Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ মাঘ ১৪২৭, ১৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

১০ দিনের মধ্যে চিকুনগুনিয়ামুক্ত হবে ঢাকা দক্ষিণ - সাঈদ খোকন

| প্রকাশের সময় : ২৩ জুলাই, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার: ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন আগামী ১০ দিনের মধ্যে ডিএসসিসি এলাকা চিকুনগুনিয়া মুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি বলেন, আমার মা নিজেই চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত। তাই আমি অন্য মায়ের কষ্ট বুঝি।
গতকাল শনিবার চিকুনগুনিয়া নিয়ে জনসচেতনতা তৈরিতে আয়োজিত এক নাগরিক শোভাযাত্রার শুরুতে সাঈদ খোকন বলেন, আমি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক সভায় বলেছিলাম চার থেকে ছয় সপ্তাহের মধ্যে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় চিকুনগুনিয়া নিয়ন্ত্রণে আসবে।
গত শুক্রবারও আমি বলেছিলাম তিন থেকে চার সপ্তাহের মধ্যে চিকুনগুনিয়া নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসব। আটদিন পর আপনাদের মুখোমুখি হয়ে বলতে চাই, আগামী ১০ দিনের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকা থেকে চিকুনগুনিয়া রোগ মুক্ত করবই। চিকুনগুনিয়া নিয়ন্ত্রণে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি নাগরিকরাও অনেক সচেতন হওয়ায় ডিএসসিসির কাজ ত্বরান্বিত হয়েছে জানান ঢাকা দক্ষিণের মেয়র। ১০ দিনের মধ্যে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকা চিকুনগুনিয়ামুক্ত করার পর তা ফের বাড়তে পারে বলেও সতর্ক করে তিনি বলেন, ১০ দিন পর হয়তো চিকুনগুনিয়া মুক্ত হয়ে যাবে। এমনও হতে পারে ৯৮ ভাগ কমে যেতে পারে, ৯৯ ভাগ কমে যেতে পারে। মুক্ত হওয়ার সাতদিন পর আবার নতুন করে এটি ছড়াতে পারে। এ কারণে আমরা আমাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাব। নিজের মা চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন জানিয়ে এ কারণে চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্তদের কষ্ট বোঝেন বলছেন সাঈদ খোকন। আমি যখন বাসা থেকে বের হই, তখন আমার মা আমাকে দোয়া দেন, সাহস জুগিয়ে পাঠান। তার বিমর্ষ চেহারা দেখে আমি আসি। এই শহরের লক্ষ মায়ের কষ্ট আমি বুঝি। এই রোগে আক্রান্ত রোগীদের কষ্টও আমি বুঝি। সেই কষ্ট বুকে ধারণ করেই চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে কাজ করে যাচ্ছি আমি।
ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নাগরিকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সেবা দেওয়ার অঙ্গীকার করেছিলাম। এ অঙ্গীকার অক্ষরে অক্ষরে পালন করা হচ্ছে বলে জানান মেয়র। এ কারণে চিকুনগুনিয়া নিয়ে চালু করা কল সেন্টারে রোগীরা অনবরত কল করছেন বলে জানান তিনি।
সাঈদ খোকন জানান, বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ৩টা থেকে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের কল সেন্টার চালু হয়। শুক্রবার রাত ১০টা পর্যন্ত সিটি কর্পোরেশনের কল সেন্টারে আসা ৩১ হাজার ৮৫৬টি ফোন ধরা হয়েছে।
২২ হাজার ১১২ জন নাগরিক এসব কল করেছেন। এর মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকার নাগরিক ১ হাজার ৪৩০ জন। ৩৩১ জন সিটি কর্পোরেশনের কাছ থেকে চিকিৎসাসেবা চেয়েছেন, যার মধ্যে ১৬৬ জনকে বাসায় গিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ