Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

না’গঞ্জে বৃক্ষ মেলার আমন্ত্রণপত্রে নগরীর শহীদ জিয়া হলকে টাউন হল উল্লেখ

শহর জুড়ে বইছে সমালোচনার ঝড়

| প্রকাশের সময় : ১৯ জুলাই, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে : জেলা প্রশাসনের একটি আমন্ত্রণপত্রে নগরীর চাষাড়ার শহীদ জিয়া হলকে টাউন হল উল্লেখ করা হয়েছে। কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোহাম্মদ আব্বাসউদ্দিন ও নারায়ণগঞ্জ জোনের সহকারী বন সংরক্ষক আব্দুল করিম স্বাক্ষরিত বৃক্ষমেলার এ আমন্ত্রণ নিয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে বিএনপি নেতারা। আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানানোর পাশাপাশি দলটির নেতারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ক্ষোভ ঝেঁড়েছেন। তারা আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে জেলা প্রশাসন, বন বিভাগ ও কৃষি স¤প্রাসারন অধিদপ্তরকে ভুল স্বীকার করে দুঃখ প্রকাশ করারও আহŸান জানিয়েছেন।
জানা যায়, প্রতিবারের ন্যায় এবারও নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন, বন বিভাগ ও কৃষি স¤প্রাসারন অধিদপ্তরের আয়োজনে ফল ও বৃক্ষ মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। মেলার দাওয়াতপত্রে ‘শহীদ জিয়া হল’র পরিবর্তে ‘টাউন হল’ লেখা হয়।
নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আল ইউসুফ খান টিপু তার ফেইসবুকে লিখেছেন, ‘দাওয়াত নামা কার্ডে শহীদ জিয়া হলের পরিবর্তে টাউন হল লেখায় তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। তিনি আরও লিখেছেন, আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে জেলা প্রশাসন, বন বিভাগ ও কৃষি স¤প্রাসারণ অধিদপ্তর সঠিক ব্যাখ্যা ও দুঃখ প্রকাশ না করেন, তার জন্য কোন উদ্ভুত পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে জেলা প্রশাসন তার দায় দায়িত্ব বহন করবেন। সরকারের ইঙ্গিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন এই হীন কাজটি করেছেন। কোন চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্র করে শহীদ জিয়ার নাম মুছা যাবে না। শহীদ জিয়া হলের নাম পরিবর্তন করা হয় তাহলে নারায়ণগঞ্জবাসী ও বিএনপির নেতাকর্মী তার দাতভাঙ্গা জবাব দিবে।
তিনি আরো বলেন, নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসনের যে সকল কর্মকর্তা উদ্দ্যেশ্যপ্রণোদিত দাওয়াত নামায় শহীদ জিয়া হলের পরিবর্তে টাউন হল লিখেছেন তাদের নাম কালো তালিকাভুক্ত করে রাখা হবে।
আমরা নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের এই হঠকারিতা সিদ্বান্তের প্রত্যাহার চাই। শহীদ জিয়া হলের নাম শহীদ জিয় হলই থাকবে, এটা নিয়ে প্রশাসনের কোন চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্র বরদাশত করা হবে না।’নারায়ণগঞ্জ জেলা সহ-সাংগঠনিক রুহুল আমিন সিকদার সহ আরো কয়েকজন প্রায় একই ভাষায় স্টাটাস দিয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ