Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৭ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

দরপতনে ছুটির পর বাজার শুরু

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ৩ অক্টোবর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হওয়া সিংহভাগ প্রতিষ্ঠানের দরপতন হয়েছে। উভয় বাজারেই দর হারিয়েছে ৬৯ শতাংশ কোম্পানি। গত রোববার আশুরার ছুটি থাকায় ওইদিন শেয়ারবাজারে লেনদেন হয়নি।
গতকাল সোমবার সিংহভাগ প্রতিষ্ঠানের দরপতন হলেও ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স এবং সিএসইর সার্বিক মূল্য সূচক সিএসসিএক্স আগের দিনের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে। মূলত লেনদেন হওয়া ব্যাংক খাতে প্রতিষ্ঠানগুলোর দাম বাড়ায় এ সূচক বেড়েছে। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩০টি ব্যাংকের মধ্যেই ২৬টিরই শেয়ার দাম বেড়েছে। আর সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৯টির মধ্যে ২৬টির দাম বেড়েছে। ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে থাকা ২০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ব্যাংকই রয়েছে ১৮টি। আর দাম বাড়ার শীর্ষ দশ কোম্পানির মধ্যে ব্যাংক আছে সাতটি। ব্যাংকের এমন দাপটে এদিন ডিএসইর প্রধান মল্য সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে দশমিক ১১ পয়েন্ট। আর সিএসইর সার্বিক মূল্য সূচক সিএসসিএক্স বেড়েছে ১৭ পয়েন্ট। মূল্যসূচক বৃদ্ধির সঙ্গে ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ। তবে সিএসইতে লেনদেন কমেছে। ডিএসইতে লেনদেন বেড়ছে ৩০১ কোটি ৫ লাখ টাকা। আর সিএসইতে লেনদেন কমেছে ২৩৫ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, গতকাল সূচকের বড় উত্থানে ডিএসইতে লেনদেন শুরু হয়। লেনদেনের প্রথম ২৫ মিনিটে প্রধান সূচক ডিএসই্ক্স আগের দিনের তুলনায় ৪৬ পয়েন্ট কমে বেড়ে যায়। তবে এর পরেই নিম্নমুখী হয়ে পড়ে সূচক। টানা নিম্নমুখিতায় দুপুর ১২টায় ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ৭ পয়েন্ট কমে যায়। এরপর কয়েক দফা উত্থান-পতনের মাধ্যমে ডিএসইএক্স সামান্য বেড়ে লেনদেন শেষ হয়। দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় দশমিক ১১ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ৯২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। তবে কমেছে অপর দুটি সূচক। এর মধ্যে ডিএসই-৩০ সূচক দশমিক ৭৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ১৭৬ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিহ্ সূচক আগের দিনের তুলনায় ১০ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৩৩৪ পয়েন্টে। এর মাধ্যমে এই সূচক দুটির টানা দশ কার্যদিবস পতন হলো।
এদিন ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ২২৭টি বা ৬৯ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের দরপতন হয়েছে। অপরদিকে দাম বেড়েছে ৭৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৮টির দাম। লেনদেন হয়েছে ৯২৫ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ৬২৪ কোটি ৮৩ লাখ টাকা। সে হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ৩০১ কোটি ৫ লাখ টাকা।
টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে আমরা নেটওয়ার্কের শেয়ার। কোম্পানিটির ৭০ কোটি ৪৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা এক্সিম ব্যাংকের ৫৪ কোটি ১৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ৫৩ কোটি ৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইসলামী ব্যাংক। লেনদেনে এরপর রয়েছে- প্রিমিয়ার ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, উত্তরা ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক এবং ইউসিবি।
অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সিএসসিএক্স সূচক ১৭ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১ হাজার ৪২৯ পয়েন্টে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৫৬ কোটি ৮১ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২৩৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে ৫৪টির দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। অপরদিকে দাম কমেছে ১৬০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৯টির দাম।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দরপতন

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮
১০ নভেম্বর, ২০১৬
২৮ জুলাই, ২০১৬

আরও
আরও পড়ুন