Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৭, ০৯ কার্তিক ১৪২৪, ০৩ সফর ১৪৩৯ হিজরী

রোহিঙ্গা মুসলিমরা স্থানীয় নয় : মিয়ানমারের সেনাপ্রধান

ব্রিটিশ উপনিবেশের আগে থেকেই রোহিঙ্গারা রাখাইনে বাস করছে

| প্রকাশের সময় : ১৩ অক্টোবর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : মিয়ানমারের সেনাপ্রধান বলেছেন, রোহিঙ্গা মুসলিমরা স্থানীয় নয়। ব্রিটিশ উপনিবেশের সময় তাদের আনা হয়েছিল। দেশটির সেনাবাহিনী প্রধান ও সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তি সিনিয়র জেনারেল মিন অং হলাইং মিয়ানমারে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের কাছে এ কথা বলেছেন। মার্কিন রাষ্ট্রদূত স্টক মার্সিয়েল গতকাল বৃহস্পতিবার তার ফেসবুক পেজে রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে মিয়ানমার সেনাপ্রধানের এই বক্তব্য পোস্ট করেছেন। এর আগে তাদের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৌদ্ধপ্রধান মিয়ানমারের সবচেয়ে বেশি প্রভাবশালী ব্যক্তি সেনাপ্রধান মিন অং হলাইং। রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নাগরিক নয়- তার এই অপোষহীন অবস্থান রোহিঙ্গা সংকট সমাধানের পথে সবচেয়ে বড় বাধা। ব্রিটিশ উপনিবেশিক আমলে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে আনা হয় বলে যে দাবি করেছেন জেনারেল মিন অং, তা ঐতিহাসিকভাবে ঠিক নয়। নৃতাত্তি¡ক ও ইতিহাসবিদদের মতে, ব্রিটিশ উপনিবেশের বহু আগে থেকে রাখাইনে রোহিঙ্গারা বসবাস করছে। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সা¤প্রতিক সহিংসতার মুখে এরই মধ্যে ৫ লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে গেছে। সেনাপ্রধান মিন অং রোহিঙ্গাদের ‘বাঙালি’ বলে সম্বোধন করে বলেছেন, এই সমস্যার জন্য ব্রিটিশ উপনিবেশবাদীরাই দায়ী। বৈঠকের বিষয়বস্তু নিয়ে মার্সিয়েলের ফেসবুক পোস্টে সেনাপ্রধানকে উদ্ধৃত করা হয়েছে এভাবে, ‘বাঙালিদের এ দেশে মিয়ানমার আনেনি, ব্রিটিশ উপনিবেশবাদীরা তাদের এনেছে।’ সেনাপ্রধান আরো বলেছেন, ‘তারা স্থানীয় নয়, নথিপত্র থেকে প্রমাণ পাওয়া যায়, ঔপনিবেশিক আমলে তাদের বাঙালি বলে ডাকা হতো, রোহিঙ্গা নয়।’ গত বুধবার জাতিসংঘের মাবাধিকার কমিশন জানিয়েছে, মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী রাখাইন রাজ্যের উত্তরাঞ্চল থেকে বর্বরভাবে ৫ লাখের বেশি রোহিঙ্গাকে তাড়িয়ে দিয়েছে। তারা যেন ফিরে যেতে না পারে, সেজন্য তাদের ঘরবাড়ি, ফসলের ক্ষেত ও গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। আল-জাজিরা।

 


Show all comments
  • লাভলু ১৩ অক্টোবর, ২০১৭, ৩:৩৭ এএম says : 0
    মিয়ানমারের সেনাপ্রধানের কপালে মনে হয় দুঃখ আছে
    Total Reply(0) Reply
  • Sharif Ahmmed Sandwipi ১৩ অক্টোবর, ২০১৭, ১০:৪৬ এএম says : 0
    রোহিংগারা যদি বহিরাগত হয়ে থাকে তাহলে বার্মিজরাও বহিরাগত অথবা কোথায় হতে এসেছে? প্রশ্ন থেকে যায়।
    Total Reply(0) Reply
  • Ahmad Anam ১৩ অক্টোবর, ২০১৭, ১০:৪৬ এএম says : 0
    তাইলে কি এরা হাওয়া থেকে ভেসে এসেছে নাকি চাঁদের দেশ থেকে?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর