Inqilab Logo

রোববার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ইসলামী প্রশ্নোত্তর

আমরা যখন গোসল করি তখন অযু করে নেই এবং গোসলের ফরযগুলো আদায় করি, আমার প্রশ্ন হলো আমরা যখন কাপড় দিয়ে গায়ের পানি শুকিয়ে নেই তখন যদি আমাদের গোপ্তাঙ্গ স্পর্শ করে ফেলি অথবা তেল বা লোশন লাগানোর সময় স্পর্শ করে ফেলি, তাহলে কি আমাকে পুনরায় অযু করতে হবে?

উত্তর : গোপ্তাঙ্গ স্পর্শ করা, পানি দিয়ে ধোয়া, তেল লোশন বা ওষুধ ব্যবহার করা তথা সাধারণ স্পর্শের দ্বারা অজু নষ্ট হয় না। তাই, স্বাভাবিক গোসল শেষ হওয়ার আগে কোনোভাবেই অজু ভাঙ্গে না। দৈনন্দিন জীবনেও গোপ্তাঙ্গ স্পর্শের দ্বারা অজু ভাঙ্গে না। উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভীসূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।[email protected]  ...


আমার এক নিকটাত্মীয় মদ-গাঁজা সেবন করত। স্বামী-স্ত্রী প্রায় সময়মই ঝগড়া হতো, স্বামী তার স্ত্রীর গায়ে অনেক সময় হাত তুলত। স্ত্রীও খুব বেশী একটা ছাড় দিত না। আবার স্ত্রীর বিরুদ্ধে অন্য পুরুষের সাথে দীর্ঘ দিন রাতে-বিরাতে গোপন ফোনালাপের অভিযোগ ছিল। তাদের দুই ছেলে আছে। স্বামী তার স্ত্রীর নামে ব্যাংক একাউন্টে ১৫-১৮ লাখ টাকার সম্পদ রেখেছিল। স্ত্রী বাপের বাড়ি গিয়ে সেগুলো হাত করে নেয় এবং নেশাখোর স্বামীর সংসার করবেনা বলে জানায়। এ অবস্থায় কয়েকটি ব্যর্থ আলোচনা বা বৈঠক হয়। প্রায় এক বছরের বেশী সময় পর স্ত্রী ওই স্বামীকে এক উকিলের মাধ্যমে ডাকযোগে ডিভোর্সলেটার পাঠায়। স্বামী বলে সে ওই লেটার রিসিভ ও সাইন করেনি। এর প্রায় এক বছর পর তার স্ত্রী ওই গোপন ফোনালাপের অভিযুক্ত ব্যক্তিকেই বিয়ে করে। প্রশ্ন হলো স্ত্রীর এ তালাক ও পরবর্তী বিয়ে ইসলামের বিধান মতে সঠিক ভাবে হয়েছে কি না? আর না হলে এখন করনীয় কি?

উত্তর : দেশের আইন অনুযায়ী এই তালাক হয়ে গেছে। পরবর্তী বিবাহও শুদ্ধ হয়েছে। আগে যেই ফোনালাপ বা দেখা সাক্ষাৎ করতো, একথাটি প্রমাণ করার জন্য শরীয়তসম্মত পদ্ধতিতে যথেষ্ট রশদ সাবেক স্বামীর হাতে নেই। তাদের মিল ছিল না কি অমিল এর সাথে...








আর্কাইভ
রোব সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি