Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৯ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

দুর্নীতি করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না -দুদক চেয়ারম্যান

| প্রকাশের সময় : ৩ আগস্ট, ২০১৭, ১২:০০ এএম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : জনগণকে দুর্নীতিমুক্ত সেবা দিতে না পারলে সরকারি কর্মকর্তাদের কারাগারে যেতে হবে হুঁশিয়ার করে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, এক্ষেত্রে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। দুদকের মামলা ক্যান্সারের মতো- এটা মনে রেখে সবাইকে দুর্নীতিমুক্ত সেবা দেয়ার আহŸান জানান তিনি। গতকাল (বুধবার) ‘দুর্নীতিমুক্ত সরকারি সেবা: দুর্নীতির অভিযোগের প্রকৃতি শীর্ষক মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা সভায়’ একথা বলেন দুদক চেয়ারম্যান।
জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে দুদকের আয়োজনে এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইকবাল মাহমুদ সরকারি কর্মকর্তাদের উদ্দেশে আরও বলেন, জনগণকে দুর্নীতিমুক্ত সেবা দিতে হবে। এটা আপনাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য। এ দায়িত্ব কর্তব্য পালনে কেউ ব্যর্থ হলে পরিণতি হবে কারাগার। জনগণকে নিয়ে কাজ করুন। জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে আপনি জিতবেন না। কেউ জিততে পারে না। ৯০ এর স্বৈরাচারি সরকারের পতনের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে যাবেন না। জনগণকে তাদের সেবা দিন। আমরা যদি জনগণকে সেবা দিতে না পারি তাহলে আমাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
চাপের কাছে মাথানত না করার আহŸান জানিয়ে ইকবাল মাহমুদ বলেন, আসুন আমরা চাপের কাছে মাথা নত না করে জনগণের কাছে মাথা নত করি। আমরা জনগণের কাছে অ্যাকাউন্টএবল, কোন ব্যক্তির কাছে না। অনেক সরকারি কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণেরও কথা বলেন তিনি। ব্যাংকের বহু এমডি, ব্যবসায়ী এয়াপোর্টের দিকে যেতে পারছেন না। তারা দেশত্যাগের অনুমতি পাচ্ছেন না। দুদকের অনেক কর্মকর্তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। দুদকের মামলা ক্যান্সারের মতো উল্লেখ করে তিনি বলেন, দুর্নীতির করার পর দুদক কারো বিরুদ্ধে মামলা করলে তার পরিণতি হয় ভয়াবহ।
সভার শুরুতে বিভিন্ন সরকারি অফিসের বিরুদ্ধে দুদকে জমা হওয়া অভিযোগের বিষয়গুলো তুলে ধরেন দুদকের মহাপরিচালক (দুর্নীতি প্রতিরোধ ও গণসচেতনা) ড. মো. শামসুল আরেফীন। পরে বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বরত কর্মকর্তারা তাদের বক্তব্য তুলে ধরেন। দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ আমরা পাই। সব অভিযোগ আমরা সত্য বলব না। তবে কিছু অভিযোগ সত্য। চট্টগ্রাম বন্দরে স্ক্যানিং ছাড়াই কন্টেইনার বাইরে চলে যাচ্ছে। স্ক্যানিং ছাড়া কন্টেইনার গেলে তাতে যে অস্ত্র যায়নি তা কে বলবে। তিনি এসব বিষয়ে সতর্ক হওয়ার আহŸান জানান।
চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো. রুহুল আমীনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহার, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি এসএম মনিরুজ্জামান, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো. জালাল উদ্দিন, কাস্টম হাউসের কমিশনার এএফএম আব্দুল্লাহ খান, চট্টগ্রামের ডিসি মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দুর্নীতি

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন