Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌
শিরোনাম

সংসদে স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাড়ে ১৩ হাজার লোক চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

দেশের বিভিন্ন জেলার সিভিল সার্জন ও মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল হতে প্রাপ্ত সম্ভাব্য চিকুনগুনিয়া রোগীর সংখ্যা ঢাকাতে ১৩ হাজার ৩৯৪ জন। ঢাকা সিটি করপোরেশন ব্যতিত সারা দেশে ১৮৫ জন, সর্বমোট ১৩ হাজার ৫৭৯ জন। চলতি বছরের ৪ মাসে আইইডিসিআর-এ প্রাপ্ত রক্তের নমুনা পরীক্ষায় চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা সর্বমোট ৯৮০ জন। তবে এ রোগে আক্রান্ত হয়ে কোন লোক মারা যায়নি।
ডেপুটি স্পিকার এ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে গতকাল সংসদ অধিবেশনে টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকার দলীয় সদস্য সেলিম উদ্দিনের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এ তথ্য জানান।
মমতাজ বেগমের প্রশ্নের লিখিত জবাবে মোহাম্মদ নাসিম জানান, বিশ্বে যে সব দেশে কম ওজন নিয়ে জন্ম নেয়ার শিশুর হার বেশি, বাংলাদেশ তার অন্যতম। তা প্রতিরোধে বর্তমান সরকার ২০১৩ সালের জুলাইয়ে ঘোষিত এ প্রমিজন রিনিউ-এ শিশু বেঁচে থাকার অধিকার সংরক্ষণে ১৩টি মাতৃ ও শিশু স্বাস্থ্য এবং নবজাতক কৌশল গ্রহণ করেছে। ক্যাঙারু মাদার কেয়ার (কেএমসি)- এ ১৩টি কৌশলগুলোর একটি।
অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, দেশের প্রতিটি নাগরিকের স্বাস্থ্য উপাত্তভিত্তিক একটি ইলেট্রনিক তথ্য ভান্ডার গড়ে তোলার জন্য গ্রাম পর্যায়ে বসবাসকারী সকল নাগরিকের তথ্য সম্বলিত ডাটাবেজ তৈরির কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন এই ডাটাবেইজভিত্তিক লাইফ টাইম শেয়ার পোর্টেবল সিটিজেনস ইলেকট্টনিক হেলথ কার্ড তৈরির কাজ চলছে। তিনি জানান, সিভিল রেজিস্ট্রেশন এ্যান্ড ভাইটাল স্টাটিকস নামে একটি আন্তর্জাতিক উদ্যোগের আওতায় বর্তমানে জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন, ইলেকশন কমিশন ভোটার ডাটাবেইজ, স্বাস্থ্য ডাটাবেইজ এবং নির্মিয়মান দারিদ্র্য ডাটাবেইজসমূহ সম্বলিত করে আঙ্গুলের ছাপ ও রেটিনার ছবিযুক্ত ন্যাশনাল ইলেকট্টনিক পপুলেশন রেজিস্টার তৈরির কাজ চলছে।
আলী আজমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, স্বাস্থ্য বিভাগের সরকারি স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে এমবিবিএস ডাক্তারের অনুমোদিত পদ সংখ্যা ২৪ হাজার ৪৫৭টি এবং বর্তমানে কর্মরত ডাক্তারের সংখ্যা ২০ হাজার ২২৭টি। তিনি জানান, দেশে মোট ৩২টি সরকারি, ৬৩টি বেসরকারি এবং আর্মফোর্সেস মেডিকেল কলেজ মিলিয়ে মোট ১০০টি মেডিকেল কলেজ চলমান। এসব মেডিকেল কলেজে ৭ হাজার ২০১টি এবং বাংলাদেশ আর্মি নিয়ন্ত্রিত ৬টি মেডিকেলে ৩৫০টি এমবিবিএস আসন আছে। অর্থাৎ মোট এমবিবিএস আসন সংখ্যা ১০ হাজার ৮৪৭টি।
মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, দেশে ডায়াবেটিক ও কিডনি রোগের সংখ্যা বহু গুণে বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমনে দেশের প্রতিটি সরকারি হাসপাতালেই ডায়াবেটিক রোগীদের স্বল্পমূল্যে চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে। সরকারিভাবে জাতীয় কিডনি ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজি হাসপাতালে কিডনি রোগীদের ডায়ালাইসিসসহ উন্নত চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে। এছাড়া দেশে সকল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কিডনি ডায়ালাইসিস সেবা চালু আছে। পর্যায়ক্রমে জেলা সদর হাসপাতালে ডায়ালাইসিস সেবা চালু করা হবে।##

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ