Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১১ মাঘ ১৪২৭, ১১ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

রাজধানীতে আধুনিক সুবিধাসম্পন্ন পার্ক ও খেলার মাঠের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন সাঈদ খোকন

| প্রকাশের সময় : ৯ আগস্ট, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : প্রায় ৭ কোটি টাকা ব্যয়ে রাজধানীর পুরাণ ঢাকার রসুলবাগে ও বকশিবাজার এলাকায় দুটি আর্ন্তজাতিক মানের আধুনিক সুবিধা সম্পন্ন পার্ক ও খেলার মাঠের নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাইদ খোকন। স্থাপনা দুটি সংস্থাটিই ২৬ নাম্বার ওয়ার্ডে অবস্থিত।
গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর পুরাণ রসুলবাগ শিশু পার্ক মাঠে ও শহীদ আব্দুল আলীম খেলার মাঠের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে মেয়র বলেন, এ ওয়ার্ডের মাধ্যমে নির্বাচনকালীন প্রতিশ্রুতি পুরাণে ঢাকায় প্রথমবারের মতো কোন আধুনিক মাঠ ও পার্কের উন্নয়ন কাজ শুরু করা হলো। এসময় ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসিবুর রহমান মানিক, ২৩ না¤া^র ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হুমায়ুন কবীরসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, আমরা ডিএসসিসির এলাকায় অবৈধ দখলে রেখে অসামাজিক কাজে ব্যবহার করা ১৯ টি পার্ক ও ১২ টি খেলার মাঠকে দখলমুক্ত করেছি। নাগরিকদের স্বার্থে এসব পার্ক ও খেলার মাঠকে আর্ন্তজাতিক মানের আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্পন্ন করে রাজধানীর অন্যতম দৃষ্টি নন্দন স্থাপনা হিসেবে তৈরী করা হচ্ছে। এসব স্থাপনা তৈরীর জন্য আমরা জলসবুজে ঢাকা নামে একটি বিশেষ প্রকল্প হাতে নিয়েছি। যার কাজ এর মাধ্যমে শুরু করা হলো। পর্যায়ক্রমে একে একে সকল পার্ক ও মাঠকে আমরা আধুনক ও আর্ন্তজাতিকমানের করে গড়ে তুলবো। এছাড়া এই প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট অভিজ্ঞ ৭০ জন স্থাপত্যবিদ বিভিন্ন পর্যায়ে কাজ করছেন। উল্লেখ্য, ওয়ার্ডের বকশিবাজার এলাকায় অবস্থিত এ মাঠটি লালবাগ তথা পুরাণ ঢাকার সর্ববৃহত মাঠ হিসেবে পরিচিত।
সাঈদ খোকন বলেন, শহীদ আব্দুল আলীম খেলার মাঠ ও রসুলবাগ শিশুপার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের মধ্য দিয়ে এ এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের একটি স্বপ্ন বাস্তবায়নের দ্বার উন্মুক্ত হলো। এসব উন্নয়ন কাজ সম্পাদিত হলে এলাকার চেহারা বদলে যাবে। নারী, শিশু এবং মুরুব্বীগণ এসব মাঠ ও পার্কে প্রাতঃ ভ্রমনসহ শিশুরা খেলাধুলার সুযোগ পাবেন।
শহীদ আব্দুল আলীম খেলার মাঠে ফুটবল খেলার মাঠ, পেভিলিয়ন, ক্রিকেট খেলার নেট প্রাকটিস স্পেস, সকাল সন্ধ্যা পায়ে হাটার জন্য ২৫০ মিঃ ওয়াকওয়ে, বসার জন্য পাবলিক প্লাজা, শিশুদের খেলার জন্য পৃথক জায়গা, লাইব্রেরী, ঈদের নামাজ পড়ার ব্যবস্থাসহ, জিমনেসিয়াম ও টয়লেট সুবিধা অন্তর্ভূক্ত থাকবে। এছাড়া রসুলবাগ শিশু পার্কে শিশুদের জন্য আধুনিক খেলার সরঞ্জামাদি দোলনা, ¯িøপার ইত্যাদি থাকবে। পেভিলিয়ন, সকাল সন্ধ্যা পায়ে হাটার জন্য ১৫০ মিঃ ওয়াকওয়ে, বসার জন্য পাবলিক স্পেসসহ রিফ্রেসমেন্ট-এর ব্যবস্থা, মসজিদ সংলগ্ন স্থানে টয়লেট ও ওযুর ব্যবস্থা অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে।
অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে স্থানীয় কাউন্সিলর হাসিবুর রহমান মানিক বলেন, এই পার্ক ও মাঠটিকে আর্ন্তজাতিক মানের স্থাপনা হিসেবে নির্মাণের জন্য এলাকাবাসীর দাবী ছিল যা এখন পূর্ণ হওয়ার পথে। এছাড়াও ডিজটিাল বাংলাদেশের অংশ হিসেবে আমরা প্রতিটি গলিতে ফ্রি ওয়াইফাই জোন হিসেবে গড়ে তুলেছি। আজিমপুর কবরস্থানে রাজধানীর অন্যতম বৃহৎ মসজিদ হিসেবে ৫ থেকে ৭ হাজার মুসল্লি একসাথে নামাজ আদায় করতে পারবে এমন দৃষ্টি নন্দন মসজিদ নির্মাণকাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এ এলাকার একটি মাত্র গলি ছাড়া সকল রাস্তাই নির্মাণ করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সাঈদ খোকন

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
২৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন