Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০৫ আষাঢ় ১৪২৮, ০৭ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী



প্রশ্ন: আমাদের গ্রামের জামে মসজিদটা আগে টিন-কাঠের ছিল। গতবছর সেই টিন-কাঠের তৈরি ঘরটা সরিয়ে সেই জায়গায় একটা বিল্ডিং করা হয়। আর আগের ঘরটা পাশেই কোনরকমে উঠিয়ে রাখা হয়েছে। সেটা বর্তমানে পরিত্যক্ত হওয়ায় নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এখন মসজিদ কমিটি যদি চায়, সেই টিন-কাঠের ঘরটা বিক্রি করে সেই টাকা বর্তমান মসজিদ বিল্ডিং এর কাজে লাগাতে পারবে কি? আর যদি বিক্রি করতে পারে তাহলে যিনি সেই ঘর কিনবেন, তিনি কি নিজের ইচ্ছেমত সেটা যেকোন কাজে ব্যবহার করতে পারবেন?

উত্তর : বর্তমান অবস্থায় এই ঘর বিক্রি করা যাবে। তবে, এর সম্পূর্ণ টাকা মসজিদের খাতেই ব্যায় করতে হবে। আর যিনি এসব সামগ্রি কিনবেন তিনি তার ইচ্ছেমতো কাজে লাগাতে পারবেন। উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভীসূত্র : জামেউল...










প্রশ্ন: আমি ছোটো থাকতে বাসার বাজারের টাকা থেকে কিছু টাকা মেরে দিতাম। এছাড়াও বাবার পকেট থেকে টাকা চুরি করতাম। আমি অনেক ক্রেতার কাছ থেকে দাম ইচ্ছে করেই বেশি নিয়েছি। দোকান থেকে টাকা চুরি করেছি। অনেকের হক খেয়েছি। এখন বুঝতে পেরেছি যে, অন্যের হক হরণকারীকে আল্লাহ কখনো ক্ষমা করেন না। এখন এসব পরিশোধ করবো কীভাবে? আমার সে সামর্থও নেই যে তাদের কাছে টাকা ফেরত দেবো বা তাদের কাছে গিয়ে ক্ষমা চাওয়ার মতো ব্যবস্থাও নেই। আমি টুকিটাকি দান-সদকা করি এই নিয়তে যে, আমার এই দানগুলো যাদের হক খেয়েছি, তাদের আমল নামায় লিপিবদ্ধ হোক। এটা কি আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য?

উত্তর : আপনার বুঝের জন্য আল্লাহর শোকরিয়া করুন। যতদূর সম্ভব আদায় করে করে হালকা হোন। যেখানে আদায় করা সম্ভব নয়, ক্ষমা চেয়ে নিন। যেখানে এটাও সম্ভব নয়, তাদের নিয়তে যতটুকু সম্ভব দান-খয়রাত করতে থাকুন। এরপরও তাদের জন্য রহমত ও মাগফেরাতের...


আর্কাইভ