Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

রোহিঙ্গা ইস্যুতে সহিংসতা ও জঙ্গি কার্যক্রম রোধে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি -মনিরুল ইসলাম

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

রোহিঙ্গা ইস্যুতে রাজনৈতিক সহিংসতা, জঙ্গি কার্যক্রম বা দেশে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি রোধে বাংলাদেশের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো তাদের নজরদারি আরো বাড়িয়েছে। এ ছাড়া মিয়ানমারের আরাকান রাজ্যে নির্যাতিতদের মধ্যে যারা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, তারা যেন কোনো ধরনের বিচ্ছিন্নতাবাদে জড়িয়ে না পড়ে, সে ব্যাপারেও নজর রাখছে সংস্থাগুলো।
গতকাল শনিবার ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেররিজমের প্রধান মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ কথা বলেছেন।
তিনি বলেন, এই সময়ে (রোহিঙ্গা ইস্যু) কেউ উগ্রবাদী অপতৎপরতা চালাচ্ছে কি না- তা আমরা নজরদারি করছি। কারণ এই ইস্যুকে কাজে লাগিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করা বা ঝিমিয়ে পড়া জঙ্গিরা আবারও তৎপর হতে পারে।
সরকার তাদের প্রতি মানবিক। তবে আমাদের লক্ষ হলো তাদের যেন কেউ জঙ্গিবাদে কাজে লাগাতে না পারে। এমনকি জঙ্গিরা যেন সক্রিয় হতে না পারে সে বিষয়ে আমাদের নজর রয়েছে,’ বলেন মনিরুল ইসলাম।
এর আগে শুক্রবার রাতে ঢাকার নিকুঞ্জ ও খিলক্ষেত এলাকা থেকে নাঈম আহমেদ ওরফে আনাস ওরফে আবু হামজা ওরফে আরিশা কুনিয়া ও আনোয়ার হোসেন নামে নব্য জেএমবির দুই সদস্যকে েেগ্রফতার করেছে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৩০টি ডেটোনেটর ও উগ্রবাদী মতাদর্শের বেশ কিছু বই উদ্ধার করা হয়।
গ্রেফারকৃত জঙ্গিদের বিষয়ে মনিরুল ইসলাম জানান, তারা নব্য জেএমবির সক্রিয় সদস্য। নাঈম আহমেদ ২০১৫ সালে বাশারুজ্জামান ওরফে চকলেটের সঙ্গে একটি বেসরকারি আইটি কোম্পানিতে চাকরি করতেন। দুজন একই সঙ্গে নব্য জেএমবিতে যোগ দেন। আনোয়ার সাভারের হেমায়েতপুরে একটি মোটর গ্যারেজের মালিক। ২০১৫ সালে তিনি কথিত মাস্টারের মাধ্যমে দাওয়াত পান। তার সঙ্গে নব্য জেএমবির সারোয়ার জাহান মানিক, রিপন, নোমান, আল-বানী, ডনদের যোগাযোগ ছিল। নব্য জেএমবির শুরা সদস্যদের পরামর্শে গাড়ি হামলার জন্য তিনি তার গ্যারেজে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেন।
এদিকে মিরপুরে র‌্যাবের অভিযানে নিহত জঙ্গি আব্দুলাহর বিষয়ে প্রশ্ন করলে মনিরুল ইসলাম বলেন, তার বিষয়ে র‌্যাব অনেক তথ্য দিয়েছে। এর পর আর কিছু বলা সমীচীন হবে না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রোহিঙ্গা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ