Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৮ আশ্বিন ১৪২৪, ০২ মুহাররম ১৪৩৮ হিজরী

সদস্য নবায়ন ও সংগ্রহ অভিযান উজ্জীবিত তৃণমূল বিএনপি

| প্রকাশের সময় : ১৭ জুলাই, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ফারুক হোসাইন : আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন ঘিরে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের চাঙ্গা, তহবিল গঠন, দল ভারি ও ডাটাবেজ তৈরির জন্য সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরু করেছে বিএনপি। দুইমাস ব্যাপী এই কার্যক্রম শুরু হয়েছে ১ জুলাই থেকে। চলবে আগামী ১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। এই সময়ে এক কোটি সদস্য সংগ্রহের টার্গেট করেছে দীর্ঘ সময় ক্ষমতার বাইরে থাকা দলটি। তবে প্রাথমিক লক্ষ্য সদস্য সংগ্রহ হলেও এর মাধ্যমে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করাই বিএনপি’র অন্যতম প্রধান লক্ষ্য। সেই লক্ষ্যে ইতোমধ্যেই সাফল্য পেয়েছে জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। ১৬ দিনেই ২০ লাখ সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন হয়েছে বলে জানিয়েছে বিএনপি’র দায়িত্বশীল নেতারা। সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম উদ্বোধন করতে জেলায় জেলায় যাচ্ছেন দলের হ্যাভিওয়েট নেতারা। সিনিয়র নেতাদের উপস্থিতি এবং দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্যে ফের উজ্জীবিত হয়ে ওঠছে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা জেলায় গিয়ে সদস্য সংগ্রহ ফরম প্রতিটি উপজেলার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হাতে তুলে দিচ্ছেন। সভা-সমাবেশে বাধাপ্রাপ্ত হয়ে বিএনপি’র এই ব্যতিক্রমী কর্মসূচি নেতাকর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দায়িত্বপ্রাপ্ত এক সিনিয়র নেতা জানিয়েছেন, প্রতিদিনই নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নতুন সদস্য হতে আগ্রহীরা হাজির হচ্ছেন। জেলা ও মহানগরীর নেতারা আসছেন ফরম কিনতে। কেউ কেউ প্রাথমিক সদস্য পদ নবায়ন করতে আসছেন দলের দফতরে। এছাড়া জেলা ও উপজেলা পর্যায় থেকেও ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। বিএনপি সূত্রে জানা যায়, বেগম জিয়ার নির্দেশনায় ১১ জন সাবেক ছাত্রনেতাকে দিয়ে গঠন করা হয়েছে তদারকি টিম। তারা প্রতিটি জেলায় নিয়মিত খোঁজ খবর নিচ্ছেন এবং আপডেট সম্পর্কে তাকে অবহিতও করছেন।
এদিকে সদস্য নবায়ন ও সংগ্রহ অভিযান সুন্দরভাবে সফল করতে দলের দলের যুগ্ম মহাসচিব, সাংগঠনিক এবং সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকদের সাথে বৈঠক একাধিক বৈঠক করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এসব বৈঠকে সাংগঠনিক এবং সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকদেরকে তৃণমূল পর্যায়ে সদস্য সংগ্রহ অভিযান সফল করার লক্ষ্যে কার্যক্রম জোরদারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। একইসাথে সারাদেশে বিএনপির ৭৫ টি সাংগঠনিক জেলায় কেন্দ্রীয় নেতাদেরকে সফর করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। নির্দেশনা মেনে ইতোমধ্যে বেশিরভাগ সাংগঠনিক জেলায় কর্মসূচির উদ্বোধন করেছেন দলের সিনিয়র নেতারা। বিভাগীয় সাংগঠনিক এবং সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকেরা তা মনিটরিং করছেন। এছাড়া নির্বাচন কমিশন যে সংসদীয় আসন পুন:নির্ধারনের ঘোষণা দিয়েছে সেখানে যাতে কোনো অনিয়ম না হয় এবং ভোটার তালিকা হালনাগাদকালে যাতে কোনো অনিয়ম না হয় সেদিকে নেতৃবৃন্দকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বিএনপি’র কুমিল্লা বিভাগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আউয়াল খান বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের নির্দেশনা অনুযায়ি আমরা সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। প্রতিটি জেলা উপজেলাতেই নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। তিনি বলেন, কর্মসূচির টার্গেট এক কোটি সদস্য সংগ্রহ হলেও যেভাবে সকলের মধ্যে আগ্রহ দেখা যাচ্ছে তাতে এই লক্ষ্যমাত্রা দেড় কোটি হয়ে যেতে পারে বলে তিনি জানান। এর আগে গত ১ জুলাই রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের ঘোষিত ‘প্রাথমিক সদস্য নবায়ন ও নতুন সদস্য সংগ্রহ’ অভিযানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এসময় তিনি জানান, গতবার আমাদের সদস্য সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ছিলো ৫০ লাখ। এবার আমাদের টার্গেট এক কোটি। সকলে সদস্য হোন, দলের জন্য কাজ করুন। সর্বশেষ ২০০৯ সালে বিএনপির সদস্য সংগ্রহ অভিযান হয়েছিলো। কিন্তু তা শেষ হয়নি। এরপর ২০১২ সালে তা আবারো শুরু হয়। বিএনপি নেতারা জানান, আন্দোলনের কারণে পরবর্তীতে এই সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচি করতে পারেনি।
গত ৫ জুলাই ঢাকা মহানগরীর বাড্ডায় তৃণমূল পর্যায়ে প্রাথমিক সদস্য নবায়ন ও সংগ্রহ অভিযান কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি গতকাল ইনকিলাবকে বলেন, সারাদেশেই সদস্য সংগ্রহ অভিযান চলছে। ইতোমধ্যে আমাদের লক্ষ্যমাত্রার ২০ শতাংশ অর্জিত হয়েছে। তিনি বলেন, দলের এই কর্মসূচিতে তৃণমূল নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত হচ্ছে। পাশাপাশি স্থানীয় মানুষদের মধ্যেও ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। দলের সিনিয়র নেতারা প্রতিটি জেলায় গিয়ে কর্মসূচি উদ্বোধন করছেন এবং নেতাকর্মীদের দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন। গত ৭ জুলাই ঠাকুরগাঁওয়ের পৌর কমিউনিটি সেন্টারে এবং ৮ জুলাই রায়পুরের ঈদগাহ ময়দানে ইউনিয়ন বিএনপি আয়োজিত সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। একইদিনে খুলনায় প্রাথমিক সদস্য নবায়ন ও সংগ্রহ অভিযান কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী। ইতিমধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর, দক্ষিণ এবং বিভিন্ন ওয়ার্ড ও থানা পর্যায়েও এই কার্যক্রম শুরু হয়েছে। জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এখন পর্যন্ত আমাদের দলের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কর্মসূচী খুব ভালোভাবে চলছে। জনগণের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। ১০ জুলাই ঢাকার- ৮ ও ৯ নং সংসদীয় আসনে প্রাথমিক সদস্য নবায়ন ও সংগ্রহ অভিযান কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। তিনি বলেন, জনগণের মধ্যে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়নের বিপুল পরিমাণ সাড়া দেখে আমি অভিভূত। আমার রাজনৈতিক জীবনে জনগণের মাঝে এত সাড়া দেখিনি। যেখানে নিপীড়ন-নির্যাতন চলছে, গুম-খুন চলছে ওই সময়ে সাধারণ মানুষ ঝাঁকে ঝাঁকে বিএনপির সদস্য হতে এগিয়ে আসছেন। আমি মনে করি এটা শেখ হাসিনার ফ্যাসিস্ট শাসনের বিরুদ্ধে একটি প্রতিবাদ মাত্র। আমার বিশ্বাস এই সদস্য সংগ্রহ অভিযান বিএনপিকে আরো শক্তিশালী করবে। এই সরকারের পতন আরো তরান্বিত করবে।
কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের দপ্তর বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ৯ বিভাগের ৭৮ সাংগঠনিক জেলায় সিনিয়র নেতাদের সমন্বয়ে ৫৩টি কমিটি গঠন করে দেওয়া হয়েছে। তারা তৃণমূলে গিয়ে সদস্য সংগ্রহের কাজ করবেন। আগামী দুই মাস কাজটি সফল করতে টিমগুলো গঠন করা হয়। নেতারা দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলায় সফর করে সদস্য সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে ভূমিকা রাখবেন। এদিকে কেন্দ্রীয় মনিটরিং সেলের নেতারা জানান, এই কর্মসূচিতে সারাদেশের নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। জেলায় জেলায় কেন্দ্রীয় নেতারা যেতে শুরু করেছেন। মনিটরিং টিমে আছেন বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বাবুল, বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলীম, নির্বাহী কমিটির সদস্য সামসুজ্জামান সুরুজ, যুবদল সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, সেচ্ছাসেবক দল সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূইয়া জুয়েল, ছাত্রদল সভাপতি রাজিব হাসান ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান প্রমুখ।

 


Show all comments
  • সেলিম উদ্দিন ১৭ জুলাই, ২০১৭, ১০:৪৪ এএম says : 0
    এটা বিএনপির জন্য খুবই ভালো খবর
    Total Reply(0) Reply
  • ফজলুল হক ১৭ জুলাই, ২০১৭, ১০:৪৫ এএম says : 0
    কেউ কী বলতে পারেন এদের কয়জনকে মাঠে আন্দোলন সংগ্রামের সময় পাওয়া যাব?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর