Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

দৈনিক ইনকিলাব বন্ধের সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করা হবে-আলহাজ হাফিয সাব্বির আহমদ

ইনকিলাবকে নিয়ে ষড়যন্ত্র ও অফিসে হামলার প্রতিবাদে যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন স্থানে ক্ষোভ ও প্রতিবাদ

লন্ডন প্রতিনিধি : | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকার বিরুদ্ধে করা সকল ষড়যন্ত্র, কুমন্ত্র নস্যাৎ ও প্রতিহত করা হবে। ইনকিলাবের শুভাকাক্সক্ষী, পাঠক ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা ইনকিলাবকে টিকিয়ে রাখতে সকল প্রকার সহযোগিতা ও ঝুঁকি নিতে প্রস্তুত রয়েছেন। গতকাল সোমবার যুক্তরাজ্যের বার্মিংহাম, কভেন্ট্রি ও আবাডিন শহরে দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকার পাঠক ও শুভানুধ্যায়ীরা পৃথক আলোচনা সভায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন। ইনকিলাবকে নিয়ে অব্যাহত ষড়যন্ত্র বন্ধ করার ফল ভালো হবে না বলেও তারা হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।
তারা বলেন, ইনকিলাব কোন অখ্যাত, আদর্শহীন পত্রিকা নয় যে কজন মিলে সমাবেশ করেই ইনকিলাবের প্রকাশনা বন্ধ করে দেবেন। এদেশের ষোল কোটি মানুষের আস্থা ও বিশ্বস্থতার মুখপত্র দৈনিক ইনকিলাব। মাওলানা এম এ মান্নান সাহেবের হাত ধরে প্রকাশিত এ পত্রিকাটি যুগ যুগ ধরে বাংলা ভাষাভাষি পাঠকদের মনের খোরাক জুগিয়ে আসছে। ইনকিলাবের কাছে যদি পেশাদারি কোন দেনা-পাওনা এর কর্মকর্তা, কর্মচারীদের থাকে তাহলে তা গঠনতান্ত্রিক নিয়মে মিটমাট হোক তা আমরাও চাই। কিন্তু এ বিষয়কে কেন্দ্র করে কেউ কু-রাজনীতি বা অপরাজনীতি করলে এর খেসারত দিতে হবে চরমভাবে। আমরা চাই অফিসিয়াল বিষয় অফিসিয়ালভাবেই সমাধান হোক। যদি একে নিয়ে ষড়যন্ত্র পাকানো হয় তাহলে তা হবে বিরাট ভুল। এসব সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন আনিছ আহমদ, খালিছ মিয়া, মো. মুজাহিদ খান, মো. গোলাম কিবরিয়া, মো. রেজাউল হক, মো. নাজিম উদ্দিন, হাফিয রুহুল আমিন প্রমুখ।
আলহাজ হাফিয আহমদের বিবৃতি : সিলসিলা ইসলামিক সোসাইটি ইউকের পরিচালক আলহাজ হাফিয সাব্বির আহমদ এক বিবৃতিতে বলেন, ইনকিলাব কোন কাচের গøাস নয় যে একে ছুড়ে ভেঙেচুরে ফেলা হবে। এর ভিত্তি অনেক মজবুত। এর শিকড় অনেক গভীরে প্রোথিত। ইনকিলাবের সুসময়ে যারা একে ধোয়ে পানি খেয়েছেন আজ তারাই ইনকিলাব বন্ধের ষড়যন্ত্র করছেন। কিন্তু ষড়যন্ত্রের ফল সবসময় শুভ হয় না। ইনকিলাবের চাকুরী ছেড়ে দেওয়া ও চাকুরীচ্যুত সাংবাদিকরা দেনা-পাওনা আদায়ের নামে পত্রিকা অফিসে যে হামলা ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছেন তা ন্যাক্কারজনক। এটা অন্তত জাতির বিবেক সাংবাদিকদের আচরণ হতে পারে না। তা কলঙ্কজনক। আমরা বুঝতে পারছি এর পেছনে ভিন্ন কিছু কাজ করছে। কিন্তু এসব করে কোন ফায়দা আসবে না। ইনকিলাবকে ষড়যন্ত্রের শিকার বানিয়ে কোনকালে কেউই লাভবান হয়নি। দৈনিক ইনকিলাব বন্ধের সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করা হবে। ইনকিলাব সম্পাদক এ এমএম বাহাউদ্দিন ও ইনকিলাবের পেছনে লেগে কেউই সফল হননি। যারা দাবি আদায়ের নামে নৈরাজ্য ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছেন তারা নিয়মের ভেতরে আসুন। ষড়যন্ত্র করবেন না। এখনো ইনকিলাবের যে পাঠকগোষ্ঠী ও শুভানুধ্যায়ী রয়েছেন তারা যদি একবার হুংকার ছাড়েন, রাজপথে নেমে আসেন তাহলে পরিনতি হবে ভয়াবহ।
আলহাজ মো. জসিম উদ্দিনের বিবৃতি : সিলসিলা ইসলামিক সোসাইটি ইউকের পরিচালক, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও শিল্পপতি আলহাজ মো. জসিম উদ্দিন এক বিবৃতিতে বলেন, ইনকিলাব স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব ও ধর্মের প্রতি অনুরাগ নিয়ে যুগ যুগ ধরে ঠিকে আছে নিজস্ব স্বকীয়তায়। ইনকিলাবের দুঃসময়ে এই পত্রিকারই সাবেক চাকুরীজীবীরা যে আচরণ করছেন তা শুভনীয় নয়। অন্তত বেতন-ভাতার জন্য যারা অফিসে হামলা করেছেন তারা হীন মানসিকতার পরিচয় দিয়েছেন। ভিন্ন পথে হেটে কোন লাভ হয় না। সকল কিছুর সমাধান নিয়মতান্ত্রিকভাবে হোক তা আমরা চাই। হামলা-মামলা-নৈরাজ্য সুফল বয়ে আনে না। অগণতান্ত্রিক আচরণ ও নৈরাজ্য বন্ধ করুন। নতুবা আমরা ইনকিলাব পত্রিকাকে ঠিকিয়ে রাখতে সকল প্রকার ঝুঁকি নিতে প্রস্তুত রয়েছি।
আলহাজ মো. চন্দন মিয়ার বিবৃতি : সুমী মহসিনা অ্যাডুকেশন ট্রাস্টের চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও শিল্পপতি আলহাজ মো. চন্দন মিয়া বলেন, লক্ষ লক্ষ পাঠকের পত্রিকা দৈনিক ইনকিলাব অফিসে হামলা করলেন এই পত্রিকারই সাবেক সাংবাদিকরা। এটা অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক। তাদের এই ফৌজধারী আচরণবিধি মেনে নেয়া যায় না। এসব করে নৈরাজ্য সৃষ্টি করা ছাড়া আর কিছুই হবে না। ইনকিলাব তার আপন গতিতেই অব্যাহত থাকবে।
মাওলানা আবুল হাসানের বিবৃতি : ফুলতলী ইসলামিক সেন্টার কভেন্ট্রি ইউকের প্রিন্সিপাল মাওলানা আবুল হাসান এক বিবৃতিতে বলেন, দৈনিক ইনকিলাবকে নিয়ে কিছুদিন পরপরই ষড়যন্ত্র হয়। আখেরে যারা ষড়যন্ত্র করেন তারাই ক্ষতিগ্রস্থ হন- ইনকিলাব জিতে যায়। এবার অবশ্য ঘরের শত্রু বিভীষণ হয়ে আবির্ভূত হয়েছেন। তারাও ব্যর্থ হবেন। ইনকিলাবের প্রকাশনা অব্যাহত রাখতে ও ষড়যন্ত্রকারীদের মুখ বন্ধ করতে ইনকিলাবের জন্য সকল কিছু করা হবে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।