Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
শিরোনাম

হবিগঞ্জ থেকে চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধারসহ আটক ১

বালাগঞ্জ, সিলেট থেকে | প্রকাশের সময় : ৩০ নভেম্বর, -০০০১, ১২:০০ এএম

সিলেটের ওসমানীনগরে গাড়ি চুরির হিড়িক পড়েছে। থানায় গাড়ি চুরির অভিযোগ এনে অর্ধশতাধিক সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। গাড়ির মালিকরা আছেন আতংকে। গত রোববার ওসমানীনগর থানা পুলিশ হবিগঞ্জ জেলা চুনারুঘাটে অভিযান চালিয়ে একটি মোটর সাইকেল উদ্ধার করে। এ সময় জাবেদ ভূইয়া (২৫) নামে এক যুবককেও আটক করা হয়। সে হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলার সীমান্তবর্তি গাজীপুর ইউনিয়নের আসামপাড়া গোবরখলা গ্রামের মুক্তার ভূইয়ার ছেলে।

জানা যায়, গত শনিবার একটি মোটর সাইকেলে চুরির মামলার তদন্ত করতে গিয়ে হবিগঞ্জের চুনারুঘাট স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামন থেকে একটি চোরাই মোটর সাইকেলসহ ও সন্দেহভাজন হিসেবে জাবেদ ভূইয়া (২৫) নামের এক কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থীকে আটক করেন ওসমানীনগর থানার এসআই মুহিবুল। আটকের পর তাকে মোটর সাইকেলসহ থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সে মোটর সাইকেল চুরির সাথে জড়িত বলে স্বীকার করে। এদিকে একই মোটর সাইকেল চুরির মামলার আটককৃত আসামী জাহাঙ্গীর ও টিপুকে এক দিনের রিমান্ডে আনা হলে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। গাড়ি চুরির রয়েছে একটি বিরাট চক্র। এদের আটক করতে পুলিশি তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে বলে থানার ওসি জানান।

প্রসঙ্গত, গত ২৭ জুলাই সন্ধ্যায় উপজেলার উমরপুর ইউনিয়নের বড়ইসবপুর গ্রামের বাসিন্দা ও গোয়ালাবাজারের ব্যবসায়ী হাজি শাহাব উদ্দিন শিকদার ওরপে গফ্ফার শিকদারের ব্যক্তিগত নামের হিরো মোটর সাইকেল ( নং- সিলেট হ ১২-২১৬৩) তার বাড়ির গ্যারেজ থেকে চুরি হয়। ৫ আগষ্ট সাইকেলের মালিক ব্যবসায়ী গফ্ফার শিকদার তার ব্যক্তিগত গাড়ী চালক জাহাঙ্গীর ও তার সঙ্গী টিপুকে আসামি করে থানায় মামলা ( নং ০৬) দায়ের করেন। ২০ আগস্ট তাদের রিমান্ডে আনা হলে তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক বেরিয়ে নানা তথ্য।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই মুহিবুল বলেন, মোটর সাইকেল চুরির মামলায় অভিযুক্ত আসামীদের দেয়া তথ্য মতে অভিযান চালিয়ে সাইকেলসহ একজনকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ সাইকেল চোরদের সিন্ডিকেট ধরতে তৎপর রয়েছে।

ওসমানীনগর থানার ওসি মোহাম্মদ সহিদ উল্যা বলেন, মোটর সাইকের চুরির মামলায় দু‘জনকে রিমান্ডে আনা হয়েছিল। তাদের তথ্যমতে আরেকজনকে চোরাই মোটর সাইকেলসহ আটক করা হয়েছে। গতকাল তাদের আদালতে চালান করা হয়েছে।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।