Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ০২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৮ মুহাররম ১৪৪৪

ইউরোপা লিগেও ম্যানইউ’র একই দশা!

প্রকাশের সময় : ১২ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : দুই ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেট ও লিভারপুলের মধ্যকার হাইভোল্টেজ ম্যাচ কম দেখেনি ফুটবল বিশ্ব। তবে ইউরোপা লিগে দু’দল মুখোমুখি হলো এই প্রথম। এছাড়া ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে দু’দলের কাছেই ম্যাচটি ছিল বাঁচা-মরার লড়াই। এই ম্যাচকে কেন্দ্র করে তাই আলাদা একটা আবহ ছিলই। কিন্তু আসরের শেষ ষোলোর ম্যাচে এদিন খুঁজেই পাওয়া গেল না ওল্ড ট্রাফোর্ডের দলকে। ম্যাচটিও তারা হেরেছে ২-০ গোলে। ‘অল রেড’ খ্যাত লিভারপুলের হয়ে দুই আর্ধে গোল দুটি করেন ড্যানিয়েল স্ট্যারিজ ও মেম্ফিস ডিপায়। রেড ডেভিল গোলরক্ষক ডেভিড ডি গিয়া গোলমুখে তীব্র প্রতিরোধ গড়ে না তুললে আরো বড় ব্যবধান নিয়ে মাঠ ছাড়তে হতো ফন গালের দলকে। অথচ প্রিমিয়ার লিগে শীর্ষ চার হারিয়ে ইউরোপা লিগকেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগে পৌঁছানোর একমাত্র রাস্তা হিসেবে দেখছিলেন ফন গাল। কিন্তু সে পথও এখন মনে হচ্ছে তার জন্য বন্ধুরই হবে।
ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় গত ৬ ম্যাচে প্রতিপক্ষের মাঠে কোন জয় নেই ম্যানইউ’র, হার ৫টিতেই। পরশু ইয়ুর্গুন ক্লপের দলের কাছে হেরে ব্যর্থতার পাল্লাটা আরো ভারী করল তারা। এমনিতেই চলতি মৌসুমে তাদের চিনতে হচ্ছে জার্সি দেখে। এদিনও মাঠে ফন গালের শিষ্যদের সেই একই রূপ। লিভারপুলের গোলপোস্ট বরাবর তাদের সর্বোমোট শটই ছিল মাত্র একটি। দলের এমন ব্যার্থতার পরও ‘লিভারপুল সস্তা গোলে পেয়েছে’ বলে দাবি করেন ফন গাল! তবে বাস্তবতা মেনে ফিরতি লেগে তার দল ঘুরে দাঁড়াবে জানিয়ে ডাচ কোচ বলেনÑ ‘২-০ আমাদের জন্য খুবই কঠিন স্কোর। আমাদেরও একই আবহ তৈরি করতে হবে (ফিরতি লেগে)।’ ওদিকে বিজয়ী কোচ ক্লপ বলেনÑ ‘আবহ ছিল চমৎকার। আমি সবার জন্য ভীষন খুশি, যারা এই মৌসুমে আমাদের সাথে কঠিন সময় কাটিয়েছে। আজকের জয় তাদেরকে (প্রতিদান) দেওয়ার প্রথম ধাপ।’ সাবেক ক্লাব বরুশিয়া ডর্টমুন্ডকে ২০১৩ সালে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে নিয়েছিলেন ক্লপ। কিন্তু ইউরোপিয়ান কোন ট্রফি এখনো জেতা হয়নি তার।

 

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউরোপা লিগেও ম্যানইউ’র একই দশা!
আরও পড়ুন