Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

ঢাবি ‘ক’ ইউনিট ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি ১২ জনকে দন্ড

সাংবাদিকদের ছবি সংগ্রহে বাধা

| প্রকাশের সময় : ১৪ অক্টোবর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

বিশ^বিদ্যালয় রিপোর্টার : ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির দায়ে ১২ জনকে আটক করেছে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন। আটকৃতদের ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে তাৎক্ষণিক ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয়া হয়। শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে পরীক্ষা চলে সকাল সাড়ে ১১টা পর্যন্ত। জালিয়াতির অভিযোগে আটক ১২ জনের ৪ জন বিশ^বিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে ও বাকি ৮ জনকে বাইরের বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে আটক করা হয়। বিশ^বিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ থেকে আল ইমরান, নুরে আলম আরিফ আর কাজী মোতাহার হোসেন ভবন থেকে আবু হানিফ নোমান ও উদয়ন স্কুল থেকে শাহ পরানকে আটক করা হয়।
অন্যান্য কেন্দ্র থেকে আটক মতিঝিল সরকারি বালিকা বিদ্যালয় থেকে শৌমিকা প্রতিচি সাত্তার, লালমাটিয়া মহিলা কলেজ কেন্দ্র থেকে আরিফা বিল্লাহ তামান্না, শেখ বোরহানুদ্দিন কলেজ থেকে আবুল বাশার ও নাহিদ হাসান কাউসার, আইডিয়াল কলেজ থেকে রাকিবুল ইসলাম ও খন্দকার সিরাজুল ইসলাম এবং আহমেদ বাওয়ানী একাডেমি থেকে তানভীর হোসাইন আহমেদ ও এস এম জাকির হোসাইন।
এদিকে ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির খবর সংগ্রহকালে উপস্থিত বেসরকারি টিভি চ্যানেল ‘নিউজ ২৪’ এর সাংবাদিক মাহমুদুল হাসানকে আটকদের ভিডিও ধারণ করতে বাধা প্রদান করেন প্রক্টর ও সহকারি প্রক্টররা। এ সময় সাংবাদিকদের সাথে উত্তেজিত হয়ে কথা বলতে থাকেন বিশ^বিদ্যালয়ের সহকারি প্রক্টর ও ফার্মেসী বিভাগের শিক্ষক লৎফুর কবির। তিনি এক পর্যায়ে উপস্থিত বিশ^বিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকদের আটকদের ছবি তুলতে বাধা দেন এবং তাদের দিকে তেড়ে আসেন। তিনি এ সময় বিশ^বিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকদের প্রতি নানা অশোভন বাক্য ছুড়ে দিয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের সাংবাদিকতার ইথিক্স শিখতে বলেন। সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার একপর্যায়ে প্রক্টর অফিসের কর্মচারি কর্মকর্তারা ঐ বেসরকারি টিভি চ্যানেলের সাংবাদিকের ক্যামেরা টানা হেঁচড়া করেন।
এ বিষয়ে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. এম আমজাদ আলী বলেন, এখানে দুই জন মেয়ে থাকার কারনে আমি তাদের ফুটেজ না নিতে অনুরোধ করেছি। কারন তারা আমাদের সন্তানের মতো। একটি মেয়ের ছবি মিডিয়াতে গেলে তার নানা সামাজিক সমস্যা মোকাবেলা করতে হতে পারে। এ সময় ঐ সাংবাদিক বলেন, স্যার আমি মেয়েদের ফুটেজ ধারণ করিনি। আপনি বাধা দেয়ার আগে আমাকে জিজ্ঞেস করতে পারতেন অথবা আগেই নিষেধ করতে পারতেন। তা না করে যে অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটলো তা আসলেই দুঃখজনক।
সাংবাদিকরা কেউ অপরাধী প্রমাণিত হওয়ার পর শাস্তিপ্রাপ্ত হলে তার ছবি প্রকাশ করতে কোন বাধা আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন সেক্ষেত্রে কোন বাধা নেই তবে এখানে আমি সামাজিক প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে তাদের ছবি নিতে নিষেধ করেছি। উদ্ভূত পরিস্থিতির জন্য সাংবাদিকদের কাছে তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, সাংবাদিকদের সাথে আমাদের সবসময় সু-সম্পর্ক বজায় ছিল এবং পারস্পরিক সহযোগিতা বিদ্যমান ছিল আছে থাকবে। অপরদিকে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন থেকে এ বছর মেটাল ডিটেক্টর স্থাপন করার পরও কিভাবে পরীক্ষার্থীরা ডিভাইস নিয়ে প্রবেশ করে এমন প্রশ্নের উত্তরে প্রক্টর আমজাদ আলী বলেন একসাথে অনেক শিক্ষার্থী প্রবেশ করার সময় তাদের সঠিকভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়ে ওঠেনা ফলে সে সুযোগটা নেয় তারা।
বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও ক্যাম্পাসের বাইরের মোট ৮৭টি কেন্দ্রে একযোগে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজারীবাগের লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউটসহ ক্যাম্পাসের বাইরের কেন্দ্রগুলো হলো- নীলক্ষেত হাই স্কুল, গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, ড. শহীদুল্লাহ কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, অগ্রণী স্কুল অ্যান্ড কলেজ, গভর্নমেন্ট টিচার্স ট্রেনিং কলেজ, গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি হাই স্কুল, ঢাকা সিটি কলেজ, আইডিয়াল কলেজ, নিউ মডেল ডিগ্রি কলেজ, লালমাটিয়া মহিলা কলেজ, লালমাটিয়া উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়, মোহাম্মদপুর কেন্দ্রীয় কলেজ, মোহাম্মদপুর মডেল স্কুল এন্ড কলেজ, গভর্নমেন্ট সায়েন্স কলেজ, উইল্স লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল এন্ড কলেজ, সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজ, নটরডেম কলেজ, মতিঝিল সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়, মতিঝিল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, আইডিয়েল স্কুল এন্ড কলেজ, শেখ বোরহানুদ্দীন পোস্ট গ্রাজুয়েট কলেজ, ঢাকা মহানগর মহিলা কলেজ এবং আহমেদ বাওয়ানী একাডেমি স্কুল অ্যান্ড কলেজ। এ বছর ১ হাজার ৭৬৫টি আসনের জন্য আবেদন করেন ৮৯ হাজার ৫০৬ জন ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পরীক্ষা

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ