Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

পনের ও একুশে আগস্টের হামলা একই সূত্রে গাঁথা -তোফায়েল আহমেদ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ আগস্ট, ২০১৭, ১২:০০ এএম

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, যারা দেশের স্বাধীনতার বিরোধীতা করেছিল তারাই ১৫ আগস্ট ও ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা চালিয়েছে। প্রকৃতপক্ষে ১৫ ও ২১ আগস্টের হামলা একই সূত্রে গাঁথা। খুনীরা ব্যক্তি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করলেও তার আদর্শকে তারা হত্যা করতে পারেনি।
গতকাল রবিবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে সতীর্থ-স্বজন নামে একটি সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত ‘একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা : মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিনাশের ধারাবাহিকতা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করার জন্য বার বার আক্রমণ চালানো হয়েছিল, চক্রান্তকারীরা সফল হয়নি। ষড়যন্ত্র শেষ হয়নি। এখনও চলছে। বঙ্গবন্ধু হত্যার পর জিয়াউর রহমান পাকিস্তানী ভাবধারায় দেশ পরিচালনা করেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদের প্রশ্রয় দিয়েছেন। দূতাবাসে চাকরি দিয়ে, সংসদে আইন করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার বন্ধ রেখে প্রমাণ করেছেন জিয়াউর রহমান এ হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত। তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের পবিত্র সংবিধানকে তছনছ করে দিয়েছেন। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার পরিকল্পনা হাওয়া ভবন থেকেই করা হয়েছিল। সেদিন বেশি দূরে নয়, যেদিন ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার হবে।
তোফায়েল বলেন, বাঙ্গালি জাতির মুক্তির জন্য বঙ্গবন্ধু ৪৬৭৫ দিন জেল খেটেছেন। বঙ্গবন্ধু দু’টি উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে সংগ্রাম করেছিলেন। একটি বাঙ্গালি জাতীর মুক্তি তথা দেশের স্বাধীনতা, অপরটি হলো দেশের মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তি অর্থাৎ সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করা। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু বাঙ্গালীদের জন্য স্বাধীন দেশ দিয়ে গেছেন, আজ তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের অর্থনৈতিক মুক্তি তথা সোনার বাংলা গড়ে তোলার কাজ সফলতার সঙ্গে করে যাচ্ছেন। দেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে ২০২১ সালে বাংলাদেশ হবে ডিজিটাল মধ্য আয়ের দেশ।
জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. শফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সুভাষ সিংহ রায়। পীযুষ বন্দোপধ্যায়ের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) একে মোহাম্মদ আলী শিকদার, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বলরাম পোদ্দার, আওয়ামী লীগের (ঢাকা দক্ষিণ) সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় আহত আওয়ামী লীগ কর্মী রুমা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তোফায়েল আহমেদ


আরও
আরও পড়ুন