Inqilab Logo

রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৫ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

শিবগঞ্জে এলজিইডির ৩ বছরে ৬১ কোটি টাকার গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন

| প্রকাশের সময় : ২৯ জুলাই, ২০১৭, ১২:০০ এএম

কামাল হোসেন, শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) থেকে: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এর বিভাগের আওতায়ধীন গত ৩ বছরে প্রায় ৬১ কোটি টাকার গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন হয়েছে। শিবগঞ্জ উপজেলার উন্নয়নমূলক কাজের তালিকা থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের জানুয়ারী থেকে ২০১৭ সালের জানুয়ারী পর্যন্ত প্রায় ৬১ কোটি ৬ লাখ টাকার উন্নয়ন কাজ হয়েছে। সরকারের রূপকল্প বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে উপজেলায় বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এছাড়া আরো অনেক কাজ বাস্তবায়নাধীন ও পরিকল্পনাধীন রয়েছে বলে উপজেলা এলজিইডি অফিস জানিয়েছেন। গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নের মাধ্যমে জনগণের জীবনমান উন্নত করতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। গত ৩ বছরে যে সব উন্নয়নমূলক কাজ করা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে সড়ক উন্নয়ন ৩৯.৫০ কিলোমিটার, সড়ক মেরামত ৬৫ কিলোমিটার, ৪৪টি নতুন প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন নির্মাণ, হাট নির্মাণ ১টি, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়ি নির্মাণ ১৩টি, ইউনিয়ন পরিষদ ভবন ৩টি, উপজেলা কমপ্লেক্স ভবন ১টি। উন্নয়নমূলক কাজের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ হয়েছে (শিবগঞ্জ উপজেলা অংশে) দূলর্ভপুর থেকে দ্বারিয়াপুর পর্যন্ত ১৬.৪০ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণ, শিবগঞ্জ-মনাকষা-খাসেরহাট সড়ক মেরামত এবং কানসাট-ভোলাহাট সড়ক মেরামত, শিবগঞ্জ-ধাইনগর জিসি সড়ক মেরামত। এব্যাপারে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) বিভাগের উপজেলা প্রকৌশলী মকবুল হোসেন জানান, ইতিমধ্যেই উন্নয়নের দ্বিতীয় ধাপের উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন হয়েছে। তিনি জানান, দূলর্ভপুর থেকে দ্বারিয়াপুর পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণ করায় শিবগঞ্জ ও সদর উপজেলার চর এলাকার ৬টি ইউনিয়নের মানুষের জেলা সদরের সাথে যাতায়াতের ব্যবস্থা উন্নত হয়েছে। এছাড়া শিবগঞ্জ-ধাইনগর জিসি সড়কটি ১৪ বছর পর মেরামত করায় ধাইনগর ইউনিয়ন এলাকার মানুষের যাতায়াতের ক্ষেত্রে কষ্টের লাঘব হয়েছে। বর্তমানে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের রাস্তাঘাটের উন্নয়নে জনগণের যাতায়াত ব্যবস্থায় আমুল পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। এদিকে ২ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে সোনামসজিদ স্থলবন্দর লিংক রোড মেরামত করায় স্থলবন্দরের দীর্ঘদিনের পরিবহণ দূর্ভোগ লাঘব হয়েছে। তিনি আরও জানান, তর্তিপুর ঘাটের পাগলা নদীর উপরে ১৭০ মিটার একটি ব্রীজ যার প্রাক্কলিত মূল্য প্রায় ২০ কোটি টাকা দরপত্র আহŸান প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। যা আগামী দুই বছরের মধ্যে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হবে। এছাড়াও শ্যামপুর ইউনিয়নের উমরপুর ঘাট ও পুখুরিয়া খেয়া ঘাটে আরও দুটি ১৫০ মিটার ব্রীজ নির্মাণের প্রস্তাব সদর দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ