Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৭, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

সীতাকুন্ডে টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে ধসে গেছে স্লুইস গেট ব্যাপক ফসলহানি

| প্রকাশের সময় : ১৩ আগস্ট, ২০১৭, ১২:০০ এএম

সীতাকুন্ড সংবাদদাতা : চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে টানা বৃষ্টিতে সাগর ও পাহাড়ি ঢলের পানি বৃদ্ধি পেয়ে মুরাদপুর ইউনিয়নের গুলিয়াখালী উপকূলীয় এলাকার ¯øুইচ গেইট ধসে গেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে সাগরের তীরে থাকা হাজার হাজার উপকূলবাসী। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের সাগরের সাথে সংযুক্ত খাল ও ছড়াগুলো মাটিতে ভরাট হয়ে যাওয়ায় এবং পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে এমন দুর্ভোগ পোহাতে হয় বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।
উপজেলার সলিমপুর থেকে সীতাকুন্ডের শেষ সীমানা বারৈয়াঢালা ইউনিয়ন পর্যন্ত কোমর পরিমাণ পানিতে গ্রামীণ সড়কগুলো ডুবে গেছে। এছাড়া পৌরসভাস্থ সিবপুর, পন্থিছিলা শেখপাড়া, ইদিলপুর, স্টেশন রোড, আমিরাবাদ, মধ্যম মহাদেব পুরের চৌধুরীপাড়া, উপজেলা পরিষদের সামনেসহ বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টি ও ঢলের পানি ঢুকে পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এতে পৌরসভা এলাকা ও উপকূলীয় অঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়ে। অন্যদিকে কৃষকদের রোপণ করা আঊশ ধান ও নির্মাঞ্চলের শত শত একর সবজি ক্ষেত পানির নিচে তলিয়ে গেছে। এছাড়া পাহাড়ি ঢলে অনেক পুকুরের মাছ পানিতে ভেসে গেছে।
মুরাদপুর ইউনিয়নের গুলিয়াখালী এলাকার প্রবীণ কৃষক মোঃ আইয়ুব আলী বলেন, বৈশাখ মাসের শেষে ১৬০ শতক জমিতে আউশ ধান ও ২শ’ শতক জমিতে সবজি তিতকরলা, ক্ষিরা ও শশা লাগিয়েছি। কিন্তু এখানকার নিম্নাঞ্চলের বেড়িবাঁধের ¯øুইচ গেইট দীর্ঘদিন ধরে অকেজো হয়ে পড়ায় প্রতিবছর কৃষির উপর নির্ভরশীল কৃষি পরিবারগুলো বার বার ক্ষতির শিকার হচ্ছেন।
মুরাদপুর স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদ হোসেন নিজামী বলেন, টানা বৃষ্টিতে ও পাহাড়ি ঢলের পানিতে জমির ফসল ও পুকুরের বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ভেসে গেছে। এতে প্রায় ৩০ কোটি টাকার অধিক ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি জানান।
এদিকে সমুদ্রের সাথে সংযুক্ত অধিকাংশ খাল ও ¯øুইচ গেইট দীর্ঘদিন ধরে সংষ্কার না হওয়ায় পাহাড়ি ঢলের পানিতে ভরাট হয়ে গেছে। উপজেলা কৃষি অফিসার সুশান্ত সাহা জানান, বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে ১৪ হেক্টর আউশ ধানের চারা ও ১শ’ হেক্টর সবজি এবং ৫০ হেক্টর আমন ধানের বীজতলা নষ্ট হতে পারে। পানি নেমে গেলে সঠিক ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ জানা যাবে।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর