Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৬ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

টিআরপি রেটিংয়ে প্রথম সারিতে বৈশাখী টিভি

| প্রকাশের সময় : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

দুলাল খান: বৈশাখী টিভি এখন দর্শকপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করছে বলে টিআরপি রিপোর্ট থেকে জানা গেছে। এবারের ঈদেও এ চ্যানেলটি এ সাফল্য ধরে রেখেছে। ৭ দিনের ঈদ আয়োজন ছিল চোখে পড়ার মতো। ৭টি একক নাটক আর ৩টি ধারাবাহিকসহ সব অনুষ্ঠানই দারুণ প্রশংসা কুড়িয়েছে দর্শকদের। এ সাফল্যের নেপথ্য কারিগর হলেন বৈশাখী টিভির উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক টিপু আলম। তার সুচিন্তিত পরিকল্পনার কারণেই দেশীয় অনেক চ্যানেলকে পেছনে ফেলে শীর্ষে উঠে এসেছে চ্যানেলটি। এ প্রসঙ্গে টিপু আলম বলেন, চলতি ২৯ থেকে ৩৪তম এই ৬ সপ্তাহের মধ্যে টিআরপি রিপোর্টে বৈশাখী টিভি ৩ বার প্রথম, ১ বার দ্বিতীয় এবং ২ বার চতুর্থ হয়। আমরা জানি, টিআরপি একটা বিষয় কিন্তু আমরা আমাদের স্ক্রীণ সাজাই দর্শক চাহিদার কথা চিন্তা করে। যে করেই হোক তারা যাতে সেরা বিনোদনটা উপভোগ করতে পারে আমাদের দৃষ্টি সেদিকে থাকে। এ অর্জন বৈশাখী টিভির কর্মকর্তা, কর্মচারিসহ সংশ্লিষ্ট সবার। আমার একার কৃতিত্ব নয়, সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টার কারণেই আমরা এতদূর আসতে পেরেছি। এ সাফল্য আমরা অব্যাহত রাখতে চাই আগামীতেও। তিনি বলেন, আমাদের মূল লক্ষ্য আসলে বিদেশি চ্যানেলগুলোর আগ্রাসনের বিরুদ্ধে। দর্শকদের মাঝে সারা বছর বিদেশী চ্যানেলপ্রীতির যে আগ্রহ দেখি, ঈদে কিন্তু তেমনটা দেখা যায় না। ঈদে তাদের সব আগ্রহ থাকে আমাদের দেশীয় চ্যানেলকে ঘিরেই। ঈদের মতো সারা বছরই যদি আমরা দর্শক চাহিদার কথা চিন্তা করে অনুষ্ঠান নির্মাণ করি তাহলেই কেবল দেশীয় চ্যানেলের প্রতি তাদের আগ্রহী করে তোলা সম্ভব। এ ব্যাপারে সব চ্যানেলকেই উদ্যোগী হতে হবে। যে করেই হোক দর্শকদের ফিরিয়ে আনতে হবে, আমাদের চ্যানেলমুখী করতে হবে। আর যে কোনভাবে এটা করা গেলে আমাদের প্রচেষ্টা স্বার্থক হবে। ঈদুল আযহার অনুষ্ঠান নিয়ে তিনি বলেন, নাটক নির্মাণের ক্ষেত্রে আমরা সিনিয়র দক্ষ নির্মাতার পাশাপাশি নবীন মেধাবী নির্মাতাদেরকেও প্রাধান্য দিয়েছি। এসব নাটকে অভিনয় করেন দেশের খ্যাতনামা সব তারকা শিল্পী। তাদের প্রাণবন্ত অভিনয় ছিল মুগ্ধ করার মতো। চলচ্চিত্র বাচাইয়ের ক্ষেত্রেও অনেক সচেতন থেকেছি আমরা। নতুন পুরনো মিলিয়ে ৭দিনে প্রচারিত হয় ১৪টি সিনেমা। ঈদে দর্শকদের সেরা বিনোদনটা দিতে চেষ্টার কমতি ছিল না আমাদের, তাদের চাহিদা কিছুটা হলেও পূরণ করতে পেরেছি বলেই তারা বৈশাখী টিভির প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠেছে। দর্শকদের ভালোবাসা নিয়ে এভাবেই এগিয়ে যেতে চাই আমরা। আমাদের বিশ্বাস আমরা তা পারব। কারণ, বৈশাখী টিভিই একমাত্র চ্যানেল যারা এখন পর্যন্ত দেশীয় কৃষ্টি কালচার ছাড়া ভিনদেশী ডাবিংকৃত কোন সিরিয়াল প্রচার করেনি এবং ভবিষ্যতেও করবে না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।