Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

অপ্রতিরোধ্য মেসির ৩০০

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

 

ছয়টি পরিবর্তন নিয়ে গেলপরশু রাতে দলকে মাঠে নামিয়েছিলেন এরনেস্তো ভালভার্দে। বেঞ্চে বসেছিলেন লুইস সুয়ারেজ ও ইভান রাকিটিচ। চোটের কারণে তো মাস চারেকের জন্য খেলার বাইরে চলে গেছেন উসমান ডেম্বেলে। মূল খেলোয়াড়দের বিশ্রামে রাখলেও লিওনেল মেসি খেলেছেন এইবারের বিপক্ষে। হয়তো এই মৌসুমে শুরু থেকেই তাঁর যে দুর্দান্ত ফর্ম, সেটিতে ছন্দপতন চাননি আর্জেন্টাইন তারকা। ছন্দপতন হয়ওনি। মৌসুমের দ্বিতীয় হ্যাটট্রিকটা পেয়ে গেছেন এদিন। একাই চার গোল করে দলকে এনে দিয়েছেন ৬-১ গোলের দুর্দান্ত জয়। মেসির খেলায় দর্শকেরা বারবার ফিরে গেছেন ২০০৮-০৯ মৌসুমে। সেই ক্ষুরধার মেসি, অপ্রতিরোধ্য বার্সা। পাসিংয়ে নিখুঁত, প্রতি-আক্রমণে দ্রæত আর ফিনিশিংয়ে নির্মম। এমন দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে দারুণ এক মাইলফলকও ছুঁয়েছেন মেসি। ক্যম্প ন্যুয়ে ৩০০তম গোল পেয়েছেন আর্জেন্টিনার এই ফরোয়ার্ড। ২০০৫ সালের ১ মে ক্যাম্প ন্যু’য়ে প্রথম গোলটি করেছিলেন মেসি। বার্সেলোনার মূল দলের হয়েও সেটা ছিল তার প্রথম গোল। আর এই দুর্দান্ত পথচলায় পাঁচবার তিনি চারটি করে গোল করেছেন। পাঁচটি গোল করেছেন একবার। এ মৌসুমে লিগে পাঁচ ম্যাচ খেলে ৯টি গোল করে গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে আছেন ৩০ বছর বয়সী মেসি। সব মিলিয়ে মৌসুমে ১৬ গোল।
শুরুটা দুর্দান্ত করেছিল এইবার। বার্সেলোনাকে কাঁপাতে চেয়েছিল। কাঁপিয়েওছিল। একা পেয়েও টের স্টেগানকে পরাভূত করতে পারেননি এইবার ফরোয়ার্ড সার্জি এনরিচ। ১০ মিনিটে আবারও এইবারের আক্রমণ, এবারে জাপানি অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার ইনুই। সেই ইনুই, যাঁর গোলে গেল মৌসুমে ক্যাম্প ন্যুতে বার্সাকে প্রায় হারিয়ে দিচ্ছিল এইবার। তবে এবার তেমন সুবিধা করতে দেননি বার্সা-গোলকিপার। ২০ মিনিটে বার্সা ডিফেন্ডার নেলসন সেমেদোকে ফাউল করেন আলেহান্দ্রো গালভেজ। পেনাল্টি থেকে মৌসুমে নিজের ৬ নম্বর গোলটা পেয়ে যান মেসি। ৩৭ মিনিটে ডেনিস সুয়ারেজের ক্রস থেকে হেড করে গোল করেন পাউলিনহো। অথচ, এই পাউলিনহোর ওপরই কেন যেন ঠিক আস্থা রাখতে পারছিল না বার্সা-সমর্থকেরা। তবে পাউলিনহো কিন্তু বহুদিন পর বার্সার মধ্যমাঠে শারীরিকভাবে শক্তিশালী এক ফুটবলার।
দ্বিতীয়ার্ধের ৮ মিনিটে বিদ্যুৎগতির এক প্রতি-আক্রমণে এইবারের রক্ষণ ছিঁড়ে ফেলেন মেসি। তিন ডিফেন্ডার যখন মেসির শট আটকাতে ব্যস্ত, তখন গোলরক্ষকের ঠেকিয়ে দেওয়া বলে কাছের পোস্টে গোল করেছেন ডেনিস সুয়ারেজ। বাঁ প্রান্তে অনেকটাই অপ্রতিরোধ্য ছিলেন বার্সার এই তরুণ ফরোয়ার্ড। চার মিনিট পর সফরকারীদের হয়ে এক গোল শোধ করেছিলেন এনরিচ। জুনকা রেনের ক্রস থেকে তাঁর ফিনিশিংটা ছিল দর্শনীয়। কিন্তু পাঁচ মিনিট পর আবারও মেসি-ঝলক। তিন ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে বল ঠেলেছেন পোস্টের বাঁ প্রান্তে। হ্যাটট্রিক পূর্ণ করতে আর মাত্র ১২০ সেকেন্ড সময় নিয়েছেন আর্জেন্টাইন জাদুকর। নিজেদের অর্ধে বল পেয়ে কাউন্টারে উঠেছেন দ্রæত। তারপর পাউলিনহোর সঙ্গে ওয়ান-টু করে দ্রæত শট নিয়েছেন। তিন ডিফেন্ডার আর গোলরক্ষক মিলেও শেষ রক্ষা হয়নি এইবারের। তবে ভাগ্যকে দুষতেই পারেন পেনা। তাঁর শটে বল গোললাইনের হাওয়া গায়ে লাগিয়েও পোস্টে যায়নি। এক মিনিট পরই বদলি খেলোয়াড় অ্যালেক্স ভিদালের ক্রস থেকে নিজের চতুর্থ গোল করেন লিও মেসি।
টানা পাঁচ জয়ে শীর্ষে থাকা বার্সর পয়েন্ট ১৫। চার ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে সেভিয়া। দিনের প্রথম ম্যাচে মালাগাকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দেওয়া ভালেন্সিয়া পাঁচ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয়। এক ম্যাচ কম খেলা রিয়াল সোসিয়েদাদের পয়েন্টও সমান ৯। চার ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ। গতরাতে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ফেরার ম্যাচে হয়ত ব্যবধান কিছুটা কমিয়েও এনেছে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মেসি

২৬ মে, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন