Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

মিয়ানমারে হস্তক্ষেপ না করার আহ্বান রাশিয়ার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১০:১৩ এএম | আপডেট : ৩:১৭ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কোনো দেশকে হস্তক্ষেপ না করার আহ্বান জানিয়েছে রাশিয়া। রোহিঙ্গা সংকটকে দেশটির অভ্যন্তরীণ বিষয় বলেও উল্লেখ করেছে তারা। শুক্রবার রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের উদ্যোগ শুধু ধর্মীয় উত্তেজনা বাড়িয়ে দিতে পারে।

মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভাকে উদ্ধৃত করে রুশ বার্তা সংস্থা তাস জানিয়েছে, এটা মনে রাখা দরকার যে, একটি সার্বভৌম দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার ইচ্ছা কেবল আন্তঃধর্মীয় বিরোধ বাড়িয়ে দিতে পারে।

রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলছেন, মিয়ানমারে সংকট সমাধানে ধর্মীয় নেতাদের আলোচনার উদ্যোগ এগিয়ে নেওয়ার পক্ষে মস্কো। এক্ষেত্রে মিয়ানমারের বহু জাতিগোষ্ঠীর মুসলিম কমিউনিটিকে প্রতিনিধিত্বকারী শীর্ষস্থানীয় সংগঠনগুলোর যৌথ বিবৃতিকে আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি, যারা ওই এলাকায় (রাখাইন) সশস্ত্র কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, আমরা সরকারের প্রতি সমর্থন জানাচ্ছি এবং ওই ধর্মের অনুসারীদের প্রতি উগ্রপন্থীদের উসকানিতে ঝাঁপিয়ে না পড়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনানের নেতৃত্বাধীন কমিশনের সুপারিশ ‘বাস্তবায়নে’ মিয়ানমারের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে মস্কো।



 

Show all comments
  • তারেক মাহমুদ ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১২:১৯ পিএম says : 0
    অবশ্যই জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ করা উচিত
    Total Reply(0) Reply
  • Isharot ali ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১২:৫৭ পিএম says : 2
    বিশ্ব সংস্থাগুলোর উচিত মিয়ানমার সংকট নিরসনে জরুরী পদক্ষেপ গ্রহন করা।
    Total Reply(1) Reply
    • B.Chakma ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৩:০০ পিএম says : 0
      Yes.
  • জাহিদ সিদ্দিকী ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১:০৩ পিএম says : 0
    UN কি কিছুই দেখছে না.....?? ???
    Total Reply(0) Reply
  • Md Habibur Rahman ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৪:৫৫ পিএম says : 1
    যখন একটা জাতীর উপর গণহত্যা চালিয়ে, নারী শিশুকে হত্যা করে সেটা কোন দেশের আভ্যন্তির বিষয় হতে পারে না।
    Total Reply(1) Reply
    • Kamruzzaman ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৩:০২ পিএম says : 0
      Yes.
  • তামান্না ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৪:৫৬ পিএম says : 1
    এ গ্রোবালাইজেশনের যুগে আভ্যন্তরিন বিষয় বলাটা হলো সন্ত্রাসকে উসকে দেয়া আর পুজিবাদীদের সম্পদ সংগ্রহে সহায়তার শামিল।তোমাদের এ যুক্তিকে ঘৃনা করি।বন্ধ কর এ গণহত্যা।বাচতে দাও একটা জাতীকে।
    Total Reply(0) Reply
  • শাহজাহান।খান ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৫:১২ পিএম says : 2
    আমি বাংলাদেশের সন্তান।তাই বলে আমি।কিছু বলতে চাই বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রকাশিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন যে আমাদের এই আছে সেই আছে। আসলে।আমি বলবো।বাংলাদেশ।কিছু নেই
    Total Reply(0) Reply
  • আব্দুল কাইয়ূম চৌধুরী ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৬:০৮ পিএম says : 0
    অন্যদেশের আভ্যন্তরীন ব্যাপারে যেকোনভাবে হস্তক্ষপ করার নীতি বংলাদেশের নয় বলেই জানি। কিন্তু মিয়ানমার তাদের দেশের লক্ষ লক্ষ নাগরিককে জোর পূর্বক বাংলাদেশে পাঠিয়ে আমাদের অশান্তি শৃষ্টি করছে। তারা কেন আমাদেরআভ্যন্তরীন শান্তি শৃংখলা ভঙ্গ করবে?
    Total Reply(0) Reply
  • ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১০:২১ পিএম says : 1
    রাশিয়ানরা ভেবে চিন্তে কথা বলো কপালে জোতা জারু অপেক্ষা করছে
    Total Reply(0) Reply
  • মোহাম্মদ জাকি উল্লাহ ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১০:৩২ পিএম says : 0
    এ গ্রোবালাইজেশনের যুগে আভ্যন্তরিন বিষয় বলাটা হলো সন্ত্রাসকে উসকে দেয়া আর পুজিবাদীদের সম্পদ সংগ্রহে সহায়তার শামিল।তোমাদের এ যুক্তিকে ঘৃনা করি।বন্ধ কর এ গণহত্যা।বাচতে দাও একটা জাতীকে।
    Total Reply(0) Reply
  • ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১২:১০ এএম says : 0
    মায়ানমারের ঘটনায় ইন্দন দিয়েছে রাশিয়া, রোহিং্গা নির্যাতনের দায় রাশিয়া কে নিতে হবে
    Total Reply(0) Reply
  • M.A.Bari ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৫:৩৯ পিএম says : 0
    WHERE RUSSIA CAN VETO ? IF U.N.SECURITY COUNCIL NOT EXIST ? ------------------------------------------------------------------------------------------ Russia is friend of Bangladesh, Russia help us with all sort of situation during our liberation war and now is the real time to judge & verify ground of its genuine support, we want good relationship with all country of the world based on honesty and lawfully, we want Russia should support us as friend, we do not want any illegal support from any country, But Russia can not support illegally any country including Myanmar, because they (Russia) have business with Myanmar, and therefore, would support illegally Myanmar, Russia is a super power and permanent member of the U.N security council and it has veto power, but Russia should not use its power at unjustifiable way, because they have interest of business relationship with Myanmar, Russia should judge the marital & motive of the case to use it power. Special where humanity is in questions, thousands are killing & dislocating, Russia should use its power for peace and stability of the world, Russia should thing if all super powers are follows their own business and self-interest, may result one day will not be important to universe, will not required or essential for all smallest countries like Bangladesh. warning: If Russia & all super powers does not use its valued positional power at right order in the U.N. Security council and to support Myanmar just for business reasons then the U.N. Security Council is nothing but a house of business compromises & bribes centre only, if it goes thus, the U.N. Security Council may become null and ineffective its Organizational functions soon, and also the organisations will destroy its credibility's at near future. We do not want Russia or any country support us illegally & immorally but we & the world want, all super power follow ground of legal motivation, legal grounds of realty, while they use their veto power in motions of very important decisions, and its also including RUSSIA.
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ আজিজ হাসান ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৫:৪৫ পিএম says : 0
    যুদ্ধ্ব অবশ্যম্ভাবি। শক্তি ছাড়া কেউ সমীহ করবেনা। কথাটা মনে থাকা উচিৎ।
    Total Reply(0) Reply
  • Shamim ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৮:৫১ এএম says : 0
    Jhara dusi thaderke cinnito kore sasti dik,oita obbontorin bisoy. Ghono hotta dhorson griho bari jalie dewa.jhati goto nirmul.oyta obbontorin bisoy hote parena. Shob sihaler uri akta
    Total Reply(0) Reply
  • মাও এখলাস উদ্দীন পাটয়ারী ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৯:১২ পিএম says : 0
    রাশিয়ায় মানবাধিকার বলতে কিছুই নাই।ওরা মানবাধিকার কাহাকে বলে কি বুঝে না? ওরাই বিশ্ব সন্ত্রাসের নায়ক।ওদের কে কি মানুষ বলা যায়? বিশ্বে সন্ত্রস স্রষ্টি করতে পারলে তাহাদের অস্ত্র ব্যবসা ভাল হবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।