Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

গুনাথিলাকা-ডিকওয়ালায় ম্লান মাসাকাদজা

| প্রকাশের সময় : ৭ জুলাই, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : শ্রীলঙ্কা ব্যাটিংয়ে নামার পর ড্রেসিংরুমে স্থির হয়ে বসতে পারেননি অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস। তার বোলররা তো জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যানদের কাছে তুলোধুনো হয়ে তিন শতাধীক রান দিয়েছেই, ইনিংস শেষ করতেও সময় নিয়েছেন বাড়তি ২৫ মিনিট। স্থির হয়ে বসে থাকার উপায় আছে!
কিন্তু পরে তার ব্যাটসম্যানরা তাকে যা উপহার দিলো তার জন্যে হয়তো ক্যারিয়ার জুড়েই অপেক্ষা করছিলেন ম্যাথিউস। উপুল থারাঙ্গা আর কুসল মেন্ডিস যখন ১৬ বল হাতে রেখে অবিচ্ছন্ন ৭৫ রানের জুটিতে ৮ উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ থেকে বের হচ্ছেন, ঘড়ির কাঁটাও তখন ম্যাচের জন্য নির্ধারিত সময় ছুঁই ছুঁই।
এজন্য লঙ্কান অধিনায়ক সবচেয়ে বড় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করবেন তার দুই উদ্বোধণী ব্যাটসম্যানের কাছে। ৩৭তম ওভারে দুজন বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগে ২২৯ রানে জুটি উপহার দিয়ে দুজনেই তুলে নেন ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি। উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান নিরোশান ডিকওয়ালা ১১৬ বলে ১৪টি বাউন্ডারিতে আউট হন ১০২ রান করে। আরেক ওপেনার দানুশকা গুনাথিলকার ব্যাট ছিল আরো চড়াও, ১১১ বলে ১৫টি চার ও ১ ছাক্কায় করেন ১১৬ রান। ৫ বলের ব্যবধানে দুজন আউট হওয়ার পর মাত্র ৯.৩ ওভারে থারাঙ্গা-মেন্ডিসের সেই আবিচ্ছিন্ন ৭৫ রানের ঝড়ো সমাপ্তি।
যে লঙ্কান ভুমিতে তিনশ তাড়া করে জয়ের কোন রেকর্ড ছিল না সেখানেই সাত দিনের ব্যবধানে দুটি তিনশ তাড়া করে জয়ের রেকর্ড দেখে ফেলল ক্রিকেট বিশ্ব। দুটিই চলতি সিরিজে। ৫ ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে গলে স্বাগতিকদের ছুড়ে দেওয়া ৩১৬ তাড়া করে জিতেছিল জিম্বাবুয়ে। এবার হাম্বানটোটায় স্বাগতিকরা জিতল ৩১০ রানের লক্ষ্যে। তিন ম্যাচ শেষে এখন সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে স্বাগতিকরা।
অথচ দিনটা হতে পারত ক্যারিয়ারের পঞ্চম শতক তুলে নেওয়া হ্যামিল্টন মাসাকাদজার। তার দুর্দান্ত ব্যাটিংয়েই বড় সংগ্রহের ভীত পায় জিম্বাবুয়ে। ৩৩তম ওভারে ৯৮ বলে ১৫টি চার ও ১ ছক্কায় ১১১ রান করে যখন এই ওপেনার আউট হন তখনও তার দলের স্কোরবোর্ডে ১৯১ রান। সেই হিসেবে ৩০/৪০ রান কমই এসেছে তাদের ইনিংসে। এজন্য নুয়ান প্রদীপকে একটা ধন্যবাদ দিতে পারেন ম্যাথিউস। সাথে অফস্পিনার অ্যাশলে গুনারতেœ ও লেগস্পিনার ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্কাও বেশ অবদান রাখেন। শেষ ১৭ ওভারে চার উইকেট হারিয়ে সফকারীরাও যোগ করতে পারে মাত্র ৯৭ রান। সাকুল্যে তাদের স্কোরবোর্ডে জমা হয় ৮ উইকেটে ৩১০।
তবে জয় পেলেও জরিমানা এড়াতে পারেননি ম্যাথিউস। ¯েøা ওভার রেটের কারণে ম্যাচ ফি’র ২০ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে তাকে। বাকি খেলোয়াড়দেরও জরিমানা গুনতে হচ্ছে ১০ শতাংশ হারে। আগামী এক বছরে যদি ম্যাথিউস একই ভুল করেন তাহলে তাকে এক ম্যাচ নিষিদ্ধ করা হবে বলেও জানিয়েছে আইসিসি। ম্যাথিউস মৌখিকভাবে অভিযোগ মেনে নেওয়ায় আলাদা করে শুনানির প্রয়োজন হয়নি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর : জিম্বাবুয়ে : ৫০ ওভারে ৩১০/৮ (মাসাকাদজা ১১১, মিরে ১৩, মুসাকান্দা ৪৮, আরভিন ১৬, উইলিয়ামস ৪৩, ওয়ালার ১৭, রাজা ২৫*, মুর ২৪; মালিঙ্গা ১/৭১, প্রদিপ ১/২৮, সান্দাকান ১/৭৩, হাসারাঙ্গা ২/৪৪, গুনারতেœ ২/৫৩)।
শ্রীলঙ্কা : ৪৭.২ ওভারে ৩১২/২ (ডিকভেলা ১০২, গুনাথিলাকা ১১৬, মেন্ডিস ২৮*, থারাঙ্গা ৪৪*; উইলিয়ামস ১/৬৩, ওয়ালার ১/৩২, মিরে ০/১৯)।
ফল : শ্রীলঙ্কা ৮ উইকেটে জয়ী।
ম্যাচসেরা : দানুশকা গুনাথিলাকা (শ্রীলঙ্কা)।
সিরিজ : ৫ ম্যাচে ২-১এ এগিয়ে শ্রীলঙ্কা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শ্রীলঙ্কা

৩১ জুলাই, ২০১৯
৩১ জুলাই, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন