Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ০২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৮ মুহাররম ১৪৪৪

লতিরাজ কচুতে খুশি ধুনট-কাজিপুরের চাষিরা

| প্রকাশের সময় : ২৯ জুলাই, ২০১৭, ১২:০০ এএম


লতিরাজ কচু মাছ ও মাংস দিয়ে রান্না করে খাওয়া যায়। বিশেষ করে ইলিশ মাছ দিয়ে রান্না করলে তার স্বাদ হয় অপূর্ব।
মহসিন রাজু ও টিএম কামাল ঃ বগুড়ার ধুনট ও সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলায় স্থানীয় জাতের উৎপাদিত ‘লতিরাজ কচু’ ( মুখী কচু ) অন্যান্য কচুর চেয়ে উন্নতমানের একটি সুস্বাদু সবজি। অতীতকাল থেকেই ধুনট ও কাজিপুরে ব্যাপক আকারে ‘মুখী কচুর’ চাষ করা হতো। মুখী কচুকে ঘিরে কাজিপুর ও ধুনটের লোকজনকে এক সময় ব্যঙ্গ করে বলা হতো কচু এলাকার মানুষ। তবে অতীতে চাষীরা ন্যায্য মূল্য পেত না। মাত্র ২-৩ টাকা মূল্যে পিস ও কেজি দরে বিক্রয় হতো মুখীকচু। তবে বর্তমানে ১ কেজি কচুর মূল্য ৩০-৩৫ টাকা ও প্রতি পিস ১৫-২০ টাকা। এই বর্ধিত মুল্য পেয়ে কচু চাষীরা খুশি বলে জানা গেছে। সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার রশিদপুর, পরানপুর, কালিকাপুর, উদগাড়ী, সোনামুখী, হরিনাথপুর, পাঁচগাছী, কুনকনিয়া, ভানুডাঙ্গা, শ্যামপুর, ঢেকুরিয়া এবং ধুনট উপজেলার কচুগাড়ী, গোসাইবাড়ী গ্রামসহ কয়েকটি গ্রামে এই কচু বেশি পরিমাণে চাষ হয়। এছাড়া দুই উপজেলার চরাঞ্চলের প্রায় প্রতিটি গ্রামেই এই কচুর চাষ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এই কচুকে ঘিরে পার্শ্বেবর্তী ধুনট উপজেলার একটি গ্রামের নামকরণ করা হয়েছে ‘কচুগাড়ী’। চৈত্র মাসে এ কচুর চাষ করা হয়। আষাঢ / শ্রাবন মাসে ফলন আসে। সারিবদ্ধভাবে আঁটি করে বীজ বপনের পর এর থেকে চারা বের হয়। প্রতি হেক্টরে প্রায় ৩-৪ টন ফলন হয়। কৃষি বিভাগ বলেছে চলতি মৌসুমে কাজিপুরে ২০ ও ধুনটে ২৫ হেক্টর জমিতে লতিরাজ কচুর চাষ করা হয়েছে। টাকার অংকে উৎপাদিত এই কচুর মূল্য ধরা হয়েছে প্রায় ৮০ লাখ টাকা। এ কচুর নাইল আরেক উৎকৃষ্ঠমানের খাদ্য। এর স্বাদই আলাদা। লতিরাজ কচু মাছ ও মাংস দিয়ে রান্না করে খাওয়া যায়। বিশেষ করে ইলিশ মাছ দিয়ে রান্না করলে তার স্বাদ হয় অপূর্ব। কাজিপুরে ও ধুনটে বর্তমানে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে লতিরাজ কচুর চাষ হচ্ছে। কাজিপুর-ধুনটে স্থানীয় এলাকায় এর চাহিদা মিটিয়ে অন্য জেলায় এ কচুর যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে। চাষীরা জানিয়েছেন, সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা পেলে এ লতিরাজ কচুর চাষ আরো সম্প্রসারণ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ