Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৩ পৌষ ১৪২৪, ২৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

একদিনেই বদলে গেল জেলখানার চিত্র মামলার গতি দ্রুত করার নির্দেশনা

ইনকিলাবে গতকাল সংবাদ প্রচারের পর

| প্রকাশের সময় : ১০ আগস্ট, ২০১৭, ১২:০০ এএম

মহসিন রাজু, বগুড়া থেকে : ‘‘জেলখানাতেও রাজার হালে তুফান” তুফান ইস্যু ডেড। সবকিছু চলবে আগের মতই’’ শীর্ষক ইনকিলাবের গতকালকের সংবাদটি ছিল ‘‘বগুড়ায় টক অব দ্য টাউন’’। বগুড়ার আদালতপাড়া, পুলিশ বিভাগের কর্মকর্তারা এবং বগুড়ার জেল কর্মকর্তারা ইনকিলাবের প্রিন্ট ও অনলাইন ভার্সনে প্রকাশিত সংবাদটি সবাই বিশেষ আগ্রহ ভরে পাঠ করেন বলে জানা যায়। মোট কথা সর্বত্রই আলোচনার বিষয় ছিল তুফান কি আইনের মারপ্যাঁচে, ফাঁক ফোকরে বেরিয়ে যেতে পারবে, নাকি আইনের হাতই বেশি লম্বা ও মজবুত বলে প্রমাণিত হবে ? তুফানের ক্যাডারদের বিরুদ্ধে প্রশাসন কি পরবর্তী আইনী পদক্ষেপ অব্যাহত রাখবে নাকি ঝিমিয়ে পড়বে সবকিছু?
মা ও অসহায় মেয়েটির দায়িত্ব নিতে চান রাহুল গাজী ঃ
বগুড়ায় তুফানের হাতে ধর্ষিতা ও পৌর কাউন্সিলর মার্জিয়া হাসান রুমকির হাতে বর্বরভাবে শারীরিক নির্যাতনের শিকার তরুণী ও তার মাকে বিচারিক আদালতের নির্দেশে রাজশাহীতে একজনকে সেফ হোমে, আরেকজনকে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে পাঠাবার খবর ইনকিলাবে পাঠ করে মেয়ে ও মায়ের হৃদয়স্পর্শী আর্তনাদের গভীরতা অনুভব করে ইনকিলাবের বগুড়ার বিশেষ সংবাদদাতার কাছে ফোন করেছেন রাহুল গাজী নামে বিশিষ্ট এক নাগরিক। তিনি ভাষা সৈনিক মরহুম গাজীউল হকের একমাত্র ছেলে। তার প্রশ্ন এই অসহায় মেয়েটি ও তার মায়ের নিরাপদ আবাসনের দায়িত্ব নেওয়ার মত কেউই নেই ? যে কারণে তাকে ও তার মাকে পৃথক পৃথক শেল্টারে রাখতে হল !
এক পর্যায়ে তিনি বলেন, দেশের একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে আইনে বাধা না থাকলে, আদালতের অনুমতি এবং ওই মা মেয়েটির সম্মতি ও পুলিশের সহযোগিতা পেলে তিনিই বগুড়ায় অথবা ঢাকায় তাদের জন্য নিরাপদ আবাসন ও লেখা পড়ার ব্যবস্থা করতে রাজি আছেন। রাহুল গাজীর পৈতৃক নিবাস বগুড়ার সুলতানগঞ্জ পাড়ায়। ‘আশ্রয় ’ নামের এই বাড়িটি সারা দেশে পীর বাড়ি হিসেবে পরিচিত।
বদলে গেছে জেল খানার চিত্র ঃ
এদিকে জেল খানায় দম্ভভরে চলাফেরা ও রাজকীয় জীবন যাপনের খবর প্রকাশের পর বদলে যায় বগুড়া জেলা কারাগারের দৃশ্যপট। গতকাল বুধবার কারাবন্দীদের সাথে সাক্ষাৎ করতে গিয়েছিলেন তারাই বলেছেন, আগের দিনের মতো তুফানের চলাফেরা ছিল। সারাদিনই সে তার জন্য বরাদ্দ করা ভবনেই ছিল। স্বাভাবিক ভাবেই সে খাওয়া দাওয়া করেছে। তবে তার সাথেই জেলখানায় বন্দী তার শ্বশুর ও অন্যান্য সহযোগীদের সাথে তাদের আত্মীয় স্বজন নিয়ম মেনেই দেখা করেছেন বলে কারাগার সূত্রে জানা গেছে।
মামলার গতি দ্রুত করতে নির্দেশনা ঃ
চাঞ্চল্য সৃষ্টিকারী তরুণী ধর্ষণ মামলাটি নিয়ে গড়িমসি ও কৌশল করা নিয়ে ইনকিলাবে প্রকাশিত সংবাদটিকে গুরুত্ব দিয়েছেন বগুড়ার উর্দ্ধতন পুলিশ কর্মকর্তাগণ। বগুড়া ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপারের দায়িত্ব পালনকারী আরিফুর রহমান মন্ডল মামলার তদন্ত কারী কর্মকর্তাকে ডেকে পাঠান। তিনি মামলার আদ্যপান্ত খোঁজ খবর নেবার পর তদন্ত কর্মকর্তা বগুড়া সদর থানার ওসি ( অপারেশন ) আবুল কালাম আজাদকে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দিয়ে মামলার গতি দ্রুততর করার দিক নির্দেশনা দেন।

 


Show all comments
  • সজিব ১০ আগস্ট, ২০১৭, ৪:১০ এএম says : 3
    ইনকিলাব ও রিপোর্টারকে ধন্যবাদ
    Total Reply(0) Reply
  • S. Anwar ১০ আগস্ট, ২০১৭, ৬:৫৩ এএম says : 1
    যেখানে অন্যায় ও অবিচার মাথাচারা দিয়ে আকাশ ছুঁতে চায় সেখানেই সৎ-সাহসী সাংবাদিকদের কলমের খোঁচায় অন্যায়ের ভিতসহ কেঁপে উঠে এবং চুরমার হয়ে যায়। এজন্যই ক্ষমতাবান, ধুরন্ধর ও লুটেরাদের চোখে সাংবাদিকরা চিরকাল বিষফোঁড়া তুল্য। সাংবাদিকরা আছে বলেই হয়তো দেশটা এখনো এতটুকু মনুষ্য বসবাসযোগ্য আছে। অন্যথায় আফ্রিকার জিওগ্রাফিক্যাল পার্ক হয়ে যেতো। অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে ধন্যবাদ জানাই সাংবাদিক ভাইদেরকে যাদের কারনে অল্প ক্ষণের জন্য হলেও মহাশক্তিধর অপরাধীরা স্বীয় চোয়ালে লাগাম পরতে বাধ্য হয়। দেশবাসীরা সেই সৎ ও সাহসী সাংবাদিক ভাইদের কাছে কৃতজ্ঞ।
    Total Reply(0) Reply
  • Nura Alam ১০ আগস্ট, ২০১৭, ১০:২৩ এএম says : 0
    asa kore shotake and nay bicher hoby
    Total Reply(0) Reply
  • Md Ziaur Rahman ১০ আগস্ট, ২০১৭, ৩:৩৪ পিএম says : 0
    সাংবাদিক ভাই এটার ধারাবাহিক আরও অনুসনধানী রিপোর্টস দেখতে চাই দেশবাসী।
    Total Reply(0) Reply
  • Mahbub Rahman ১০ আগস্ট, ২০১৭, ৩:৩৫ পিএম says : 0
    বিচার হবেতো ? বড় বড় কপালে তিলকধারী নারীবাদীরা আজ কোথায়?? বিবেক আজ ক্রীতদাসে রুপান্তরিত হয়ে গেছে। আমার ভিতরে আত্মদহন ছাড়া আর কোন সহানুভূতি দেবার মত ভাষা আমার নাই ঐ নির্যাতিত হতভাগ্য মা ও মেয়ের তরে। শুধু ঘৃণা পোষণ করেই মনকে শান্ত রাখতে হয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Moshir Rahman ১০ আগস্ট, ২০১৭, ৩:৩৬ পিএম says : 0
    সত্যের পথে ইনকিলাব, thanks
    Total Reply(0) Reply
  • Yeasin ১০ আগস্ট, ২০১৭, ৩:৩৭ পিএম says : 0
    ফাঁসি চাই ফাঁসি!
    Total Reply(0) Reply
  • ১০ আগস্ট, ২০১৭, ৪:৩৯ পিএম says : 0
    thanks bai
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ