহাড় ধসে বিধ্বস্ত এলাকা এবং ক্ষতিগ্রস্তদের দেখতে যাওয়ার পথেই চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় এই আচমকা আক্রমণ করা হয়েছে। আহত নেতৃবৃন্দ এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত প্রাথমিক চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।
মির্জা ফখরুলের গাড়িবহরে অন্যান্য নেতার মধ্যে ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। চট্টগ্রাম বিএনপির নেতারা জানান, তারা সকালে কাপ্তাই হয়ে রাঙ্গামাটির পথে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে কাপ্তাই সড়কের ইছাখালী গোচরা এলাকায় তাদের গাড়িবহরে অতর্কিতে হামলা হয়। এ ঘটনায় রাঙ্গুনিয়াজুড়ে সাধারণ জনগণ স্তম্ভিত হয়ে গেছেন। সৃষ্টি হয়েছে ভীতিকর অবস্থা।
নেতৃবৃন্দ জানিয়েছেন, অন্তত ২০ থেকে ২৫ জন লোক হঠাৎ সড়কের উপর তাদের গাড়িবহরে অতর্কিতে লাঠিসোঁটা, রামদা, ধারালো অস্ত্রসহ ঝাঁপিয়ে পড়ে। বিএনপি নেতারা জানান, মহাসচিব ও আমীর খসরুও গাড়ির কাচ ভেঙে দিয়েছে হামলাকারীরা। গাড়ি তছনছ করা হয়েছে।
মহাসচিব জানান, গাড়ির ভাঙা কাচ আমার শরীরে এসে লেগেছে। তাছাড়া আরও ৬ থেকে ৮ জন বিএনপি নেতা এ হামলায় আহত হয়েছেন। তবে আচমকা এ হামলার উদ্দেশ্য সম্পর্কে তাৎক্ষণিক কিছু জানা যায়নি। হামলা চালিয়ে হামলাকারীরা নির্বিঘ্নে পালিয়ে গেছে। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ জানান, হামলায় আমার হাত দিয়ে রক্ত ঝরছে।

 


Show all comments
  • ১৮ জুন, ২০১৭, ১:০৬ পিএম says : 0
    এই সব সন্ত্রাসী হামলা খুবি দুঃখ জনক! এই হামলা কারি যে বা যারাই হোক না কেন তাদের বিচার হোক। এই সব ঘটনা কোন জাতীর জন্য ভালো কিছু বয়ে আনবেনা!! বরন আরো বিপর্যস্থ হতে থাকবে। আজ ক্ষমতা আছে কাল যে থাকবেনা সেই কথাটা ভেবেই এই সব কার্যক্রমের সুষ্ট ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করে অপরাধীদের আইনের কাঠ ঘরাই প্রতিষ্ঠিত করাই উত্তম প্রন্থা বলে মনে করি।
    Total Reply(0) Reply
  • S. Anwar ১৮ জুন, ২০১৭, ২:৩৬ পিএম says : 0
    এই রাঙ্গুনিয়াই কিন্তু চট্টগ্রামে বিএনপি-র ঘাঁটি বলে ক্ষাত। শুধুমাত্র ক্ষমতার পরিবর্তনের দেরী। চরম প্রতিশোধের সুচনা এই রাঙ্গুনিয়া থেকেই শুরু হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • শাহেদ ১৯ জুন, ২০১৭, ১১:৫৪ এএম says : 0
    আমরা নিন্দা জানাই।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।