Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

কোচ ছাড়াই ক্যারিবীয় সফরে কোহলিরা

| প্রকাশের সময় : ২২ জুন, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : ঠান্ডা একটা যুদ্ধের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট। যাকে গৃহযুদ্ধই বলা চলে। যার জের ধরে ইতোমধ্যে কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন অনিল কুম্বলে।
সমস্যা মূলত কোচ ও খেলোয়াড়দের মধ্যে বনিবনা নিয়ে। সমস্যার শুরু হয়তো অনেক আগেই কিন্তু তা চরম আকার ধারণ করে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সময় থেকে। আরো স্পষ্ট করে বললে, কোহলিই চাননি কুম্বলেকে। এমন খবরও পাওয়া গেছে পাকিস্তানের বিপক্ষে ফাইনালের দুই দিন আগে টিম মিটিংয়ে নাকি কুম্বলেকে অপমানও করেছিলেন কোহলি। এ সময় কোহলি বলেন, ‘দলের কেউই অপনাকে কোচ হিসেবে চায় না।’ উত্তরে কুম্বলে বলেন, ‘অনেক হয়েছে, আর না।’
পদত্যাগের একমাত্র কারণ যে কোহলি তা স্পষ্ট ভাষায় জানিয়েছেন কুম্বলে নিজেও। ভারতের স্পিন কিংবদন্তি আক্ষেপের সুরে বলেন, ‘পেশাদারিত্ব, শৃঙ্খলা, দায়ীত্ববোধ, সততা ও চিন্তাভাবনার ভিন্নতাÑ আমি দলে আসলে এসবই আনতে চেয়েছি। এসবের মূল্য দেওয়া উচিত ছিল। কোচের ভুমিকাটা আসলে আয়নার মত, যাতে খেলোয়াড়রা নিজেদের দেখতে পারে। নিজেদের দেখে উন্নতি করতে পারে।’ তবে তার সময়কালীন দলের সব অর্জনের কৃতিত্ব তিনি দিয়েছেন দলের অধিনায়ক, খেলোয়াড় ও বাকি কোচিং স্টাফদের। ক্ষোভের সুরে কুম্বলে বলেন, ‘কোন আত্মসম্মানবোধসম্পন্ন ব্যাক্তি এখানে কাজ করতে পারে না।’
শচীন টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গলি, ভিভিএস লক্ষণের মত সাবেক তারকারা এই সমস্যা সমাধানে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা করেও ইতিবাচক ফল বের করে আনতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত সরে যেতেই হলো কুম্বলেকে। তার মত একজন নিবেদিতপ্রাণ সফল কোচের এমন পদত্যাগ ভালো চোখে নেননি অনেক ভারতীয় ক্রিকেট বোদ্ধাই। কোহলির মুন্ডুপাতও তাই শুরু হয়ে গেছে ইতোমধ্যে। সুনীল গাভাস্কার তো বলেই দিয়েছেন, ‘যেসব খেলোয়াড়ের কারণে কুম্বলেকে পদত্যাগ করতে হয়েছে, তাদের দল থেকে বাদ দেওয়া উচিত।’ উল্লেখ্য, কোহলির পাশাপাশি দলের অনেক সিনিয়র খেলোয়াড়েরও কুম্বলেকে নিয়ে আপত্তি ছিল। গাভাস্কার বলেন, ‘কুম্বলের এক বছরে দলে কোন সমস্যা দেখেননি।’ এছাড়া কুম্বলের পদত্যাগ ভারতীয় ক্রিকেটের জন্য একটা কালো অধ্যায় হয়ে থাকবে বলে মত দেন সাবেক এই ক্রিকেটার।
কোহলির প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করছে ভারতীয় সমর্থকরাও। ফেসবুক-টুইটারে অনেকে এমনও বলছেন, কোহলিকে কোচ, অধিনায়ক নির্বাচক সব-ই বানিয়ে দাও! অনেকে আবার পুরো ব্যাপারটা ভালোমত বুঝে তবেই কোহলির ব্যাপারে মন্তব্য প্রকাশ করতে বলছেন। অনেকে এমনও বলছেন, ‘আমি কোহলিকে ঘৃণা করি না, কিন্তু কুম্বলেকে শ্রস্ধা করি।’
এর মধ্যেই ভারতীয় ক্রিকেট দল এখন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে। কোচ ছাড়াই সেখানে পাঁচ ওয়ানডে ও একটি টি-২০ ম্যাচের সিরিজ খেলবে তারা। পোর্ট অব স্পেনে আগামীকাল থেকে শুরু হচ্চে দু’দলের মধ্যকার ৫ ম্যাচের সেই ওয়ানডে সিরিজ। এত বড় দলীয় বিবাদ উপেক্ষা করে দল হিসেবে ভারতীয়রা কেমন করে সেটাই এখন দেখার। ২০১৯ বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার যোগ্যতা অর্জনের বড় ঝুঁকিতে থাকা স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য এটি একটি সুযোগও।
চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দল থেকে কেবলমাত্র ওপেনার রোহিত শর্মা ও পেসার জসপ্রিত বুমরাহকে বিশ্রাম দিয়ে ক্যারিবিয় সফরের দল গঠন করেছে ভারতীয় নির্বাচকরা। সিমিত ওভারের এ সিরিজের জন্য উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান রিসাব পান্ত ও বাঁ-হাতি চায়নাম্যান বোলার কুলদীপ যাদবকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির জন্য ঘোষিত স্টান্ড বাই থাকা পাঁচজনের মধ্যে অবশ্য ছিলেন এ দুজন।
এই মুহূর্তে ভারতীয় দল ফর্মে আছে তাতে জেসন হোল্ডারের নেতৃত্বাধীন ক্যরিবিয় দলটিকে নিশ্চিত কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে।
সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে পোর্ট অব স্পেনের কুইন্স পার্ক ওভালে। এন্টিগার ভিভ রিচার্ডস স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে তৃতীয় ও চতুর্থ ম্যাচ। জ্যামাইকার কিংস্টন ওভালের সাবিনা পার্ক স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে শেষ ওয়ানডে ও এক মাত্র টি-২০ ম্যাচটি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।