Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ আশ্বিন ১৪২৭, ০৮ সফর ১৪৪২ হিজরী

বিয়ানীবাজারে বন্যায় লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি

| প্রকাশের সময় : ৩০ জুন, ২০১৭, ১২:০০ এএম

বিয়ানী বাজার উপজেলা সংবাদদাতা ঃ উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল এবং গত এক সপ্তাহের প্রবল বর্ষণে বিয়ানীবাজার উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন ও পৌরসভা প্লাবিত হয়েছে। কুশিয়ারা নদীরক্ষা বাঁধ ভেঙে তলিয়ে গেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মসজিদ, দোকানপাট ও বাড়িঘর।
সিলেট-বিয়ানীবাজার আঞ্চলিক মহাসড়ক ও বিয়ানীবাজার-চন্দরপুর অভ্যন্তরীণ সড়কের বেশ কিছু অংশের ওপর দিয়ে বন্যার পানি প্রবাহিত হওয়ায় সড়ক যোগাযোগ প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সড়কে যানবাহন আটকা পড়ায় যাত্রীরা হেঁটে কিংবা ট্রাক্টরে কবলিত এলাকা পার হচ্ছেন। বন্যাকবলিত মানুষের জন্য মাত্র সাড়ে ১৪ টন ত্রাণসামগ্রী বরাদ্দ দেয়া হয়েছে বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মু. আসাদুজ্জামান জানান। গতকাল বৃহস্পতিবার উপজেলার চারখাই, শেওলা, দুবাগ, কুড়ারবাজার, তিলপাড়া, লাউতা, মুড়িয়া ইউনিয়নের বেশিরভাগ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। আলীনগর ইউনিয়নের চারটি গ্রামের লোকজন পানিবন্দি অবস্থায় দিনযাপন করছে। এসব এলাকার অনেক বাসাবাড়িতে পানি উঠেছে। দুবাগের মেওয়া মাদরাসা ও জামে মসজিদ এবং লাউতার গজারাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ অর্ধশতাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে।
কুশিয়ারা নদীর বাঁধ ভেঙে সিলেট-বিয়ানীবাজার আঞ্চলিক মহাসড়কের পশ্চিম মেওয়ার মায়ন চত্বর এলাকায় সড়কের ওপর দিয়ে প্রায় দুই ফুট পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এ সড়ক দিয়ে কার, মাইক্রোবাস ও অটোরিকশা বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে চলাচল করলেও বিকেলে বন্ধ হয়ে যায়। ঝুঁকি নিয়ে চলছে যাত্রীবাহী ও মালবোঝাই যানবাহন। কুশিয়ারা নদীর পানি বৃহস্পতিবার বিকেলে বিয়ানীবাজার শেওলা পয়েন্টে ২৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এ নদীর দুবাগ ইউনিয়নের মেওয়া পশ্চিম ও খাড়াভরা এলাকায় নদী রক্ষা বাঁধ ভেঙে প্রবল বেগে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। তলিয়ে যাচ্ছে গ্রামের পর গ্রাম। বন্যাকবলিত এলাকার মানুষের জন্য দুর্গত এলাকার ইউনিয়ন পরিষদ, মাধ্যমিক ও প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং বন্যার্তদের আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত রাখতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন