Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ০৪ আষাঢ় ১৪২৮, ০৬ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

পাকিস্তানের মন্ত্রিসভায় প্রাধান্য সেনাবাহিনীর সমালোচকদের

| প্রকাশের সময় : ৬ আগস্ট, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ডিপিএ : পাকিস্তানে নয়া সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্যদের মধ্যে সেনাবাহিনীর সমালোচনাকারীদের প্রাধান্য দেখা যাচ্ছে যা সে দেশের ইতিহাসে এক ব্যতিক্রমী ঘটনা।
পাকিস্তানের নয়া মন্ত্রীসভার সদস্যরা শুক্রবার শপথ নিয়েছেন। নতুন প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন নওয়াজ শরীফের অনুগত বলে পরিচিত শহিদ খাকান আব্বাসি। এর মধ্য দিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে সুপ্রিম কোর্ট প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফকে অপসারণের আদেশ দেয়ার এক সপ্তাহ পর নয়া সরকার গঠনের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।
প্রেসিডেন্ট মামনুন হোসেনের উপস্থিতিতে নয়া মন্ত্রিসভার সদস্যরা শপথ নেন। শপথ গ্রহণের অনুষ্ঠানটি জাতীয় টেলিভিশনে সম্প্রচারিত হয়।
উল্লেখ্য, পাকিস্তানের ইতিহাসের প্রায় অর্ধেক সময়ই সামরিক বাহিনী দেশ শাসন করেছে। এদিকে নিরপেক্ষ বিশ্লেষকরা পাকিস্তান সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তকে একপেশে বলে আখ্যায়িত করেছেন। তারা বলেছেন, সামরিক বাহিনীর নির্দেশেই এটা করা হয়েছে যারা দৃশ্যান্তরাল থেকে সকল ক্ষেত্রে ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করে আছে।
নওয়াজ শরীফ তিনবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হন। কিন্তু কোনোবারই তিনি মেয়াদ পূর্ণ করতে পারেননি। রাজনীতিতে সেনাবাহিনীর ভূমিকার বিরোধিতা করার জন্য তিনি পরিচিত ছিলেন।
নয়া প্রধানমন্ত্রী আব্বাসী তার মন্ত্রিসভায় যাদের নিয়েছেন তাদের প্রায় সবাই রাজনীতিতে সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপের কঠোর সমালোচক। এর মধ্য দিয়ে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে যে তিনিও বেসামরিক কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে চান।
আব্বাসী মঙ্গলবার পার্লামেন্ট কর্তৃক নির্বাচিত হওয়ার পর বলেন, তিনি শরীফের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক নীতিসমূহ অব্যাহত রাখবেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ