Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৭ মাঘ ১৪২৭, ০৭ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

দেশের মানুষ পরিবর্তন চায় -জাপা চেয়ারম্যান এরশাদ

৩শ’ আসনেই প্রার্থী চূড়ান্ত করা হচ্ছে

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ২৩ আগস্ট, ২০১৭, ১২:০০ এএম

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদ মহাজোট থেকে খুব শীঘ্রই বেরিয়ে আসার ইঙ্গিত দিয়ে বলেছেন- দেশের মানুষ পরিবর্তন চায়, নির্বাচনে জাতীয় পার্টি ছাড়া কোনো উপায় নেই। তাই আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩শ’ আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত হচ্ছে। গতকাল রংপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভা ও নীলফামারীতে এাণ বিতরণকালে তিনি এ কথা বলেন। এ সংক্রান্ত আমাদের সংবাদদাতাদের পাঠানো প্রতিবেদন-
হালিম আনছারী, রংপুর থেকে জানান, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদ মহাজোট থেকে খুব শীঘ্রই বেরিয়ে আসার ইঙ্গিত দিয়ে বলেছেন এবার আর মহাজোটে নয়, আগামী সংসদ নির্বাচনে এককভাবে নির্বাচন করবে জাতীয় পার্টি। এজন্য ৩শ’ আসনেই যাছাই-বাছাই করে প্রার্থী চ‚ড়ান্ত করা হচ্ছে। তিনি গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় কালে এসব কথা বলেন।
সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে কোন মন্তব্য না করে জাপা চেয়ারম্যান বলেন, এবারের ভয়াবহ বন্যায় সরকার বানভাসী মানুষদের রক্ষায় তেমন কোনও পদক্ষেপ নেয়নি। তবে জাতীয় পার্টি বানভাসী মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছে। সাধ্যমত ত্রাণ দেয়ার চেষ্টা করছে। রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয়ভাবে কোনও মেয়র প্রার্থী দেবে না বলে আশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী দিলেও জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বিপুল ভোটে জয়ী হবে। তবে আশা করছি আওয়ামী লীগ কোনও প্রার্থী দেবে না।
পরে তিনি নগরীর জাহাজ কোম্পানী মোড়ে ইউনিয়ন ব্যাংকের ৬২ তম শাখার উদ্বোধন করেন। এসময় তিনি বলেন, খুব কম সময়ের মধ্যেই রংপুরে গ্যাস আসবে। প্রধানমন্ত্রীর সাথে এনিয়ে আমার কথা হয়েছে। এজন্য সমীক্ষার কাজও শুরু হয়ে গেছে। এরশাদ বলেন, আমরা আর অবহেলিত এবং পিছিয়ে থাকতে চাইনা। ধান সবজিসহ খাদ্যে উদ্বৃত্ব অঞ্চল আমাদের এই অঞ্চল, তবুও কেন আমরা পিছিয়ে থাকব? গ্যাস না থাকায় এখানে শিল্প কলকারখানা গড়ে উঠেছে না। এ কারণে বেকার সমস্যা অনেক। এই বেকার সমসা দুর করতে হলে শিল্প কলকারখানা গড়ে তোলার কোন বিকল্প নেই।
সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ বলেন, আমি ক্ষমতা ছেড়ে দেওয়ার পর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় গিয়ে সিরাজগঞ্জ পর্যন্ত গ্যাস নিয়ে এলো। এরপর বিএনপি সরকার এসে বগুড়া পর্যন্ত গ্যাস দিয়েছে। বর্তমান রাষ্ট্র ক্ষমতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি রংপুরের পুত্রবধূ। আমি রংপুরের ছেলে। আমি প্রধানমন্ত্রীকে বলেছি বগুড়া থকে নীলফামারী উত্তরা ইপিজেড পর্যন্ত যাতে গ্যাস আসে সে ব্যবস্থা করার জন্য। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বগুড়া থেকে উত্তরা ইপিজেড পর্যন্ত গ্যাস নিয়ে আসার সমীক্ষার কাজ শুরু হয়েছে। খুব দ্রুতই রংপুরে গ্যাস আসবে। গ্যাস এলে রংপুরে শিল্প কারখানা গড়ে উঠবে। এতে অনেক বেকারের কর্মসংস্থান হবে। বেকার সমস্যা আর থাকবে না।
ইউনিয়ন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওমর ফারুকের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ আব্দুল¬াহ মোঃ সালেক, রংপুর শাখার ব্যবস্থাপক কাজী শাহী নুর আলম, রংপুর চেম্বারের সাবেক সভাপতি আবুল কাশেম, চেম্বারের ভাইস প্রেসিডেন্ট মঞ্জুর আহমেদ আজাদ প্রমুখ। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রাইম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. আক্কাস আলী, বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা. আবু তালেব, রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাসহ বিভিন্ন স্তরের ব্যবসায়ী ও সুধিজন।
উল্লেখ্য, দুদিনের সফরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ গতকাল মঙ্গলবার বিমানে ঢাকা থেকে সৈয়দপুরে আসেন। সেখানে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান জাতীয় পার্টি রংপুর মহানগর শাখার সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা। এরপর মোটর শোভা যাত্রাসহকারে তাকে রংপুর সার্কিট হাউসে নিয়ে আসা হয়। সার্কিট হাউসে তিনি স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময় করেন।
নীলফামারী সংবাদদাতা জানান, জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ বলেছেন, আগামী নির্বাচনে দেশের মানুষ আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে ক্ষমতায় দেখতে চায় না। তাই ওই নির্বাচনে জাতীয় পার্টি ছাড়া কোনো উপায় নেই। তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে ৩শ’ আসনে প্রার্থী দেওয়ার চিন্তাভাবনা নিয়ে জাতীয় পার্টি এগিয়ে যাচ্ছে।
গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরে নেমে রংপুর যাওয়ার পথে নীলফামারীর সৈয়দপুরের কামারপুকুর কলেজ মাঠে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা জাপার আহবায়ক আলহাজ্ব শওকত চৌধুরী এমপি ,দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য মেজর (অব:) খালেদ আকতার, জাতীয় ছাত্র সমাজের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল দিদার দিপু সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এরশাদ বলেন, আগামি নির্বাচনে জাতীয় পার্টি এককভাবে নির্বাচন করবে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার জনপ্রিয়তা হারিয়ে ফেলেছে আর বিএনপি ক্ষয়িষ্ণু দলে পরিণত হয়েছে। তাই জাপা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। রাষ্ট্রপতি থাকা অবস্থায় পানি মাড়িয়ে বন্যার্ত মানুষের ত্রাণ বিতরণ করেছেন। দেশের মানুষ তা ভুলে যায়নি। বন্যা কবলিত এলাকায় ত্রাণ অপ্রতুল অভিযোগ করে তিনি বলেন, সরকারকে বন্যা কবলিত মানুষের ত্রাণের পাশাপাশি তাদের পূণর্বাসন করতে হবে। ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে আদালতের রায় নিয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি।
অনুষ্ঠানে বন্যার্ত ১ হাজার পরিবারের প্রত্যেককে ৫ কেজি চাল, আলু ৩ কেজি, মসুর ডাল ১ কেজি, নারীদের শাড়ি ও পুরুষদের মাঝে লুঙ্গি বিতরণ করেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাপা চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: এরশাদ

১০ অক্টোবর, ২০১৯
৩১ আগস্ট, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ