Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

জাতির শোকের দিনে ভুুয়া জন্মদিন পালন করেবেন না: এনামুল হক শামীম

| প্রকাশের সময় : ৩ আগস্ট, ২০১৭, ১২:২০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার: শোকাবহ ১৫ আগস্ট বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ভুয়া জন্মদিন পালন না করতে আহŸান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম। তিনি বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম হয়েছিল বলেই বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশকে স্বাধীন না করলে বিএনপি নেত্রী দুইবার প্রধানমন্ত্রী হতে পারতেন না। ১৫ আগস্ট স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি জাতির জনককে সপরিবারে হত্যা করে। সেই হত্যাকারী ও পাকিস্তানকে খুশি করতে বিএনপি নেত্রী ভুয়া জন্মদিন পালন করেন। তিনি বলেন, জাতির শোকের দিনে মিথ্যা জন্মদিন পালন করে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে কষ্ট দেবেন না। আমরা রাজনৈতিক সহাবস্থানে বিশ্বাসী। আপনি যদি মিথ্যা জন্মদিন পালন করেন তাহলে কোনভাবেই রাজনৈতিক সবস্থান থাকবে না। 

গতকাল বুধবার দুপুরে ধানমন্ডিতে খাগড়াছড়ি, লক্ষিপুর ও শরিয়তপুরের আওয়ামী লীগ নেতাকমীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় তিনি একথা বলেন।
ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এনামুল হক শামীম বলেন, একজন মানুষের ৫টি জন্মদিন হতে পারে না। পাসপোর্টে, বিয়ের কাবিন নামা, আবার সংসদে দেয়া তথ্যে গরমিল। তাহলে সঠিক জন্মদিন কোনটা? ১৫ আগস্ট খালেদা জিয়ার জন্মদিন না। আসলে তিনি পাকিস্তানকে খুশি করতে জাতির জনককের হত্যাকে সেলিব্রেট করেন। তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, যদি রাজনৈতিক স্থিতিশীল ও সহাবস্থান চান তাহলে ভুয়া জন্মদিন পালন বন্ধ করুন। তা না করলে যেখানেই আপনার ভুয়া জন্মদিনের উৎসব হবে- সেখানেই প্রতিরোধ গড়ে তুলবে স্বাধীনতা পক্ষের শক্তি।
চট্রগ্রাম বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের এ সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে আমাদের প্রত্যেক নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। গত আট বছরে সরকারের উন্নয়নগুলো জনগণের সামনে তুলে ধরতে হবে। ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে সরকারের গৃহীত পরিকল্পনাগুলো জনগণকে জানাতে হবে। একই সঙ্গে বিগত বিএনপি-জামায়াত সরকারের সময়ে দেশের কি অবস্থা ছিল, এখন কি পরিবর্তন হয়েছে সেগুলো জানান দিতে হবে। মানুষের মন জয় করতে হবে। নিজেদের মধ্যে ছোটঘাট বিরোধ মিমাংসা করতে হবে। একটা কথা মনে রাখতে হবে, আওয়ামী লীগ যখন ঐক্যবদ্ধ থাকে, তখন কেউ পরাজিত করতে পারে না। অতীতের ন্যায় আগামীতেও ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। কারণ দেশের জন্য, দেশের জনগণের উন্নয়নের জন্য বার বার শেখ হাসিনাকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আনতে হবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, লক্ষিপুর যুবলীগ সভাপতি টিপু, সখিপুর থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি হুমায়ুন কবির মোল্লা, চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সিকদার, আবুল হাসেম দেওয়ান, জিতু মিয়া বেপারী, টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সভাপতি এনামুল আলম শাকিব, মাইনুল ইসলাম লিখন প্রমুখ।
###



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ