Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট ২০১৭, ৭ ভাদ্র, ১৪২৪, ২৮ যিলকদ ১৪৩৮ হিজরী

বঙ্গবন্ধুর নৃশংস হত্যাকান্ড নিয়ে কাহিনীচিত্র ইতিহাসের কৃষ্ণপক্ষ

| প্রকাশের সময় : ১৩ আগস্ট, ২০১৭, ১২:০০ এএম

বিনোদন ডেস্ক: বাঙালি জাতির জীবনে সর্বাঙ্গীনভাবে একটি কালো দিবস ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট। এই কালো দিনটিতেই জাতি হারিয়েছে,স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে নৃশংসভাবে হত্যার মধ্য দিয়ে। যেদিন রাতে তিনি নিহত হয়েছিলেন ঠিক সেদিন সকালেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাঁকে হারানো ছাত্রত্ব ফিরিয়ে দিতে চেয়েছিল। এ উপলক্ষে সেদিন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক সংবর্ধনা নিতে আসার কথাও ছিল। এই সত্য ঘটনা অবলম্বনে ‘মহামানবের দেশে’ নামক গল্প লিখেছেন নাট্যকার ও গীতিকবি সহিদ রাহমান। গল্পটি ‘ইতিহাসের কৃষ্ণপক্ষ’ নামে নাট্যরূপ ও নির্দেশনা দিয়েছেন মান্নান হীরা। স¤প্রতি ঢাকার অদূরে পুবাইল ও উত্তরায় টানা ৭ দিন শূটিংয়ের মধ্য দিয়ে এই কাহিনীচিত্র নির্মিত হয়েছে। এতে অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান ও ফজলুর রহমান বাবু। প্রধান নারী চরিত্রে রয়েছেন জাতীয় শর্মিমালা। এছাড়া আরও অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী মোমেনা চৌধুরী। কাহিনিচিত্রটি প্রসঙ্গে নাট্যকার সহিদ রাহমান বলেন, প্রতিটি বাঙালি বঙ্গবন্ধুর অবদানের প্রতি ঋণী। সেই ঋণতো কোনদিন শোধ করার মত নয়। তবুও তার আদর্শ কতো তীব্রভাবে সাধারণ মানুষের মধ্যে জাগিয়েছিল তা দেখানোর চেষ্টা করেছি। অভিনেতা তারিক আনাম খান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের গল্পে অভিনয়কে শুধু অভিনয় নয়, দায়বদ্ধতা মনে করি। নিজে মুক্তিযুদ্ধ করেছি তাই এই কাহিনীচিত্রে কাজ করতে গিয়ে বার বার মুক্তিযুদ্ধের সেই সময়ে ফিরে গেছি। সহিদ রাহমান একটি সত্য ঘটনার সঙ্গে দারুন আবেগী একটি গল্প লিখেছেন। শর্মিমালা বলেন, আমি মুক্তিযুদ্ধ দেখিনি। তাই সেই সময়ের গল্পে কাজ করতে গিয়ে বেশ পড়াশুনা করতে হয়েছে। একজন মুক্তিযোদ্ধা তাঁর প্রেমিকা বা স্ত্রীকে ছেড়ে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ শুনে যুদ্ধে গেল । দেশ স্বাধীন হওয়ার পর বঙ্গবন্ধুকে এক নজর দেখার জন্য গ্রাম ছেড়ে ঢাকায় চলে আসে। খুবই আবেগী গল্প। কাহিনী চিত্রটি আগামী ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর ৪২তম শাহাদাতবার্ষিকী দিবস উপলক্ষে চ্যানেল আইতে প্রচার হবে বলে জানা গেছে।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।